Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০, ০৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বন্ধ হয়ে গেল রেডিও কাশ্মীর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:০৬ পিএম

আজীবনের জন্য বন্ধ হয়ে গেল রেডিও কাশ্মীরের। পথ চলা শুরু হয়েছিল ১৯৪৮ সালের ১ জুলাই। শেষ হলো ২০১৯ সালের ৩১ অক্টোবর। সীমান্তের দুই পাশের বাসিন্দাদের কাছেই সমান জনপ্রিয় ছিল রেডিও কাশ্মীর।
তবে ‘ইয়ে রেডিও কাশ্মীর হ্যায়' শব্দটি আর কখনোই শুনতে পাবে না তারা। বৃহস্পতিবার জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ নতুন দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে পথ চলা শুরু করার সঙ্গে সঙ্গেই ৭১ বছর ধরে চলা রেডিও কাশ্মীর কার্যত পরিচয় হারিয়েছে।
ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া এক প্রতিবেদনে জানায়, কাশ্মীর বিভক্ত হয়ে পড়ায় রেডিও কাশ্মীর আর থাকছে না। এটি পরিচিত হবে অল ইন্ডিয়া রেডিও বা আকাশবাণী নামে।
ভারত স্বাধীন হওয়ার পর ৭২ বছর আকাশবাণীতে বহু প্রশাসনিক পরিবর্তন হলেও কোনোদিন রেডিও কাশ্মীর নামটির পরিবর্তন করা হয়নি। কিন্তু কালের পরিক্রমায় সেই কাজটাও হলো মোদী সরকারের সিদ্ধান্তে। এবার রেডিও কাশ্মীরের পরিবর্তে শোনা যাবে ‘ইয়ে আকাশবাণী হ্যায়’।
রেডিও কাশ্মীরের এভাবে নাম পরিবর্তনকে সমর্থন করতে পারছেন না অল ইন্ডিয়া রেডিওর সাবেক প্রধান নির্বাহী জওহর সরকার। তিনি বলেন, এটার কোনো প্রয়োজন ছিল বলে আমার মনে হয় না। এর মাধ্যমে উপত্যকার সাধারণ মানুষের ভাবাবেগের ওপর আঘাত হানা হলো। এই রেডিও স্টেশনের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে গিয়েছিল কাশ্মীরের মনন। নাম পরিবর্তনের আগে সেই দিকটা একবারও ভাবা হলো না। বিষয়টি এমন হলো, সব যখন নেওয়া হয়েছে, তখন এটাও বা বাকি থাকে কেন।
জন্মলগ্ন থেকে শুরু করে অনেক তাৎপর্যপূর্ণ অধ্যায়ের মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে রেডিও কাশ্মীরকে। ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ, ভারত-চীন যুদ্ধ, কার্গিল যুদ্ধ, সীমান্তের উত্তপ্ত পরিস্থিতি- কোনো সময়েই এই রেডিও স্টেশনের সম্প্রচারে বাধা পড়েনি। তবে এবার মোদী সরকারের সিদ্ধান্তে চিরতরে বন্ধ হলো রেডিও কাশ্মীর।



 

Show all comments
  • আকাশ ১ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:১৮ পিএম says : 0
    ইয়ে মোদি কা ম্যাজিক হ্যায়
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রেডিও কাশ্মীর
আরও পড়ুন