Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ফিটবিট কিনছে গুগল, চাপে পড়তে পারে অ্যাপল, স্যামসাং

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:৪৪ পিএম

বহুদিন ধরেই কানাঘুষো চলছিল। অবশেষে গুগল জানাল ফিটনেস ট্র্যাকিং সংস্থা ফিটবিট কিনে নিচ্ছে তারা। ১২ বছরের পুরনো এই সংস্থার শেয়ার এখন নিম্নমুখী। লাভের অঙ্কও তুলনামূলকভাবে অনেক কম। কাজেই সংস্থার হাল ধরতে এবং ডিজিটাল স্বাস্থ্যে নতুন পথ দেখাতে ফিটবিট কিনে নেওয়ারই সিদ্ধান্ত নিয়েছে টেক জায়ান্ট গুগল।

গুগলের ডিভাইস অ্যান্ড সার্ভিসেসের ভাইস প্রেসিডেন্ট রিক অস্টারলো জানিয়েছেন, এই ওয়্যারেবল ডিভাইসের ডিজাইন ও প্রযুক্তিতে আরও নতুনত্ব আনার জন্যই এই সিদ্ধান্ত। দুই সংস্থার মধ্যে চুক্তি হয়েছে ২১০ কোটি ডলারের। ফিটবিটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জেমস পার্ক বলেছেন, বিশ্বজুড়ে আড়াই কোটিরও বেশি মানুষ ফিটবিটের পণ্যে ভরসা রাখেন। ব্র্যান্ড হিসেবে অ্যাপল, স্যামসাং, শাওমির পরেই ফিটবিট। তবে প্রতিযোগিতার বাজারে ক্রমশই পিছিয়ে পড়ছিল ফিটবিট। জেমসের কথায়, ফিটবিটকে লাভের মুখ দেখাতে একমাত্র ভরসা গুগল।

চলতি বছরের শুরুতে ঘড়ি নির্মাতা কোম্পানি ফসিলের স্মার্টওয়াচ প্রযুক্তি ৪ কোটি ডলারে কিনে নেয় গুগল। হার্ডওয়্যারের দুনিয়ায় একটু একটু করে নিজেদের ভিত মজবুত করছে গুগল। সূত্রের খবর, অ্যাপল ওয়াচ এবং স্যামসাং গ্যালাক্সি ওয়াচের কাছে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছিল ফিটবিট। গুগল জানিয়েছে, ২০২৩ সালের মধ্যে ফিটবিটের লাভের অঙ্ক অনেকটাই বাড়বে। পাল্লা দিয়ে বাড়বে এর গ্রাহক সংখ্যা।

ফিটনেস বা হেলথ ট্র্যাকার মূলত তিন ধরনের। কবজিতে পরার ব্যান্ডের মতো ফিটবিট ফ্লেক্স বা নাইকি ফুয়েলব্যান্ড তো আছেই, সঙ্গে আছে হাতঘড়ির মতো অ্যাপল ওয়াচ বা গ্যালাক্সি গিয়ার আর বুকে লাগিয়ে রাখার হার্টরেট মনিটর। ফিটবিট এমন একটি ফিটনেস ট্র্যাকার যার দ্বারা সারাদিন কতটা হাঁটলেন, কতটা দৌড়লেন, কতটা সিঁড়ি চড়লেন, সারাদিনে হার্টরেট বা ব্লাডপ্রেশার কখন কেমন থাকল, কতটা ক্যালোরি শরীরে ঢুকল সব জেনে নেওয়া যাবে। গুগলের ডিভাইস অ্যান্ড সার্ভিস বিভাগের প্রেসিডেন্ট রিক অস্টারলো জানিয়েছেন, হার্ডওয়্যার, সফটওয়্যার ও আর্টিফিসিয়াল ইনটেলিজেন্সকে একসঙ্গে করে নতুন ধরণের টেকনিক্যাল ডিভাইস তৈরি করবে গুগল।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গুগল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ