Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

বিএনপি নেতা গিয়াস কাদেরের কারাদন্ড

প্রধানমন্ত্রীকে হুমকির মামলা

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৩১ অক্টোবর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

প্রধানমন্ত্রীকে হুমকি দিয়ে উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে তিন বছরের সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন চট্টগ্রামের একটি আদালত। পাশাপাশি তাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন মাসের কারাদন্ডের আদেশ দেওয়া হয়।
গতকাল বুধবার চট্টগ্রামের জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আ স ম শহিদুল্লাহ কায়সার আসামির অনুপস্থিতিতেই এ রায় ঘোষণা করেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী এনামুল হক জানিয়েছেন, গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তার অবস্থা সঙ্কটাপন্ন।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাষ্ট্রপক্ষের অতিরিক্ত পিপি সমীর দাশগুপ্ত জানিয়েছেন রায়ে তারা খুশি। তিনি বলেন, গত বছরের ২৯ মে চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে উপজেলা বিএনপির একটি সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি, কট‚ক্তি ও মানহানিকর বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে ৩১ মে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। আদালত মামলাটি সরাসরি গ্রহণ করেন এবং চলতি বছরের ১৮ সেপ্টেম্বর অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন। মোট ছয় জনের সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন বলে জানান তিনি। মামলার বাদি ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী।

রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে যাবেন জানিয়ে আসামি পক্ষের আইনজীবী এনামুল হক বলেন, গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর অবস্থা সঙ্কটাপন্ন হওয়ায় আমরা চার্জগঠনের দিনই সময় চেয়ে আবেদন করেছিলাম। কিন্তু আদালত আমাদের মানবিক আবেদন আমলে নেননি। একদিনেই ছয় সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করে অত্যন্ত দ্রæততার সাথে বিচার শেষ করার মাধ্যমে রাষ্ট্রপক্ষ তাকে সাজা দিয়ে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার পরিচয় দিয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

প্রসঙ্গত ফটিকছড়িতে বিএনপির সমাবেশে গিয়াস কাদের চৌধুরীর বক্তব্যের জের ধরে তখন নগরীতে তার গুডস হিলের পৈতৃক বাড়িতেও হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কর্মীরা। সাবেক সংসদ সদস্য গিয়াস কাদের চৌধুরী বিএনপির স্থায়ী কমিটির সাবেক সদস্য মরহুম সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরীর ছোটভাই।
বিএনপির তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ
দলের ভাইস চেয়ারম্যান সাবেক সংসদ সদস্য গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে কারাদন্ডের রায় ঘোষণার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক নগরীতে বিক্ষোভ করেছেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তাগণ বলেন, মিথ্যা এবং ভিত্তিহীন মামলার ফরমায়েশি রায় প্রদান করা হয়েছে। তারা বলেন, গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিঙ্গাপুর নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু আদালত তার অবস্থা বিবেচনা না করে প্রথম সাক্ষগ্রহণের দিনে মাত্র ২০ মিনিটে ৬ জনের সাক্ষগ্রহণ করে এবং আসামি পক্ষকে কোন রকম সুযোগ না দিয়ে তড়িঘড়ি করে রায় প্রদান করে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার সংগ্রাম থেকে তাকে দূরে সরিয়ে রাখার জন্য সরকার সুকৌশলে আদালতের উপর হস্তক্ষেপ করে উক্ত রায় প্রদান করেছে বলেও অভিযোগ করেন তারা। বিএনপি নেতারা রায় প্রত্যাখ্যান করে অবিলম্বে তা বাতিলেরও দাবি জানান।

নগরীর ওয়াসার মোড়ে কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য সাথী উদয় কুসুম বড়–য়ার নেতৃত্বে তাৎক্ষণিক বিক্ষোভ মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে কাজীর দেউরী মোড়ে এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উত্তর জেলা বিএনপি নেতা আবু জাফর চৌধুরী, মাঈনুদ্দিন মাহমুদ, ফিরোজ আহমেদ, নিজামুল হক তপন, অ্যাড. কামাল উদ্দিন, শফিউজ্জামান, আছমত আলী বাহাদুর, আবু জাফর, রফিকুল ইসলাম, ইলিয়াছ চৌধুরী, যুবদল নেতা এম. ইলিয়াছ আলী, সাবের সুলতান কাজল, মহিউদ্দিন মাসুদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সদস্য আতাউল্লাহ স¤্রাট, ইউসুফ তালুকদার, মাসুদ আলম, সেলিম উদ্দিন, এম শাহজান সাহিল, একরাম মিয়া, আনিসুজ্জামান সোহেল, এস.এম রাশেদুল আলম, জি.এম সালাহ উদ্দিন আসাদ, জানে আলম, ফয়েজ তারেক, কাজী অ্যাড. জুয়েল, আল মামুন সাদ্দাম প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ