Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

নো ম্যানস ল্যান্ডে আটকা পড়া আইএস সদস্য আমাদের সমস্যা না: এরদোয়ান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০১৯, ৩:৪৭ পিএম

জঙ্গি গোষ্ঠী আইএসের হয়ে লড়াই করা সন্দেহভাজন এক মার্কিন নাগরিক তুরস্ক ও গ্রিস সীমান্তের নো ম্যানস ল্যান্ডে আটকা পড়েছে। তবে একে নিজেদের সমস্যা হিসেবে দেখবেন না বলে মঙ্গলবার জানিয়ে দিয়েছেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান। উল্লেখ্য নিজেদের হাতে আটক আইএস সদস্যদের বিচারের পরিবর্তে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর কথা বলে আসছে আঙ্কারা।

সোমবার তুর্কি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, তুরস্কের হাতে আটক যুক্তরাষ্ট্রের এক নাগরিককে গ্রিসের দিকে ঠেলে দেওয়া হয়। কিন্তু তাকে গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায় গ্রিক কর্তৃপক্ষ। ফলে তুরস্কের এদিরন প্রদেশের গ্রিক সীমান্তের নো ম্যানস ল্যান্ডে আটকা পড়েছে আইএসের হয়ে লড়াই করা ওই ব্যক্তি।

এই খবরের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে মঙ্গলবার তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান বলেন, ‘সীমান্তে আটকা পড়ুক আর যেখানেই থাকুক এটা আমাদের বিষয় না। আমরা তাদের ফেরত পাঠানো অব্যাহত রাখবো। তাতে কেউ তাদের নিক আর না নিক, এটা আমাদের সমস্যা না’। তুরস্কের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেছেন, আটকা পড়া ওই ব্যক্তি যুক্তরাষ্ট্রের বদলে গ্রিসেই যেতে চান।

সম্প্রতি তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সুলেমান সোইলু জানিয়েছেন, আঙ্কারার হাতে আটক বিদেশি আইএস যোদ্ধাদের নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে। তিনি বলেন, তাদের নাগরিকত্ব প্রত্যাহার করে নিলেও ফেরত পাঠানো হবে। তিনি অভিযোগ করেন, পশ্চিমা দেশগুলো এখন বলছে যেসব দেশে আইএস যোদ্ধারা আটক হয়েছে সেখানেই তাদের বিচার করতে হবে। তবে এমন প্রস্তাব তুরস্ক মানবে না বলে জানিয়ে দেন তিনি।

প্রসঙ্গত, আইএসের হয়ে লড়াই করা বিভিন্ন দেশের প্রায় ১২০০ নাগরিক বর্তমানে তুরস্কের কাছে আটক রয়েছে। এছাড়া উত্তরপূর্ব সিরিয়ায় সাম্প্রতিক অভিযানে আটক হয়েছে আরও ২৮৭ আইএস সদস্য। সিরিয়ায় গিয়ে আইএসে যোগ দেওয়া নিজেদের নাগরিকদের ফেরত নিতে প্রায়ই অস্বীকৃতি জানায় ইউরোপীয় দেশগুলো। এছাড়া অনেকের নাগরিকত্বও বাতিল করেছে এসব দেশ। তবে তুরস্ক বারবারই তাদের নিজেদের নাগরিকদের ফেরত নেওয়ার আহ্বান জানিয়ে আসছে।



 

Show all comments
  • Amirul Muminin Alamgir ১৪ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:০৭ এএম says : 0
    প্রত্যেক দেশ তার নীজ নাগরিকদের বিচার করবে। এখানে তুরস্ক কেন অন্য দেশের নাগরিকের বিচার কর?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তুরস্ক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ