Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ৩০ কার্তিক ১৪২৬, ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

বুলবুল মধ্যরাতের পরে ভাটির সময় শক্তি ক্ষয়ে উপকুলে আঘাত হানতে পারে

নাছিম উল আলম | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৫৪ পিএম

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মধ্যরাতের পওে ভাটির সময়ই ভারত-বাংলাদেশের সুন্দরবন উপকুলে আঘাত হানতে পারে বলে মনে করছেন দিল্লীর কেন্দ্রীয় আবহওয়া দপ্তর। যদিও কোলকাতার আলীপুর আবহাওয়া অফিস-এর দায়িত্বশীল মহল বুলবুলের সম্ভাব্য গতিপথ সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করে ঝড়টি পশ্চিম বঙ্গের সুন্দরবন উপকুল ঘেষে বাংলাদেশের কলাপড়া সংলগ্ন কুয়াকাটার দুধারের দুটি নদীকে লক্ষ স্থির করছেন। কিন্তু দিল্লী আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা মহাপাত্র বুলবুল স্থানীয় সময় রাত সাড়ে ১২টার পরে ভারতীয় সুন্দরবনে আঘাত হানার কথা জানিয়েছেন।
তবে বুলবুলের ব্যাপ্তি অনেক বেশী বিধায়, ভারতীয় সুন্দরবনে আঘাত হানলেও বাংলাদেশের সাতক্ষীরা-খুলনা-মোংলা হয়ে বাগেরহাট ও পিরোজপুরের মধ্যবর্তি বলেশ্বর নদীর দুপাড়েই তার রেশ কমবেশী পড়তে পারে বলে মনে করছেন আবহাওয়া বিজ্ঞানীগন। ভারতীয় একাধীক অন লাইন সংবাদপত্র কোলকাতা ও দিল্লীর আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তাদের উদ্ধৃতি দিয়ে বুলবুলের গতিপথ নিয়ে দুটি ভিন্ন মতই প্রকাশ করেছে।

তবে বুলবুল যেপথে যেদিকেই অগ্রসর হোক না কেন, তা শণিবার মধ্যরাতের পরেই মূল ভুখন্ডে আঘাত হানবে বলেই মনে করছেন আবহাওয়াবীদগন। আর ঐসময়ে বাংলাদেশ উপক’লের বেশীরভাগ এলাকায় ভাটির টান শুরু হবে। ফলে বুলবুল বাংলাদেশ উপক’লের ভুখন্ডে আঘাত হানার সময় তার শক্তি কিছুটা হলেও হৃাস পাবে বলেই মনে করছেন মহলটি।

এদিকে রাত শণিবার সাড়ে ৭টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বরিশাল, পটুয়াখালী, ভোলা, বরগুনা ও পিরোজপুর উপকুলের ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে তিল ধরার ঠাই ছিলনা। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সমগ্র উপকুল যুড়ে হালকা থেকে মাঝারী বর্ষনের সাথে ১৫-২০ কিলোমিটার বেগে বাতাস বইছিল। গোটা উপকুল যুড়ে ঝড়ের সতর্কতা জারি রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘূর্ণিঝড় বুলবুল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ