Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৬ নভেম্বর ২০১৯, ০১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

শান্তি বিবেচনায় এ রায় মেনে নেয়া দরকার : সালমান নদভী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:২০ পিএম

বাবরি মসজিদ বিষয়ে আজ যে রায় এসেছে তা পঁচিশ বছর অপেক্ষার পর আসলো। দশ বছর পূর্বে একবার রায় হয়েছিলো। কিন্তু সেটা বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু আজ যে রায় হয়েছে, দেশের শান্তি বিবেচনায় সে মামলার রায় মেনে নেয়া দরকার। কথাগুলো বলেছেন, নদওয়াতুল উলামা লৌখনোর সাবেক শিক্ষক, লেখক, গবেষক, সাহিত্যিক মাওলানা সালমান নদভী।

তিনি তার ভেরিফাইড ফেসবুুক একাউন্টে দেয়া এক ভিডিও বার্তায় আরো বলেন, এবার ভারত হাইকোর্ট যে রায় দিয়েছে আমি মনে করি সুন্দর একটি রায় হয়েছে। আমি এমন একটি রায়ের জন্যই চেষ্টা করে আসছি একবছর আগ থেকে। জনাব রবি শঙ্কর সঙ্গে মিলে আমি দেশকে মুসলিম হিন্দু সংঘাত থেকে বাঁচাতে এমন একটি রায়ের চেষ্টা করছিলাম।

এ মামলার জন্য উভয় পক্ষ থেকে মধ্যস্থতা কমিটি করা হয়েছিলো। তাতে আমি ছিলাম। চেষ্টা করেছি এমন একটি ফায়সালার জন্য যেনো ভারতে বাবরি মসজিদ নিয়ে বহু বছর ধরে হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গার অবসান হয়।

আলহামদুলিল্লাহ ঐতিহাসিক এ রায় ওমর রা. এর জমানার একটি মসজিদ স্থানান্তরের ঘটনার সঙ্গে যায়। যেখানে মসজিদ স্থানান্তর করে খেজুর বাজার নির্মাণ করা হয়েছিলো বৃহত্তম স্বার্থ রক্ষার জন্য।

ওমর রা. এর মসজিদ স্থানান্তর থেকে আমাদের শিক্ষা নেয়া দরকার যে, এ রায় হিকমতে ওমরির অনুকূলে হয়েছে। যে রায় আমাদের দেশে মুসলিম-হিন্দু দাঙ্গার নির্মূল হবে।
সুতরাং আমাদের দেশের মুসলিমদের শান্তি আর নিরাপত্তার খাতিরে বাবরি মসজিদ নির্মাণের জন্য সরকার ৫ একর জমি দিয়েছে, আমি মনে করি একটি সুন্দর ফায়সালা হয়েছে। আমরা সেখানে বড় আকারে একটি বিশ্ববিদ্যালয়সহ মসজিদ নির্মাণ করবো ইনশাআল্লাহ।

আমি শুকরিয়া আদায় করছি দেশের সুপ্রিমকোর্টের কর্মকর্তাদের। সরকারকেও ধন্যবাদ জানাই, যে তিনি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেছেন। এখন এ রায়ে হিন্দুদের উচিত নয় যে তারা আনন্দ করবে। আর মুসলিমদেরও উচিত হবে না যে তারা এ বিষয়ে হতাস হবে। বরং রায়ের উপর ভিত্তি করে কাজে নেমে যাওয়া দরকার।



 

Show all comments
  • parvez ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:৪০ পিএম says : 0
    কথাটায় যতটুকু হিকমত আছে, তার চেয়ে বেশী ভিরুতা রয়েছে।
    Total Reply(2) Reply
  • Noor Mohammad ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৩১ পিএম says : 0
    নাউজবিল্লাহ উনি নাকি এমন একটা রায়ের অপেক্ষায় ছিলেন। বিচারক দের ধন্যবাদ ও জানান। এ আস্তাগফিরুল্লাহ। চামচামি আর কাকে বলে। উনাদের চামচাদের কথা বার্তা ... আরো সাহসী হয়েছে। তাহলে তাদের এত কষ্ট করার কি দরকার ছিলো নিজেরাই ভেঙে চুড়ে একটা মন্দির তৈরি করে দিতে পারতেন।
    Total Reply(2) Reply
    • Yourchoice51 ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৫৮ পিএম says : 0
      ভারত সরকারের কাছ থেকে খয়রাত নিয়ে অন্যত্র নির্মিত আরেকটি মসজিদ কোনো দিনই বাবরি মসজিদ হবে না; সেটা হতে পারে মসজিদ-আল-দিরার; মুসলিমদের ওটার প্রয়োজন নেই।
    • Nahid ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:৩১ এএম says : 0
      For this two Nation theory Will applicable till the end of this world
  • Rahim Hozaife ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৪৩ পিএম says : 0
    বাদশাহ আবরাহার কথা মনে আছে? নেই কারন আমরা তাকে মনে রাখনি। আবাবীল পাখির কথা মনে আছে? থাকবেনা কেন---? তার কথাতো কোরআনেই আছে।সূরা ফীল তার প্রমান। বাদশাহ আবরাহা হস্তি বাহিনী নিয়ে যখন মককা শরীফ আক্রমন করল তখন রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর দাদাজান খাজা আবদুল মুত্তালিব মককা শরীফ ছেডে দিয়ে নিরাপদ আশ্রয়েে যান।সে সময় তিনি ছিলেন মক্কাা শরীফ রক্ষনা বেক্ষনের দাইত্তে। কোন প্রতিরোধ না করে চলে যাওয়ার সময় বাদশাহ প্রতিরোধ না করে চলে যাওয়ার জিজ্ঞাসিলেন, জবাবে আবদুল মুত্তালিব বললেন আললাহর ঘর রক্ষার দাইত্ত তা নিজের, তিনিই তার সুরক্ষা করবেন।আর আল্লাহ আবাবীল পাখি দিয়ে কি ভাবে হস্তি বাহিনীকে নির্মুল করেছেন তা আজ ইতিহাস।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Qayum ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৪৭ পিএম says : 0
    এই রায়টা সঠিক হয়নি , মসজিদের জায়গায় মন্দির বানাবে , মুমিন মুসলমান রা এটা মেনে নিতে পারে না ।ভারত সুপ্রিম কোর্টের উচিত ছিল মসজিদের জায়গা যে ভাবে আছে সেই ভাবে রেখে দেওয়া । মসজিদ এবং মন্দিরের জন্য ভিন্ন জায়গা দিলে ভালো হতো । মুসলমানদের ঈমান দূর্বল হওয়াতে এমন হচ্ছে । আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের পবিত্র স্থান গুলো হেফাজত করুন আমীন ।
    Total Reply(0) Reply
  • সুলতান মাহমুদ ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:২১ পিএম says : 0
    আজ দার উল আমান পনথি আলেমরা কোথায়। মুসলিম শাসনের অবসানের পর যখন দারুল ইসলাম প্রতিষ্ঠার জন্য সর্বাত্মক জিহাদের প্রয়োজন ছিল তখন তারা দারুল আমানের দোহাই দিয়ে আপোসকামী হয়। তারই দীর্ঘমেয়াদী ফলস্বরূপ উপমহাদেশের মুসলিমদের আজ এই দুর্দশা। এখন তারা বলুক কিভাবে ভারত দারুল আমান হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • MD ARSHED ULLAH ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:০৬ পিএম says : 0
    THIS ORDER NOT GOOD FOR MUSLIM
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Qayum ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৪৩ পিএম says : 0
    এই রায়টা সঠিক হয়নি , মসজিদের জায়গায় মন্দির বানাবে , মুমিন মুসলমান রা এটা মেনে নিতে পারে না ।ভারত সুপ্রিম কোর্টের উচিত ছিল মসজিদের জায়গা যে ভাবে আছে সেই ভাবে রেখে দেওয়া । মসজিদ এবং মন্দিরের জন্য ভিন্ন জায়গা দিলে ভালো হতো । মুসলমানদের ঈমান দূর্বল হওয়াতে এমন হচ্ছে । আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের পবিত্র স্থান গুলো হেফাজত করুন আমীন ।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Qayum ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৪৩ পিএম says : 0
    এই রায়টা সঠিক হয়নি , মসজিদের জায়গায় মন্দির বানাবে , মুমিন মুসলমান রা এটা মেনে নিতে পারে না ।ভারত সুপ্রিম কোর্টের উচিত ছিল মসজিদের জায়গা যে ভাবে আছে সেই ভাবে রেখে দেওয়া । মসজিদ এবং মন্দিরের জন্য ভিন্ন জায়গা দিলে ভালো হতো । মুসলমানদের ঈমান দূর্বল হওয়াতে এমন হচ্ছে । আল্লাহ তাআলা মুসলমানদের পবিত্র স্থান গুলো হেফাজত করুন আমীন ।
    Total Reply(0) Reply
  • Noor Mohammad ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৯:৩৯ পিএম says : 0
    ৫০০ বছর পূর্বে তৈরি মসজিদ আজকের কথা নয়। এত বছরের মধ্যে ওদের রাম রামায়ণের কোন ভক্ত দাশের জন্ম হয় নাই ভারত উপমহাদেশে? অতি ভক্তের জন্ম হলো ঊনবিংশ শতাব্দীর শেষ প্রান্তে এসে। মোঘল সাম্রাজ্য শেষে, বৃটিশ শাসনামল হিন্দুদের বলতে গেলে স্বর্ন যুগ ছিল। সেই ইংরেজ যুগই ছিল হিন্দু্থ্যান যুগ। সেই ইংরেজ শাসনের ২০০ বছরেও কোন রাম পন্ডিতের আবির্ভাব হয় নাই। হলো এই যুগে। কোনো দলিল, প্রমাণ ছাড়া, একটি শুভ্য দেশের সর্বোচ্চ আদালত অনুমান ভিত্তিক নির্লজ্জ রায় দিতে পারে এটা বিশ্বাস যোগ্য কথা নয়। ওদের গগৈই চাকুরী জীবনে যদি কিছু সু নাম অর্জন করেও থাকে, শেষ ১০ দিনে সব ম্লান করে গেল।তার সঙ্গের ঐ নাম ধারী মুসলমানও।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইদ ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৯:৫১ পিএম says : 0
    আর কত দালালি করবেন? এবার খ্যান্ত দেন।
    Total Reply(0) Reply
  • si shadin khan ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১০:১৯ পিএম says : 0
    যারা কাফের তাদের একটুও ঈমানের ছিটেফোটাও নেই বাবরি মসজিদ না ভেঙ্গে যেখানে 5 একর জমি বরাদ্দ করা হয়েছে সেখানে মন্দির বানালে সব সমস্যার সমাধান হয়ে যায়
    Total Reply(0) Reply
  • jayed hasan ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:১৬ পিএম says : 1
    আলহামদু-লিল্লাহ,নদভি সাহেবের কথায় যুক্তি আছে অবস্যয়।যদি মুসলিম-হিন্দু সংঘাত চিরতরে মুচে যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • fazlerabby ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৩৭ এএম says : 0
    কিছুদিন আগে যেভাবে তাকে নদ‌ওয়াতুল উলামা লাখ্নৌ থেকে বহিষ্কার করা হয়েছিল এখন গোটা মুসলিম উম্মাহ তাকে ইসলাম থেকে বহিষ্কার করতে পারেন।
    Total Reply(0) Reply
  • Md. ZamirHossain ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:৩৫ পিএম says : 0
    এহেন রায়ে বিস্ময়াভিভূত হয়েছি!বর্তমান সভ্য সমাজের পৃথিবীর ইতিহাসে এমন ন্যাক্কারজনক রায় ইতি পূর্বে আর হয়েছে কিনা আমার জানা নাই। কোনরুপ বিচার বিবেচনা ছাড়া, কোন তথ্য প্রমান যুক্তিতর্ক ছাড়াই একদল উন্মাদ অতি পশ্চাদপদ মানুষের সস্তা সেন্টিমেন্টের দাস কি করে হতে পারে একটা দেশের সর্বোচ্চবিচার বিভাগ, তা ভাবতে গেলে বোধ করি একজন পাগলেরও মাথা ঘুরে যাবে!! তাহলে একথা ভাবলে কি অন্যায় হবে যে,যেমন উদ্ভটতম ধর্ম, তেমনই তার অনুসারীদের বিচারবোধ??? তারা সভ্য মানুষ সমাজের কলঙ্ক।ধিক হিন্দু জাতি!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Md. ZamirHossain ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:৪৭ পিএম says : 0
    এহেন রায়ে বিস্ময়াভিভূত হয়েছি!বর্তমান সভ্য সমাজের পৃথিবীর ইতিহাসে এমন ন্যাক্কারজনক রায় ইতি পূর্বে আর হয়েছে কিনা আমার জানা নাই। কোনরুপ বিচার বিবেচনা ছাড়া, কোন তথ্য প্রমান যুক্তিতর্ক ছাড়াই একদল উন্মাদ অতি পশ্চাদপদ মানুষের সস্তা সেন্টিমেন্টের দাস কি করে হতে পারে একটা দেশের সর্বোচ্চবিচার বিভাগ, তা ভাবতে গেলে বোধ করি একজন পাগলেরও মাথা ঘুরে যাবে!! তাহলে একথা ভাবলে কি অন্যায় হবে যে,যেমন উদ্ভটতম ধর্ম, তেমনই তার অনুসারীদের বিচারবোধ??? তারা সভ্য মানুষ সমাজের কলঙ্ক।ধিক হিন্দু জাতি!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Mustafizur Rahman Ansari ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:৫৫ পিএম says : 0
    Abdul Qayum Said Absuletly right talk,
    Total Reply(0) Reply
  • Mustafizur Rahman Ansari ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১১:৫৫ পিএম says : 0
    Abdul Qayum Said Absuletly right talk,
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Akram Hossen ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
    ভারতের পা চাটা দালাল, তাই ভালো আর কি বলবে সে,,,
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Akram Hossen ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ১:২৯ এএম says : 0
    ভারতের পা চাটা দালাল, তাই ভালো আর কি বলবে সে,,,
    Total Reply(0) Reply
  • iskander ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৫৬ এএম says : 0
    আমার তোমনেহয় আপনি হিন্দুধর্মের দালাল আপনি মুসলমানদের উপর আপনার মনগড়া কথা জানিয়ে দিলেন আপনি কেমোন মুসলিম আপনি মোদির দালাল
    Total Reply(0) Reply
  • Zaman ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১৮ এএম says : 0
    পৃথিবীতে যত পাপ আছে তার মধ্যে সবচেয়ে গুরুতর গুনাহ হলো আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরীক করা। একজন মুমিন কিভাবে এটা মেনে নিতে পারে যে, সবচেয়ে উত্তম ঘর মসজিদে নিকৃষ্টতম এই কাজ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ