Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ২২ রবিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

আত্মবিশ্বাসী দল চান ডমিঙ্গো

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:২০ পিএম | আপডেট : ৯:১৯ পিএম, ৯ নভেম্বর, ২০১৯

ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টিতে নাগপুরে আজ আত্মবিশ্বাসী দল চান বাংলাদেশের দক্ষিণ আফ্রিকান প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। এ ম্যাচে তিনি ফিরে পেতে চান ‘ম্যাচ উইনার’ কার্টার মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানকে। নাগপুরে শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ভারতকে হারাতে পারলে ইতিহাস গড়বে বাংলাদেশ। আর টাইগারদের ইতিহাস গড়ার পথে তরুণ অলরাউন্ডার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের ভূমিকাও থাকবে অনন্য বলে মনে করেন ডমিঙ্গো। আগের দু’ম্যাচের মতই বিপ্লব জ্বলে উঠবেন বলে বিশ্বাস কোচের।

বাংলাদেশ-ভারত শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচের আগের দিন শনিবার বেশ ফুরফুরেই মনে হয়েছে ডমিঙ্গোকে। রাজকোটে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে দলের বড় হারে ভেঙে পড়েননি তিনি। হারের পর মানসিকভাবে ভেঙে পড়বে এমন দলও চান না ডমিঙ্গো। বড় হারের পর একাদশে বড় পরিবর্তন এনে নাড়িয়ে দিতে চান না খেলোয়াড়দের আত্মবিশ্বাস। টাইগারদের অনুশীলনে কাল দেখা গেল স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টোরি মাঠের সেন্টার উইকেটে লম্বা সময় ধরে তাইজুল ইসলামকে নিয়ে কাজ করছেন। ম্যাচের আগের দিনের অনুশীলন দেখে অনেক সময়ই পাওয়া যায় সম্ভাব্য একাদশের ধারণা। ভেট্টোরির কাজের ধরণ দেখে উপস্থিত মিডিয়াকর্মীদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, তাহলে কি একাদশে ফিরছেন বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল? প্রশ্নটা উড়িয়ে দিয়ে রাসেল ডমিঙ্গো জানান, হারের জন্য একাদশে কোনো পরিবর্তন আনতে চান না তিনি।

ডমিঙ্গো বলেন,‘ভারতের সেরা ছয়ে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের প্রাধান্য বেশি। এক ম্যাচ আগেই আমাদের অফ স্পিনাররা কার্যকর ছিল। শেষ ম্যাচে এটা কাজ করেনি বলে এই না যে আমাদের সব কিছু পরিবর্তন করে ফেলতে হবে।’

তিনি যোগ করেন,‘একটি হারে ভেঙে পড়ার প্রতিক্রিয়া দেখাবে, এমন দল আমরা চাই না। অনেক দিন ধরে এটাই হয়ে আসছে। আমরা নির্দিষ্ট একটা গ্রæপের খেলোয়াড়দের সমর্থন দিয়ে যেতে চাই।’

দলের ক্রিকেটারদের নিজের মতো করে খেলার স্বাধীনতা দিয়েছেন বাংলাদেশ কোচ। এক-দুই ম্যাচের ব্যর্থতায় সেটা কেড়ে নিতে চাননা তিনি।

তার কথায়,‘কারো যদি একটা ম্যাচ খারাপ যায় এর অর্থ এই না যে, সে পরের ছয় মাস খেলবে না। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এটা হয়। আমরা মনে করি, প্রথম দুই ম্যাচে যারা খেলেছে তারা যথেষ্ট ভালো। কেউ একজন আমাদের বিপক্ষে খুব ভালো খেলেছে এর জন্য আমরা আমূল ট্যাকটিক্যাল পরিবর্তন আনতে চাই না। আমার দরকার আত্মবিশ্বাসী দল। যা ইতোমধ্যৌ পেয়েছি আমি।’

নাগপুরের ম্যাচে কার্টার মাস্টার খ্যাত মুস্তাফিজুর রহমান’কে 'ম্যাচ উইনার' হিসেবে ফিরে পাওয়ার অপেক্ষায় আছেন ডমিঙ্গো। দলকে ব্রেক থ্রু এনে দিতে পারছেন না ফিজ। রান আটকানোর ক্ষেত্রেও তার ভূমিকা উল্লেখ করার মতো নয়। বলা চলে ভারত সফরে বাংলাদেশের মূল পেসার মুস্তাফিজুর রহমানের পারফরম্যান্স এখন পর্যন্ত অনুজ্জ্বল। তবে তাকে নিয়ে ভিষন আশাবাদি কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। তার ধারণা ফিজ দ্রæত ছন্দে ফিরে দলকে ম্যাচজয়ী পারফরম্যান্স উপহার দেবে।

ভারতের বিপক্ষে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে ২ ওভারে ১৫ রান দিয়ে উইকেট পাননি মুস্তাফিজ। গত বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় ম্যাচে ৩.৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে ফিরেছেন খালি হাতেই। চলতি বছর এখন পর্যন্ত খেলা ছয়টি টি-টোয়েন্টিতে ৪৩.৭৫ গড় ও ৩১.০ স্ট্রাইক রেটে পেয়েছেন মাত্র ৪ উইকেট। তবে মুস্তাফিজের এই পারফরমেন্স খুব একটা ভাবাচ্ছে না ডমিঙ্গোকে। তাই তো শনিবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি আশা প্রকাশ করেন, ভালো পারফরম্যান্সের খুব কাছাকাছি আছেন মুস্তাফিজ।

ডমিঙ্গো বলেন,‘সে (মুস্তাফিজ) মানসম্পন্ন একজন বোলার। শুধু তাই নয়, সে ম্যাচ উইনার ও আমাদের সবচেয়ে অভিজ্ঞ বোলারদের একজন। আমরা জানি, একটা বড় পারফরম্যান্সের খুব কাছাকাছি আছে সে। এই সংস্করণে বোলারদের উপর চাপ বেশি থাকে। বিশেষ করে দারুণ ব্যাটিংয়ে স্বয়ংসম্পন্ন দলের বিপক্ষে ভালো উইকেটে যদি আপনাকে ভেজা বলে বল করতে হয়।’

রাজকোটে দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের ১৫৩ রান ২৬ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখেই টপকে গিয়েছিল ভারত। ৪৩ বলে ৮৫ রান করে দলের জয়ের পথ সহজ করেন অধিনায়ক রোহিত শর্মা। তবে সেই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের বোলারদের বেশি রান খরচার পেছনে শিশিরের বড় ভূমিকা দেখছেন টাইগার কোচ। তার কথায়,‘প্রথম ম্যাচে আমরা ভালো বোলিং করেছিলাম। দ্বিতীয় ম্যাচে, দারুণ উইকেটে অসাধারণ একজন ব্যাটসম্যানের বিপক্ষে আমাদেরকে ভেজা বলে বোলিং করতে হয়েছিল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এমনটা ঘটে। তাই, পেস বোলিং নিয়ে তেমন কোনো দুশ্চিন্তা নেই আমার।’

এদিকে নিজ দলের অলরাউন্ডার আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের পারফরম্যান্সে দারুণ খুশি রাসেল ডমিঙ্গো। বিপ্লব মূলত ব্যাটসম্যান হলেও ভারত সফরে লেগ স্পিন করে আলো ছড়াচ্ছেন। একেকটি ম্যাচ যাচ্ছে আর বল হাতে আরও বেশি মুগ্ধতা ছড়িয়ে যাচ্ছেন তিনি। তাতে তার আসল সত্তাই যেন চাপা পড়ে যাচ্ছে। সেটিই মনে করিয়ে দিলেন বাংলাদেশ কোচ। জাতীয় দলের কোচ মুগ্ধ তরুণ এই ক্রিকেটারের প্রাণশক্তি দেখে।

গত সেপ্টেম্বরে ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজে অভিষেক ম্যাচে ২ উইকেট নিয়েছিলেন বিপ্লব। এরপর ভারত সফরের দুই টি-টোয়েন্টিতেও নিয়েছেন ২টি করে উইকেট। প্রচেষ্টা আর সাহসিকতা দিয়ে লেগ স্পিনে তার নিয়ন্ত্রণ সবার নজর কেড়েছে।

বিপ্লব প্রসঙ্গে ডমিঙ্গো বলেন,‘আমি সবসময়ই লেগ স্পিনারদের পছন্দ করি এবং আমি জানি, বিপ্লব মূলত ব্যাটসম্যান, যে লেগ স্পিন করতে পারে। তবে আমি ওর প্রাণশক্তি, ইচ্ছাশক্তি ও ওয়ার্ক এথিকে মুগ্ধ। ওর মতো একজনকে দলে পাওয়া দারুণ।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ক্রিকেট

৩ নভেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ