Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ১০ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১২ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

মসজিদই ছিল এবং থাকবে, কিন্তু সুপ্রিম রায় মেনে নেব : মাদানি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

‘বাবরি শরিয়া আইন অনুযায়ী মসজিদ ছিল এবং থাকবে’, এমন মন্তব্যই করলেন জমিয়েত উলেমা-ই-হিন্দের প্রেসিডেন্ট আরশাদ মাদানি। অযোধ্যার মতো ঐতিহাসিক মামলার রায়দান নিয়ে যখন অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে গোটা দেশ, সেই আবহে মাদানির এই মন্তব্য তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহলের একাংশ। একইসঙ্গে মাদানি বলেছেন, অযোধ্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দেবে, তা তারা মেনে নেবেন। অযোধ্যা মামলায় মধ্যস্থতা প্রক্রিয়া কেন ভেস্তে গেল, এ প্রসঙ্গেও মুখ খুলেছেন মাদানি। তিনি বলেছেন, ‘‘আমরা রাম চবুতরাকে মেনে নিয়েছিলাম। কিন্তু হিন্দুপক্ষরা তাঁদের দাবি থেকে সরলেন না। যেখানে বাবরি মসজিদ ছিল, যেখানে মুসলিমরা প্রার্থনা করতেন, সেই তিনটি গম্বুজ ও এটার উঠোনের অংশের দাবি ছাড়তে নারাজ ছিলেন হিন্দুপক্ষরা। ভারতীয় ওয়াকফ আইন অনুযায়ী এই দাবি মানা যায় না। কারণ শরিয়া আইন অনুযায়ী, এটা মসজিদ ছিল। যাই হোক, হিন্দুপক্ষরা তাঁদের দাবি থেকে সরেননি। ফলে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের অপেক্ষা করা ছাড়া আমাদের কাছে আর কোনও অপশন নেই’’। প্রসঙ্গত, ২০১০ সালে ইলাহাবাদ হাইকোর্ট রায় দিয়ে জানিয়েছিল, অযোধ্যায় বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড, নির্মোহী আখড়া ও রামলালা বিরাজমানের মধ্যে সমান ভাবে ভাগ করতে হবে। এ রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে ১৪টি আবেদনপত্র জমা পড়ে। এরপর তিন সদস্যের মধ্যস্থতাকারী প্যানেল তৈরি করে দেশের সর্বোচ্চ আদালত। কিন্তু মধ্যস্থতা ব্যর্থ হওয়ায় গত ৬ অগাস্ট থেকে এ মামলার দৈনিক শুনানি শুরু হয়েছিল। কিছুদিন আগে শেষ হয় বিতর্কিত রাম জন্মভূমি-বাবরি মসজিদের জমি সংক্রান্ত মামলার শুনানি। এসএএম।

 



 

Show all comments
  • Anwar Hossain Akanda ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৩ এএম says : 0
    বিজেপি মানুষের ধর্মীয় আবেগ কে কাজে লাগিয়ে শুধু মাত্র রাষ্ট্রীয় ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে বাবরি মসজিদ কে ব্যবহার করেছে ,এবং ভারতের হিন্দুত্ববাদ কে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছে ,যার ফলস্বরুপ বিজেপি ক্ষমতার স্বাদ পাচ্ছে এই হিসাবে বাবরি মসজিদ ভাঙ্গার উস্কানি দিয়ে তারা সফল । এখন তাদের কে বিচারের ভয় দেখিয়ে কোন লাভ নেই ।বিশ্বে সাম্প্রদায়িকতা বাড়বে বৈ কমার সম্ভাবনা ক্ষীন বলেই মনে হচ্ছে ।
    Total Reply(0) Reply
  • Shahabul Islam ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৩ এএম says : 0
    ভারত উদার গণতন্ত্রের দেশ ধর্ম নিরপেক্ষতার কথা বলে মুখে ফেনা তুলেন।অথচ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গায় ভারতে সবচাইতে বেশি মুসোলমানদের জিবন দিতে হয়েছে।যা বিশ্বে বিরল।এই নরেন্দ্রমদির ইশারায় বাবরি মসজিদ ভাঙ্গা হয়।এখন বাবরি মসজিদের ভাঙ্গার বিচার নরেন্দ্রমদির আমলে আশা করাও পাপ।।
    Total Reply(0) Reply
  • Riaz Ahmed Jacky ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৪ এএম says : 0
    এমন কি হতে পারে যে, বিচারের নামে আইনি প্রক্রিয়ায় বিজেপিকে দায়মুক্ত করার জন্যই এই পদক্ষেপ?
    Total Reply(0) Reply
  • Mosaddeq Hossain ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৪ এএম says : 0
    যে দেশে মানুষের থেকে গরু ছাগলের মর্যাদা বেশী সে দেশে প্রধান মন্ত্রী যখন বড় উগ্রধর্মান্ধ সে দেশে এরকম বিচার আচার কিছুই হবেনা
    Total Reply(0) Reply
  • Kazi Masud ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৫ এএম says : 0
    ভারতের সুপ্রীম কোর্ট যদি নিরপেক্ষ হয়ে থাকে তাহলে বাবরি মসজিদ ধ্বংশ,দাঙ্গা ও ধর্মীয় অনুভৃতিতে আঘাত দেওয়ার জন্য বিজেপি নেতাদের ও অংশগ্রহন কারী উগ্রপন্থী দের বিচারের আওতায় আনুন।
    Total Reply(0) Reply
  • Zakia Bari Zara ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৭ এএম says : 0
    হিন্দু জঙ্গিরা বাবরি মসজিদ ভেঙেছে। তাদের দাবি সেটা মসজিদ নয়, রাম মন্দির! আমার প্রশ্ন- সেটা যদি সত্যি সত্যিই মন্দির হয়,তাহলে তাকে এভাবে ভাঙা হলো কেন? মন্দির কি পবিত্র নয় তাদের কাছে?
    Total Reply(0) Reply
  • Řẫz ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৯ এএম says : 0
    মজার ব্যাপার হলো বাবরি মসজিদ ভাঙ্গতে যারা অংশগ্রহণ করেছিল তাদের মধ্যে অনেকে ইসলাম গ্রহন করেছেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Mj hasan sajeeb ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৫০ পিএম says : 0
    Amar sustho bicar cai
    Total Reply(0) Reply
  • Mj hasan sajeeb ৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৫০ পিএম says : 0
    Amar sustho bicar cai
    Total Reply(0) Reply
  • কোহেল ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:১৪ এএম says : 0
    এখানে প্রমান হয়ে গেল পৃথিবীর আইনে ন্যয় বলতে কিছু নাই। জোর যার মুল্লুক তার।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মসজিদ


আরও
আরও পড়ুন