Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

জগন্নাথ হবে বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে সর্বাধুনিক বিশ্ববিদ্যালয়- বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৯, ৬:০৩ পিএম

বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু বলেছেন, জগন্নাথ হবে বাংলাদেশের মধ্যে সবচেয়ে সর্বাধুনিক বিশ্ব বিদ্যালয়। এই জন্য প্রায় ২শ’ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ক্যাম্পাসে থাকবে ছাত্র-ছাত্রীদের বিভিন্ন আবাসিক হল,শিক্ষকদের জন্য আবাসিক ভবন, খেলার মাঠ, প্রশাসনিক ভবন,গবেষণা কেন্দ্র, লেক ,ট্রাম ও বিভিন্ন গাছপালায় ভরা থাকবে । ট্রাম দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীরা যেন এক হল থেকে অন্য হলে সহজে যাতায়াত করতে পারে সে ব্যবস্থাও করা হয়েছে। এই বিশ্ববিদ্যালয়ে আসার জন্য ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক থেকে প্রায় ৮০ফুট চওড়া একটি রাস্তা নির্মাণ করা হবে। ১০হাজার কোটি টাকা ব্যায়ে এই প্রকল্পের জন্য সরকার প্রাথমিক পর্যায়ে ২হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়েছেন। এরমধ্যে ১হাজার কোটি টাকা প্রথমে মাটি ভরাটের কাজে ব্যায় করা হবে এবং বাকি ১হাজার কোটি টাকা অন্যান্য স্টাকচার নির্মাণের কাজে ব্যায় করা হবে।

তিনি আজ শনিবার (১৬নভেম্বর) দুপুর দেড়টায় কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের মুজাহিদ নগর এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের মাঝে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য জমি অধিগ্রহণের চেক বিতরনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। তিনি কেরানীগঞ্জবাসীর উদ্দেশ্যে আরো বলেন,এক সময় কেরানীগঞ্জ ছিল বাতির নিচে অন্ধকার।এখানে কোন উন্নয়ন হয়নি। স্বাধীনতার পর আমার বাবার হাতে ধরেই হাসনাবাদ এলাকায় প্রথম বিদ্যুতের পাওয়ার স্টেশন বসে। এসব এলাকার মানুষ শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত ছিল। তাই আমি এলাকায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় আনার জন্য সিদ্ধান্ত নেই। আপনারা অনেক ভাগ্যবান। আগামী ৫ বছর পরে বুঝবেন এই এলাকার কতমূল্য। আপনাদের সন্তানেরা একদিনেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করবে এবং অনেকে শিক্ষকতাও করবে। এখানে এক সময় হাজার হাজার ছাত্র-ছাত্রী,শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের মিলন মেলায় মুখরিত হয়ে উঠবে।

প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন,ঝিলমিল আবাসিক প্রকল্পের ভিতর আমরা ৫শ’ বেডের একটি হাসপাতাল,২৫একর জমির উপর বিদ্যুতের পাওয়ার ষ্টেশন,আইটি পার্ক নির্মাণ করা হবে।এছাড়া কেরানীগঞ্জে সাড়ে ৩ হাজার একর জমির উপর শেখ হাসিনা স্মার্ট সিটি নির্মাণ করা হবে। কেরানীগঞ্জে পরিবেশ বান্ধব শিল্প প্রতিষ্ঠান ছাড়া কোথাও কোন শিল্প কারখানা গড়ে তুলতে দেয়া হবে না।

ঢাকা জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও জগন্নাথ বিশ্ব বিদ্যালয়ের সহযোগিতায় আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মীজানুর রহমান, কেরানীগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন আহমেদ প্রমুখ। ঢাকা জেলা প্রশাসক আবু ছালেহ মোহাম্মদ ফেরদৌস খানের সভাপিতত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত ঢাকা জেলা প্রশাসক তানভীর আহমেদ,কেরানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা অমিথ দেব নাত, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিন ও শিক্ষক বৃন্দ,জিনজিরা ইউপি চেয়ারম্যান সাকুর হোসেন সাকু,তেঘরিয়া ইউপি চেয়ারম্যান হাজী মোঃ লাট মিয়া প্রমুখ।

জগন্নাথ বিশ্ব বিদ্যালয়ের জন্য কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুর ও মুজাহিদনগর এলাকায় ৮৯৯ কোটি ৮০লক্ষ ৪৯হাজার ৮৩২টাকায় ১৮৮একর ৬০শতাং জমি অধিগ্রহণ করা হয়। সাড়ে ৫শ’ জমির মালিকদের মধ্যে আজকে ৪০জন জমির মালিকদের মাঝে ৫৯ কোটি ৯৭লক্ষ ২৭হাজার ৯৭৫টাকার চেক বিতরণ করা হয়। বাকী জমির মালিকদের আগামী এক মাসের মধ্যে অধিগ্রহণের চেক বিতরণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়


আরও
আরও পড়ুন