Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১ পৌষ ১৪২৬, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

হংকং পরিস্থিতিতে যুক্তরাষ্ট্র গভীর উদ্বিগ্ন, অধিকাংশ স্কুল বন্ধ ঘোষণা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:০৪ পিএম

হংকংয়ে ক্রমবর্ধমান সহিংসতায় ‘গভীর উদ্বেগ’ জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে নিরাপত্তা বাহিনী ও বিক্ষোভকারী উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র মর্গান ওর্তেগাস এক বিবৃতিতে নিজ দেশের এমন উদ্বেগের কথা জানান। তিনি বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র গভীর উদ্বেগের সঙ্গে হংকং পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে।’ এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে তুরস্কভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আনাদোলু এজেন্সি।
বিবৃতিতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র সব পক্ষের সহিংসতার নিন্দা জানাচ্ছে। নিহতদের পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছে। পুলিশ ও বিক্ষোভকারী সব পক্ষকেই আমরা শান্ত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।
সোমবার হংকংয়ে পুলিশ কর্তৃক দুই বিক্ষোভকারীকে গুলিবর্ষণের পর যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে এ বিবৃতি এলো। বিবৃতিতে হংকং-এর কর্তৃপক্ষকে অঞ্চলটির বাসিন্দা ও বিক্ষোভকারীদের উদ্বেগ প্রশমনে তাদের সঙ্গে সংলাপের আহ্বান জানানো হয়। একইসঙ্গে কর্তৃপক্ষের তরফে এমন উদ্যোগ এলে তাতে সাড়া দিতে আন্দোলনকারীদের প্রতিও আহ্বান জানানো হয়েছে।
এদিকে হংকংয়ে ব্যাপক সহিংসতার পর অধিকাংশ স্কুল বন্ধ ঘোষণা
সরকারবিরোধী বিক্ষোভ আরও সহিংস রূপ নেওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে হংকংয়ের অধিকাংশ স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়। মঙ্গলবার (১২ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এ তথ্য জানায়।
খবরে বলা হয়, মঙ্গলবার নিরাপত্তা সংকটে বন্ধ রয়েছে হংকংয়ের অধিকাংশ স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয়। এদিন বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ঢুকে তাদের লক্ষ্য করে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে দাঙ্গা পুলিশ।
এছাড়া, অতিরিক্ত তল্লাশির কারণে রেলস্টেশনগুলোতে যাত্রীদের লম্বা লাইন তৈরি হয়েছে। ফলে, রেল যোগাযোগ বিলম্বিত হচ্ছে বা সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে।
চীনের আধা-স্বায়ত্তশাসিত এ অঞ্চলটিতে অধিকাংশ মানুষ প্রতিদিনের যাতায়াতের জন্য গণপরিবহন ব্যবহার করেন। কিন্তু, বিক্ষোভকারীরা সড়ক অবরোধ করে রাখায় মঙ্গলবার সকাল থেকেই ব্যাপক যানজট সৃষ্টি হয়েছে।
সোমবার (১১ নভেম্বর) একজন বিক্ষোভকারীকে গুলি করে পুলিশ। অন্যদিকে, এক ব্যক্তির গায়ে আগুন ধরিয়ে দেয় সরকারবিরোধী বিক্ষোভকারীরা। দু’জনকেই গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। এতে বিক্ষোভ ভয়াবহ সহিংস রূপ নেয়।
সোমবার হংকংয়ের কয়েক ডজন স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক স্কুল শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের ক্ষুদেবার্তা পাঠিয়ে জানায়, চলমান বিক্ষোভের কারণে নিরাপত্তা-ঝুঁকি থাকায় মঙ্গলবার স্কুল বন্ধ থাকবে।
শহরের ইংলিশ স্কুল ফাউন্ডেশন (ইএসএফ) জানায়, শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের নিরাপত্তা ঝুঁকির কারণে মঙ্গলবার ইএসএফের সব ক্লাস বন্ধ থাকবে। শিক্ষার্থীদের স্কুলে আসতে নিষেধ করা হচ্ছে।
সহিংসতার কারণে গত কয়েকদিন ধরেই বেশ কয়েকটি স্কুল ও বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ছিল। তবে, মঙ্গলবার সকালে হংকংয়ের প্রধান নির্বাহী ক্যারি ল্যাম বলেন, সহিংসতা সত্ত্বেও সব স্কুল বন্ধ রাখা হবে না।
পুলিশ জানায়, সোমবার ২৬০ জনকে আটক করা হয়েছে। বিক্ষোভের কারণে গত জুন থেকে এখন পর্যন্ত তিন হাজার বিক্ষোভকারীকে আটক করেছে পুলিশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন