Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

প্রধানমন্ত্রী প্রতি ঘণ্টায় ফোন করে বুলবুলের খবর নিয়েছেন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:১৫ পিএম

ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষয়ক্ষতি রোধ ও ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে নিয়ে আসার সফলতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কৃতিত্ব রয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী ঘণ্টায় ঘণ্টায় আমাদের কন্ট্রোল রুমে ফোন করেছেন, আমাদের প্রস্ততি সম্পর্কে জেনেছেন। এছাড়া মাঠপর্যায়ে কতটুকু অগ্রগতি হয়েছে, সেটারও খবর নিয়েছেন। ঘূর্ণিঝড়ের সময় সার্বক্ষণিক যোগাযোগ করে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দেওয়ায় সবাই উৎসাহিত হয়েছেন।
রোববার সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী।
এনামুর রহমান বলেন, সরকারি তথ্যে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের তান্ডবে দু’জন নিহত ও আহত হয়েছেন ৩০ জন। এসময় চার থেকে পাঁচ হাজার কাঁচা ঘরবাড়ি আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে। আর ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি ৫ হাজার ৫৮৭টি আশ্রয়কেন্দ্রে ২১ লাখ ৬ হাজার ৯১৮ জনকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।ন্দ্র
আশ্রয়কেে মানুষ আসতে না চাইলেও এবার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সফলতার পেছনের কাহিনী তুলে ধরে দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রেখেছেন। তিনি ঘণ্টায় ঘণ্টায় আমাদের কন্ট্রোল রুমে ফোন করেছেন, আমাদের প্রস্ততি সম্পর্কে জেনেছেন। এছাড়া মাঠপর্যায়ে কতটুকু অগ্রগতি হয়েছে, সেটারও খবর নিয়েছেন।
তিনি বলেন, সুদীর্ঘ রাজনীতি ও সরকার পরিচালনা থেকে প্রধানমন্ত্রী যে অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন, সে অভিজ্ঞতা থেকে আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা তার নির্দেশনা পেয়ে উদ্বুদ্ধ হয়েছি, উৎসাহ পেয়েছি, শক্তি পেয়ে আমরা মানুষের নিরাপত্তার জন্য কাজ করেছি। আল্লাহর রহমত ও আপনাদের সহযোগিতায় এই ঘূর্ণিঝড়কে আমরা সফলভাবে মোকাবিলা করেছি।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল পশ্চিমবঙ্গে আঘাত করার পর সুন্দরবনে আঘাত করেছে। সুন্দরবন আমাদের প্রটেকশন, সেটা ঝড়টাকে আরও দুর্বল করার পর এটি উপকূলের জেলাগুলোতে গেছে। ঝড় ১৪০ থেকে ১৫০ কিলোমিটার প্রকৃত গতিবেগ নিয়ে সরাসরি বাংলাদেশ আঘাত হানলে ভয়াবহতা আরও বেশি হতো। বিপদসংকেত যা দেওয়া হয়েছিল, তা সঠিক ছিল।
তিনি বলেন, সুন্দরবন সবুজ বেষ্টনী হিসেবে কাজ করে। এর ওপর অনেক অত্যাচার হয়। সেখানে আরও গাছ লাগিয়ে সক্ষমতা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে।
ঘূর্ণিঝড়ের সবশেষ অবস্থা সম্পর্কে এনামুর রহমান বলেন, বুলবুল পশ্চিমবঙ্গে আঘাত করে দুর্বল হয়ে বাংলাদেশে সুন্দরবন দিয়ে প্রবেশ করে সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাটে রয়েছে।



 

Show all comments
  • Nadim ahmed ১০ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৩৪ পিএম says : 0
    PM passed a sleepless night because she thought that this is her duty regardless that people voted her party on 30-12-18 or not. Awami league, Jubaleague, Chatro league, krishokleague, all leagues should learn lesson from PM.
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmmed Safiq As ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম says : 0
    আল্লাহ তায়ালা প্রাকৃতিক বিপর্যয় দিয়ে মুমিনের পরিক্ষা নিয়ে থাকেন।আল্লাহ আমাদের সবাইকে হেদায়েত দান করুন।আমাদের অন্তর থেকে সকল প্রকার দাম্ভিকতা দূর করে দিন।আল্লাহ সকল ক্ষমতার অধিকারী।একমাত্র তিনিই আমাদের পালনকর্তা।
    Total Reply(0) Reply
  • Delower Hossain Rana ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৫ এএম says : 0
    আল্লাহ্ তাআলার অশেষ রহমত এ আমরা প্রবল ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছি। কোই আল্লাহ্ র কাছে শুকরিয়া আদায় করবে, তা না করে সরকারের গুনোগান করছে।
    Total Reply(0) Reply
  • মশিউর ইসলাম ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৫ এএম says : 0
    েএমন দায়িত্বশীলতার কারণে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। আল্লাহ আপনার মঙ্গল করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম চঞ্চল ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৭ এএম says : 0
    এজন্য কৃতজ্ঞতা রইলো প্রধানমন্ত্রীর জন্য।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘূর্ণিঝড় বুলবুল


আরও
আরও পড়ুন