Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

বলিভিয়ায় পুলিশের গুলিতে নিহত ৫

সঙ্কট কাটছে না

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

বলিভিয়ার নির্বাসিত সাবেক প্রেসিডেন্ট ইভো মোরালেসের পক্ষে বিক্ষোভ করার সময় তার সমর্থকদের উপর গুলি চালায় পুলিশ। এতে বিক্ষোভে অংশ নেয়া পাঁচজন নিহত ও অনেকেই গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আহতদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। এদিকে, মোরালেসের পদত্যাগ ও দেশত্যাগের পর চলমান বিশৃঙ্খলার জন্য প্রতিবেশী দেশ ভেনেজুয়েলা ও কিউবাকে দায়ী করেছে দেশটির বর্তমান অন্তবর্তীকালীন সরকার। ইতিামধ্যেই ভেনেজুয়েলার কর্মকর্তাদের দেশ ত্যাগের নির্দেশ দিয়েছে সরকার।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার সকালে সাকাবায় কয়েক হাজার আদিবাসী বিক্ষোভকারী জড়ো হন। কিন্তু কোচাবামবা শহরের সামরিক তল্লাশি চৌকি তারা অতিক্রম করতে চাইলে সংঘর্ষ শুরু হয়। গত কয়েক সপ্তাহজুড়ে এই জায়গায় বেশ কয়েকবার মোরালেসপন্থী ও তাদের বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের পর দেশটিতে চরম অস্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে হিমশিম খাচ্ছে অন্তবর্তীকালীন সরকার। একজন চিকিৎসক জানিয়েছেন, শুক্রবার নিহতদের বেশিরভাগই সাকাবা শহরের বাসিন্দা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বিক্ষোভকারীদের দিকে এলোপাতাড়ি গুলি ছুঁড়েছে পুলিশ। তারা মেক্সিকোয় নির্বাসিত মোরালেসের ফিরে আসার দাবি জানাচ্ছিলেন। ইমাটেরিও কোলক স্যানচিজ নামের এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী বলেন, তিনি বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীর মরদেহ দেখেছেন। পুলিশের গুলিতে তারা নিহত হয়েছেন।

এদিকে বলিভিয়ার অন্তবর্তীকালীন সরকারকে একনায়ক বলে আখ্যা দিয়ে মোরালেস এক টুইটার বার্তায় লিখেছেন, বিক্ষোভকারীদের ওপর ব্যাপক হত্যাকান্ড চালানো হয়েছে। শুক্রবার বিবিসিকে মোরালেস বলেন, নির্বাচন নিয়ে আমার বিরুদ্ধে আনতে পারে এমন কোনও বাস্তব অভিযোগ নেই। এসময় তিনি অন্তর্র্বতীকালীন প্রেসিডেন্ট জেনাইন আনেজের বিষয়ে বলেন, আমি বলিভিয়া ফিরলে হয়ত তার বিরুদ্ধে মামলা করব।

হাসপাতালের মহাপরিচালক গুয়াদালবার্টো বলেন, অধিকাংশ নিহতের ঘটনা ঘটেছে সাকাবায়। এছাড়াও বেশ কয়েকজন পুলিশের গুলিতে আহত হয়েছেন বলে খবরে জানা গেছে। ইমাটেরিও কোলক স্যানচিজ নামের ২৩ বছর বয়সী এক বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী বলেন, তিনি বেশ কয়েকজন বিক্ষোভকারীর মরদেহ দেখেছেন। পুলিশের গুলিতে তারা নিহত হয়েছেন। নিরাপত্তা বাহিনী সংবিধানের আওতায় তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করেছে কিনা কিংবা মানবাধিকারের আন্তর্জাতিক সনদ লঙ্ঘন করা হয়েছে কিনা, তা জানতে অন্তবর্তীকালীন সরকারকে একটি তদন্তের আহŸান জানানো হয়েছে।

এদিকে, শুক্রবার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী কারেন লঙ্গারিক বলেছেন, কিউবার অন্তত ৭২৫ নাগরিককে দেশ ত্যাগ করতে বলা হয়েছে। এদের বেশির ভাগই চিকিৎসক, যারা বলিভিয়ার বিভিন্ন হাসপাতালে কাজ করছেন। বিক্ষোভে কিউবানদের সম্পৃক্ততা পাওয়ার কথা জানান মন্ত্রী। এছাড়া একই কারণে ভেনেজুয়েলার সব ক‚টনীতিককে বলিভিয়া ছাড়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মেক্সিকোয় আশ্রয় নেয়া মোরালেস বলেছেন, তিনি দেশে ফিরতে পারেন। তবে তিনি আশঙ্কা করছেন দেশে ফিরলেও তাকে বাদ দিয়ে নতুন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। আর এর প্রতিক্রিয়ায় নতুন সরকারের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, দেশে ফিরলে মোরালেসকে নির্বাচনে কারচুপির জন্য আইনের মুখোমুখি হতে হবে। এই পরিস্থিতিতে দেশটিতে বিশেষ দ‚ত পাঠাতে যাচ্ছে জাতিসংঘ। শুক্রবার জাতিসংঘের মুখপাত্র জানান, জেন আরনল্টকে নিজের ব্যক্তিগত দূত হিসেবে বলিভিয়ায় নিয়োগ করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব। সূত্র: বিবিসি, আরটি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন