Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

বিশ্বনাথে কিশোরীকে ১০ দিন আটক রেখে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের

বিশ্বনাথ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০১৯, ৫:১২ পিএম

সিলেটের বিশ্বনাথে এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ১০দিন আটক রেখে ধর্ষণের ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। গতকাল ২৯ অক্টোবর রাতে ১১টার দিকে কিশোরীর পিতা উপজেলার বৈরাগীগাঁও গ্রামের সফিক মিয়া বাদী হয়ে ধর্ষক হাবিবুর রহমান টিটুকে প্রধান আসামী করে বিশ্বনাথ থানায় এই মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং-২৩। অপহরণ ও ধর্ষণে সহযোগিতা করায় হাবিবুর রহমান টিটুর পিতা হাজী মনফর আলী (৭০) ও বড় ভাই শানুর আলীসহ আরো ৩/৪ জনকে অজ্ঞাতানা আসামী করা হয়েছে।

এদিকে, ভিকটিম তরুণীকে মঙ্গলবার দুপুরে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি’তে প্রেরণ করা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। বখাটে হাবিবুর রহমান টিটু লামাকাজী ইউনিয়নের কোনাউড়া নোয়াগাঁও গ্রামের মনোহর আলীর ছেলে।

জানাযায়, অভিযুক্ত হাবিবুর রহমান টিটুর পাশের বাড়িতে একটি কিশোরি মেয়ে গৃহকর্মীর কাজ করত। মেয়েটির প্রতি কুদৃষ্টি পড়ে বখাটে হাবিবুর রহমানের। প্রায়ই সে মেয়েটিকে উতক্ত করত। এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে গত ১১ অক্টোবর টিটু তার বাড়ির পাশের একটি নির্জন বাড়িতে আটক রেখে ১০ দিন পালাক্রমে ধর্ষণ করে। বিষয়টি জানাজানি হলে স্থানীয় মাতববররা মেয়েটিকে দোষি সাব্যস্থ করে টিটুর সাথে মেয়েকে বিবাহ দেয়ার জোর তদবির শুরু করেন। এক পর্যায়ে ছেলে ও মেয়ের পক্ষকে থানায় নিয়ে আসা হয়। মেয়ের পিতা সফিক আলী নিরক্ষর ও অসহায় দরিদ্র থাকায় মাতববরদের কথার বাইরে যাওয়ার সাহস পাননি। ছেলের পক্ষ মেয়েটিকে বিবাহের আশ্বাস দিলে থানা পুলিশ বখাটে টিটুকে ছেড়ে দেয় এবং বাড়িতে গিয়ে আত্নীয় স্বজনরা বিবাহে অস্বীকৃতি জানায়।
স্থানীয়রা জানান, মেয়েটিকে বিবাহ দেয়ার কথা বলে মাতববররা ছেলের পক্ষ থেকে ১লক্ষ ১০ হ্জাার টাকাও আদায় করেছেন এবং মাতববররা মেয়েকে টিটুর সাথে বিবাহ না দেয়ার মত দেন।

মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও বিশ্বনাথ থানার সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) নবী হোসেন বলেন, ভিকটিমকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি’তে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার আসামীদেরকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মামলা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ