Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

ইলিশ শিকারে ছুটছেন জেলেরা

দৌলতখান (ভোলা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০১৯, ১:৫২ এএম

ইলিশ প্রজনন মৌসুমে মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা শেষে দৌলতখানের জেলেরা গতকাল ইলিশ শিকারে জেলেরা ছুটছেন সাগর পথে। দীর্ঘ বিরতির পর নব উদ্যোমে ইলিশ শিকারে ব্যস্ত হয়ে পড়ছেন দৌলতখানের জেলেরা। ভোলার দৌলতখানে ইলিশ শিকারে জেলেরা মাছ ধরার মহোৎসবে মেতে উঠবেন দৌলতখানের জেলেরা। জীবন বাজি রেখে দেশের অর্থনীতিতে যোগান দেবে দৌলতখানের কয়েক হাজার জেলে। দীর্ঘ ২২ দিন অলস সময় কাটিয়ে আবার ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন উপকূলের জেলেরা।

ভোলার দৌলতখানের বিভিন্ন ঘাট থেকে মাছ শিকারের উদ্দেশে মেঘনায় যাত্রা শুরু করবে হাজার হাজার জেলেরা। এর আগে টানা ২২ দিন মেঘনায় মাছ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়। দৌলতখানের বিভিন্ন মৎস্যঘাট জেলে পল্লী গিয়ে দেখা যায়, জেলেদের মধ্যে লেগে গেছে মহাব্যস্ততা। বাজারসহ আনুসঙ্গিক কাজ স¤পন্ন শেষ করে গতকাল ট্রলারে বরফ ভরে নদীতে যাত্রা শুরু করে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, নিষেধাজ্ঞার শেষ দিনেই নদীতে যাওয়ার জন্য নিজ নিজ ট্রলারে জাল উঠাচ্ছেন, বাজার করে ট্রলারের নির্ধারিত জায়গায় সংরক্ষণ করছেন। আবার কেউ কেউ দৌলতখান পৌর শহরের পাইকারি মুদি দোকানে চাল, ডাল, তেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কেনায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। দৌলতখান সৈয়দপুর ইউনিয়নের মাঝি ভুট্টু বলেন, ১০ দিনের বাজার করা হয়েছে। রাত ১২টার পরই ট্রলার নিয়ে যাবো। মধ্যরাতে বরফ ভরেই জোয়ারেই ট্রলার ছাড়বো।

ভোলা সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান বলেন, বুধবার মধ্য রাত থেকে মাছ শিকারের নিষেধাজ্ঞা উঠে যায়। ভোলার দৌলতখানের বেশিরভাগ জেলে নিষিদ্ধ সময়ে নৌকা ও জাল মেরামতে ব্যস্ত ছিলেন। আমরা তাদেরকে ধন্যবাদ জানাই এবং মহাজনসহ জেলেদের আন্তরিক সহযোগীতায় এবারের অবরোধ সফল হয়েছে।

 

 

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইলিশ

১২ আগস্ট, ২০২০
৭ মার্চ, ২০২০
২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ