Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বগুড়ায় দারোগার মারপিটে তরুনী বধু হাসপাতালে

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০১৯, ১:৪৬ পিএম

পিতার অমতে প্রেমিককে বিয়ে করায় দারোগার হাতে মার খেয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে মনিরা আকতার (২০) নামের এক সদ্য বিবাহীতা তরুণী । তার শারীরীক আঘাত বেশ গুরুতর বলে জানিয়েছে স্বামী ইমরান হোসেন ।
ঘটনার বিবরণ দিয়ে সোমবার দুপুরে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের সার্জিক্যাল ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন মনিরা বলেন , তিনি সম্প্রতি গাবতলীর ফজিলা আজিজ মেমোরিয়াল টেকনিক্যাল কলেজে পড়াশোনাকালে একই উপজেলার সোনারায় ইউপির মধ্যখুপি গ্রামের ইমরান হোসেনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন । তবে এতে তার বাবা জাহিদুল ইসলামের সম্মতি না থাকায় তার প্রেমিকের নামে গাবতলী থানায় লিখিত অভিযোগ করে ইমরাণের বিরুদ্ধে ।
অভিযোগের তদন্তবার পেয়ে গাবতলী থানার দারোগা রিপন মিয়া অভিযোগটির তদন্ত ভার লাভ করে । তদন্ত কাজের অংম হিসেবে সে ইমরাণ ও মনিরার সাথে সাক্ষাৎকরে প্রকৃত ঘটনা জানতে পেরে বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখে অভিযোগকারী মনিরার বাবা জাহিদুল ও প্রেমিক ইমরান দুজনের কাছ থেকেই মাঝে মাঝেই টাকা হাতিয়ে নিতে থাকে ।
একপর্যায়ে নভেম্বরের ১তারিখে নিজেদের সম্মতিতে মনিরা ও ইমরান জুটি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে ইমরানের গ্রামের বাড়িতে বসবাস শুরু করে । খবরটি জানতে পেরে দারোগা ইমরান ৩ নভেম্বর রাতে ইমরানের বাড়িতে উপস্থিত হয়ে ঘরের দরজা ভেঙ্গে প্রবেশ করে নববিবাহিত দম্পতির ঘরে ।
মনিরার বাবার অভিযোগের তদন্তকারী হিসেবে কেন তাকে না জানিয়ে বিবাহ সম্পন্ন করা হল তা’ জানতে চান মনিরার কাছে । মনিরা কারণ জানালে ,ক্ষুব্ধ দারোগা রিপন মিয়া বলেন , ঠিক আছে বিবাহ করেছিস ভাল কথা এখন ১০ হাজার টাকা দে ...না হলে ... ।
তবে মনিরা টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে রিপন মিয়া মনিরাকে চড় থাপ্পড় কিল ঘুষি মারে ও লাঠিপেটা করে ।
এসময় চিৎকার চেঁচামেচি শুনে গ্রামের লোকজন এগিয়ে আসলে দারোগা রিপন মিয়া দ্রুত ঘটনাস্থল থেকে চলে যায় । পরে মাঝরাতেই মনিরাকে বগুড়া মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। এদিকে একটি প্রভাবশালী মহল আহত মনিরাকে হাসপাতাল থেকে সরানোর চেষ্টা করছে , পাশাপাশি বিষয়টি যেন মনিরা মুখ বন্ধ রাখে তার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে । দুপুরে গাবতলী থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করা হলে ওসি জানান , ঘটনাটি তদন্ত করা হবে দারোগা রিপন মিয়া দোষি হলে তাকে বিভাগীয় শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মারপিট


আরও
আরও পড়ুন