Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১ পৌষ ১৪২৬, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইসরাইলকে আগ্রাসন ও দখলদারিত্বের মনোভাব ছাড়তে হবে : তুরস্ক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

 অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি হানাদার বাহিনীর হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে তুরস্ক। ফিলিস্তিনে দখলদার ইসরাইলের আগ্রাসন বন্ধের আহ্বান জানিয়ে বুধবার একটি বিবৃতি দিয়েছে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

আংকারা জানায়, গত মঙ্গলবার থেকে গাজায় হামলা চালিয়ে নিরাপদ ফিলিস্তিনি ভাই-বোনদের ওপর ব্যাপক হত্যাকা- চালাচ্ছে ইসরাইল। ইসরাইলকে আগ্রাসী ও দখলদারিত্বের মনোভাব ত্যাগেরও আহ্বান জানিয়েছে তুরস্ক। ফিলিস্তিনে গত ৫২ বছর ধরে দখলদারিত্ব চালাচ্ছে ইসরাইল। যা আধুনিক ইতিহাসের সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের আগ্রাসন। মধ্যপ্রাচ্যের এ সংকট নিয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের চোখ বন্ধ করে থাকা উচিত না বলেও বিবৃতিতে বলা হয়েছে। তুরস্ক জানায়, ইসরাইলি আগ্রাসন ও দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে বিশ্বকে দ্রুত পদক্ষেপ নিতে হবে।
এদিকে অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় দুই পক্ষই একটি অস্ত্রবিরতিতে রাজি হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫টা থেকে এ চুক্তি কার্যকর হয়েছে। জ্যেষ্ঠ মিসরীয় কর্মকর্তা ও ইসলামিক জিহাদের কর্মকর্তাদের বরাতে বার্তা সংস্থা এএফপি এমন খবর দিয়েছে।

মিসরীয় ওই কর্মকর্তা বলেন, মিসরীয় চেষ্টায় এই অস্ত্রবিরতি এসেছে। ইসলামিক জিহাদসহ ফিলিস্তিনি পক্ষগুলোও এতে সম্মতি দিয়েছে। এএফপিকে ইসলামিক জিহাদ সূত্রও এ খবর নিশ্চিত করেছে। ইসরাইলি হানাদার বাহিনীর বিমান হামলায় গত তিন দিনে ৩২ জন নিহত হয়েছেন। ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ বলছেন, বৃহস্পতিবার নিহতদের মধ্যে একই পরিবারের পাঁচ সদস্য রয়েছেন।

মঙ্গলবার সকালে ইসরাইলি গুপ্তহত্যায় প্রতিরোধ আন্দোলন ইসলামিক জিহাদের এক কমান্ডার নিহত হয়েছেন। এরপরেই দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে।

ফিলিস্তিনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, আবু মালহুসের পরিবারের ছয় সদস্য নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে তিন শিশু ও দুই নারী রয়েছেন। উত্তর গাজার দির আল-বালাহে তাদের বাড়িতে বিমান হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করেছে ইসরাইলি বাহিনী। অস্ত্রবিরতি ঘোষণার পর মর্গের বাইরে এবং জানাজায় হতাহত ও ক্ষয়ক্ষতির জন্য ফিলিস্তিনিরা শোক প্রকাশ করেন। হামলার ঘটনার পর কায়রোতে বুধবার বিকালে মার্কিন দূত নিকোলয় মøাডেনভ সফরে যান। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ বলেন, লড়াই বন্ধ করতে তিনি আলোচনায় বসেছিলেন। সূত্র : আনাদুলু অনলাইন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তুরস্ক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ