Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সিন্ডিকেটে বেড়েছে চালের দাম

স্বাভাবিক ধানের বাজার

এস এম আলী আহসান পান্না, কুষ্টিয়া থেকে | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

কুষ্টিয়ায় ধানের বাজার স্বাভাবিক থাকলেও অস্থির চালের বাজার। হঠাৎ করেই বেড়েছে চিকন চালসহ সব ধরণের চালের দাম। প্রায় সব রকম চিকন চালের দাম কেজিতে বেড়েছে ৫-৭ টাকা। চালের দাম দীর্ঘসময় স্থিতিশীল থাকলেও চালের বাজার হঠাৎ করে বেড়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছেন ক্রেতারা। বিক্রেতাদের দাবি মোকাম থেকে বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে বলে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে চাল। আবার চালকল মালিকরা বলছেন বাজারে চিকন ধানের সঙ্কট থাকায় বেশি দামে ধান কিনতে হচ্ছে। ভিন্ন কথা বলছেন ধান ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা। তারা জানান, ধানের বাজার বাড়েনি।

বিভিন্ন চালের বাজার ঘুরে, জানা গেছে, দেশের বিভাগীয় ও জেলা শহরগুলোতে চালের যে চাহিদা তার সিংহভাগ যায় কুষ্টিয়ার খাজানগর মোকাম থেকে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পর্যন্ত এ মোকামে চালের দাম স্বাভাবিক পর্যায়ে ছিল। নির্বাচন পরবর্তী সময় থেকে চালের দাম বাড়া শুরু করে। আর এক সপ্তাহে চালের দাম বৃদ্ধি আগের তুলনায় বস্তা প্রতি ৩০০-৫০০ টাকা পর্যন্ত বেড়ে গেছে।

প্রায় সাত মাস চালের বাজার প্রায় স্থিতিশীল ছিলো। কৃষকের উৎপাদিত ধানের দাম কম থাকায় চালের বাজার স্থিতিশীল ছিলো। কিন্তু গত এক সপ্তাহে কুষ্টিয়ার বাজারে হঠাৎ করে বেড়ে গেছে সব রকম চিকন চালের দাম। মিনিকেট চালের দাম আগে যেখানে ৩৮ টাকা সেই চালে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪৪ থেকে ৪৫ টাকা, একই হারে বেড়েছে কাজললতাও। ৩২ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৮ টাকা। তবে ২৮ চালের দাম তেমন একটা না বাড়লেও কেজিতে ২-৩ টাকা বেড়েছে। ৩০ টাকা থেকে বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৩ টাকা কেজিতে। চালের বাজার হঠাৎ বেড়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছেন ক্রেতারা। তাদের দাবি ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে হঠাৎ করে চালের দাম বাড়িয়েছে।

চৌড়হাসের ছানোয়ার ইসলাম নামে এক চাল ক্রেতা জানান, এক সপ্তাহ আগে মিনিকেট চালের দাম যা ছিল তা থেকে প্রতি কেজিতে (শুক্রবার) ৭টাকা বেশি নিচ্ছে বিক্রেতা। একই অভিযোগ করেছেন দৌলতপুরের নিজাম উদ্দিন নামে অপর এক চাল ক্রেতার। তবে চাল ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা বলছেন গত এক সপ্তাহ ধরে বাজারে চিকন চালের দাম বেড়েছে কেজিতে ৫-৭ টাকা। তাদের দাবি মোকাম থেকে বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে। ফারুক হোসেন নামে এক চাল ব্যবসায়ী জানান, চালের মোকাম থেকে বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে তাই খুচরা বাজারে ধরন অনুযায়ী চালের দাম কেজি প্রতি ৫-৭ টাকা বেড়েছে।
একই অভিযোগ করেছেন, নাজমুল ইসলাম নামে এক খুচরা চাল ব্যবসায়ী। তিনি জানান পাইকার বাজার থেকে বেশি দামে চাল কিনতে হচ্ছে। তাই খুচরা বাজারেও চালের দাম বেড়েছে ৭ টাকা পর্যন্ত।
এদিকে কুষ্টিয়া মিউনিসিপ্যাল মার্কেটের চাল ব্যবসায়ীরা জানান, মিলারদের কারসাজিতে চালের দাম বাড়ছে। তারা সিন্ডিকেট করে চালের দাম বাড়াচ্ছে। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর চালের মোকাম খাজানগরের ব্যবসায়ীরা বলছেন দীর্ঘসময় ধানের দাম স্থিতিশীল থাকায় চালের দাম বাড়েনি। কিন্তু বর্তমানে ধানের বাজার বেড়ে যাওয়ায় চালের দাম বেড়েছে।

বাংলাদেশ অটোরাইস মিল ওনার্স এসোসিয়েশন কুষ্টিয়া শাখার সভাপতি ওমর ফারুক বলেন, মোকামে ধানের দাম বেড়েছে। তাই চালের দামও বেড়েছে। তবে পোড়াদহ আইলচারা হাটের ধান ব্যবসায়ী ও বিক্রেতারা জানান, ধানের বাজার বাড়েনি। কিন্তু চালের দাম বেড়ে যাচ্ছে।



 

Show all comments
  • Tareq Sabur ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:২৬ এএম says : 0
    Let us stop eating rice.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন