Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আশা দিয়ে দেশ ছাড়লেন সাদমান-সাইফরা

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

টি-টোয়েন্টি সিরিজ এখনো শেষ হয়নি। দিল্লিতে ৭ উইকেটে জিতেছে বাংলাদেশ, রাজকোটে ৮ উইকেটের জয়ে তার শোধ তুলেছে ভারত। ১-১ সমতা থাকায় আগামীকাল নাগপুরে হবে শিরোপা নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ ম্যাচ। এরপর শুরু হবে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ। ১৪ নভেম্বর ইন্দোরে প্রথম টেস্টে ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এ সিরিজ খেলতে গতকালই দেশ ছেড়েছেন টেস্ট দলে ডাক পাওয়া সাদমান ইসলাম, আবু জায়েদ, এবাদত হোসেন, সাইফ হাসানরা। নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসান না থাকায় দল কিছুটা চাপে তো থাকবেই কিন্তু দেশ ছাড়ার আগে আশার কথাই শোনালেন তরুণেরা।

ভারত সফর দিয়ে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ শুরু করবে বাংলাদেশ। ঘরের মাঠে ভারত ভীষণ শক্তিশালী দল। সংক্ষিপ্ত সংস্করণের তুলনায় টেস্টে তাদের বোলিং বিভাগ বেশি ধারালো। ওপেনার হিসেবে সাদমান ইসলামের প্রস্তুতি কেমন? এক বছর আগে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্টে অভিষিক্ত সাদমান জানালেন, ভারতের মাঠে স্বাগতিকদের মুখোমুখি হওয়ার চ্যালেঞ্জটা তাঁকে আলাদা কোনো চাপে রাখছে না।

ভারতের বোলারদের নিয়েও ভাবছেন না সাদমান, ‘তারা অনেক শক্তিশালী দল। কিন্তু ওরকম বাড়তি কোনো চাপ নিয়ে যাচ্ছি না। ওদের বোলার নিয়ে অত চিন্তা নেই। আমরা ভালো ভালো অনেক দলের বিপক্ষেই খেলেছি। আমরা যেমন খেলি তেমন খেলাটাই খেলব।’ চোট কাটিয়ে ওঠা সাদমান প্রথম টেস্টে খেলার ব্যাপারেও আত্মবিশ্বাসী। সাকিবের অনুপস্থিতিতে দলের শক্তি কমলেও বাকি সতীর্থদের ওপর ভরসা রাখছেন এ ব্যাটসম্যান, ‘সাকিব ভাইয়ের না থাকা দলের জন্য বড় চাপ। কিন্তু আমাদের মিরাজ আছে, তাইজুল ভাই আছেন, নাঈম আছে- ইনশাআল্লাহ কিছুটা পুষিয়ে নেওয়া যাবে।’

ঘরোয়া ক্রিকেট এবং ‘এ’ দলে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করা সাইফ হাসান এবারই প্রথম ডাক পেয়েছেন টেস্ট দলে। সুযোগ পেলে নিজের সামর্থ্য দেখাতে চান এ ব্যাটসম্যান, ‘ইনশাআল্লাহ, আত্মবিশ্বাস আছে। সুযোগ যদি পাই দেশের হয়ে ভালো কিছু করতে চাই। চেষ্টা করব ফর্মটা টেনে নেওয়ার। সুযোগ পেলে ম্যাচ ধরে ধরে ভালো খেলার চেষ্টা করব।’ ঘরের মাঠে ভারত অপ্রতিরোধ্য প্রতিপক্ষ হলেও নিজের দলের ওপর আস্থা রাখছেন সাইফ, ‘আমরা যদি সর্বোচ্চ ভালো ক্রিকেট খেলতে পারি তাহলে ইতিবাচক ফল পাওয়া সম্ভব।’ ভারতের বোলিং আক্রমণের মুখোমুখি হওয়া নিয়ে সাইফের ভাষ্য, ‘ওদের দিকে তাকিয়ে লাভ নেই। বলের দিকে তাকিয়ে খেলতে হবে।’

সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচটি হবে দিবারাত্রির। কলকাতায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এ টেস্ট খেলা হবে গোলাপি বলে। নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো গোলাপি বলে টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। ভারতেরও জন্যও দিবারাত্রির টেস্ট প্রথম। ২২ নভেম্বর এ টেস্ট শুরুর আগে অন্তত দু-দিনের একটা প্রস্তুতি ম্যাচ খেললে অনুশীলনটা ভালো হতো বলে মনে করেন সাইফ, ‘হ্যাঁ, খেললে ভালো হতো। যেহেতু হবে না তাই যত দ্রুত সম্ভব ওখানে গিয়ে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করতে হবে।’

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ