Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৭ কার্তিক ১৪২৬, ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

কানাডায় জোট সরকার গঠনের পথে ট্রুডো

নির্বাচনে জিতলেও হারিয়েছেন সংখ্যাগরিষ্ঠতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৩ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

তীব্র প্রতিদ্ব›িদ্বতার মধ্যে কানাডার ৪৩তম জাতীয় নির্বাচনে জাস্টিন ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি জয়লাভ করেছে। এই নির্বাচনে সর্বোচ্চ সংখ্যক আসনে বিজয়ী হলেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় উদারপন্থি রাজনৈতিক ট্রুডোকে জোট সরকার গঠন করতে হবে। খবর বিবিসি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উত্তর আমেরিকার দেশ কানাডায় নির্বাচনে জাস্টিন ট্রুডোর দল লিবারেল পার্টি ১৫৭টি আসন পেয়েছে। সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভের জন্য ১৭০টি আসন দরকার ছিল তাদের। সে হিসেবে ১৩টি আসন কম পেয়েছে ট্রুডোর দল। একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা না পাওয়ায় দ্বিতীয় মেয়াদে আইন পাস করানোর ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বেন ট্রুডো। অর্থাৎ তার দল চাইলেই কোনো আইন পাস করতে পারবে না। অন্যদিকে নির্বাচনে ট্রুডোর প্রধান প্রতিপক্ষ ছিল কনজারভেটিভ পার্টির নেতা অ্যান্ড্রু শীর। এবারের ভোট পরবর্তী ফলাফল গণনায় তার দল পেয়েছে ১২১ আসন। গত নির্বাচনে ৯৫টি আসন পেয়েছিল তারা। এছাড়া বাকি তিনটি দল ব্লক কুবেকুয়া, নিউ ডেমোক্রেটিক পার্টি এবং গ্রিন যথাক্রমে ৩২, ২৪ ও ৩টি আসন পেয়েছে। একটি আসনে জয় পেয়েছেন একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। দৃশ্যত, জোট সরকারের সুবিধা পেতে যাচ্ছে বামপন্থী রাজনৈতিক দল নিউ ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এনডিপি)। সেক্ষেত্রে ২৪টি আসন নিয়ে কিংমেকারে পরিণত হবেন দলটির নেতা জগমিত সিং।

নির্বাচনের জয়ের আভাস পেতেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন ট্রুডোর সমর্থকরা। মন্ট্রিলে উচ্ছ্বসিত সমর্থকদের উদ্দেশে জাস্টিন ট্রুডো বলেন, ‘বন্ধুরা আপনারাই এ বিজয় এনে দিয়েছেন। অভিনন্দন।’ পরে টুইটারে দেয়া এক পোস্টে তিনি বলেন, ‘আমাদের টিমের ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য এবং এই দেশকে সঠিক পথে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে আমাদের ওপর আস্থা রাখার জন্য তোমাকে ধন্যবাদ কানাডা। আপনি যাকেই ভোট দিন না কেন, আমাদের টিম সব কানাডিয়ানের জন্য কাজ করবে।’ উন্নয়নের এজেন্ডা এবং জলবায়ু পরিবর্তন ইস্যুতে শক্তিশালী পদক্ষেপ নেয়ার পক্ষে ভোট দেয়ার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ জানান ট্রুডো। জয়লাভের পরে দেয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘দেশকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে আমাদের ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য আপনাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা। এ বিজয় আমার একার নয়, আপনাদের সবার। আপনারা আমাকে যে সম্মান এবং দায়িত্ব দিয়েছেন; গত চার বছর যেভাবে পালন করেছি, আগামী দিনগুলোতে আরও ভালোভাবে পালন করতে চাই।’ ট্রুডো আরও বলেন, ‘সুন্দর ভবিষ্যতের জন্য আমরা সবাই একসঙ্গে কাজ করে যাব, আপনাদের সবাইকে আমার প্রাণঢালা অভিনন্দন এবং ধন্যবাদ।’ এ দিকে টানা দ্বিতীয়বার সরকার গঠন করতে যাওয়া ট্রুডোকে অভিনন্দন জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেন, ‘অসাধারণ এবং তীব্র প্রতিদ্ব›িদ্বতাপূর্ণ নির্বাচনে জয়লাভ করায় জাস্টিন ট্রুডোকে অভিনন্দন। আমাদের দুই দেশের উন্নতির জন্য আপনার সঙ্গে কাজ করতে মুখিয়ে আছি।’

১০টি প্রদেশ নিয়ে গঠিত কানাডা আয়তনের দিক থেকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। টানা পাঁচ সপ্তাহের নির্বাচনি প্রচার-প্রচারণা শেষে গত সোমবার প্রায় চার কোটি মানুষের দেশটিতে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনি প্রচারণায় নিজের উদার অভিবাসননীতি নিয়ে বিরোধীদের সমালোচনার মুখে পড়েন জাস্টিন ট্রুডো। জলবায়ু ইস্যুতেও তার বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থতার অভিযোগ ওঠে। তবে দুই ডজনেরও বেশি কানাডিয়ান শিক্ষাবিদের স্বতন্ত্র পর্যালোচনায় উঠে এসেছে, ২০১৫ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পর জাস্টিন ট্রুডো তার নির্বাচনি প্রতিশ্রুতির ৯২ শতাংশই পূর্ণাঙ্গ কিংবা আংশিকভাবে বাস্তবায়ন করেছেন। গত ৩৫ বছরে অন্য যে কোনও কানাডিয়ান সরকারের চেয়ে তার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের হার সর্বোচ্চ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ