Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার , ০৯ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১১ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

শ্রীলঙ্কার নতুন প্রেসিডেন্ট রাজাপাকসে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

শ্রীলঙ্কার নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হলেন সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাপাকসের ভাই গোতাভায়া রাজাপাকসে। তীব্র প্রতিদ্ব›িদ্বতাপূর্ণ নির্বাচনে তিনি সাজিথ প্রেমাদাসাকে পরাজিত করেছেন। গতকাল রোববার গোতাভায়া রাজাপাকসের মুখপাত্র কেহেলিয়া রাম্বুকওয়েলা তার জয়ের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। আজ সোমবার দেশের সপ্তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন তিনি।

সংবাদমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, প্রায় ৩০ লাখ ব্যালট গোনা হয়েছে। তাতে ৪৯.৬ শতাংশ ভোট পেয়ে বাকিদের চেয়ে এগিয়ে তিনি। তার প্রতিদ্ব›দ্বী সাজিথ প্রেমাদাসা পেয়েছেন ৪৪.৪ শতাংশ ভোট। তবে রাজাপাকসের সবচেয়ে শক্তিশালী ঘাঁটি যেখানে, সেই সিংহলী অধ্যুষিত এলাকার ভোট গণনাই এখনো বাকি। তা মিটে গেলে রাজাপাকসের প্রাপ্ত ভোটের হার ৫০ শতাংশ ছাড়িয়ে যাবে বলেই মনে করা হচ্ছে। তবে ইতোমধ্যে রাজাপাকসে ৫৩-৫৪ শতাংশ ভোট পেয়ে গেছেন বলে দাবি তার মুখপাত্র রাম্বুকওয়েলার। সংবাদ সংস্থা এএফপিকে তিনি বলেন, ‘৫৩-৫৪ শতাংশ ভোট পেয়েছি আমরা। এটা পরিষ্কার জয়। নিজের চোখে দেখেছি আমরা। গোতাভায়া আমাদের পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন।’

শনিবার নির্বাচনের দিন একাধিক বিক্ষিপ্ত হিংসার ঘটনা ঘটলেও প্রায় ১ কোটি ৬০ লাখ মানুষ বুথে গিয়ে ভোট দেন বলে জানিয়েছেন সে দেশের নির্বাচন কমিশনের চেয়ারম্যান মাহিন্দ দেশপ্রিয়। তবে রাজাপাকসের জয়ের জন্য তার সন্ত্রাসবিরোধী অবস্থানকেই কৃতিত্ব দিচ্ছেন অনেকে। এ বছর ইস্টারের সকালে ভয়াবহ জঙ্গি হামলার সাক্ষী হয় শ্রীলঙ্কা। তাতে ২৫৯ জন প্রাণ হারান। এর পর রাজাপাকসের নির্বাচনী প্রচারে সন্ত্রাসবাদই মূল ইস্যু হয়ে দাঁড়ায়। সাধারণ মানুষকে নিরাপত্তার আশ্বাস দেন তিনি। তাতেই মানুষ তাকে বেছে নিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে। নির্বাচনের ফল মেনে নিয়েছেন প্রেমাদাসা। তিনি প্রতিদ্ব›দ্বী গোতাভায়াকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেছেন, ‘জনগণের রায়কে সম্মান জানাচ্ছি। শ্রীলঙ্কার সপ্তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে জয়লাভ করায় গোতাভায়া রাজাপাকসেকে অভিনন্দন।’

সাবেক প্রেসিডেন্ট মাহিন্দ রাজাপাকসের ভাই ৭০ বছর বয়সী গোতাভায়া রাজাপাকসে। শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষা সচিবও ছিলেন তিনি। সেনাবাহিনীতেও দীর্ঘদিন কাটিয়েছেন। এমনকি এলটিটিইর বিরুদ্ধে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের অবসানও তার হাত ধরেই। এই অভিজ্ঞতাই নির্বাচনী লড়াইয়ে কাজ দিয়েছে। সংখ্যালঘু মুসলিম এবং তামিলরা তার ওপর অসন্তুষ্ট হলেও সংখ্যাগুরু সিংহলীদের মধ্যে তার জনপ্রিয়তা রয়েছে। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বৌদ্ধদেরও সমর্থন পেয়েছেন তিনি।

এদিকে গোতাভায়া শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ায় সামান্য হলেও অস্বস্তিতে পড়েছে ভারত। কারণ শ্রীলঙ্কার সঙ্গে চীনের মধ্যে বরাবর সেতু হিসেবে কাজ করেছে রাজাপাকসে পরিবার। ২০১৫ সালে মাহিন্দ রাজাপাকসের নির্বাচনী প্রচারে বেইজিং কোটি কোটি টাকা খরচ করেছিল বলেও দাবি করেন অনেকে। তাই গোতাভায়া ভারতের তুলনায় চীনকেই বেশি গুরুত্ব দেবেন বলে মনে করা হচ্ছে। তার ওপর আগামী বছরের শুরুতে আবার সংসদীয় নির্বাচন শ্রীলঙ্কায়। তাতে আবার প্রধানমন্ত্রী পদ ফিরে পেতে মরিয়া চেষ্টা চালাবেন মাহিন্দ রাজাপাকসে। তিনি জয়ী হলে, রাজাপাকসে ভাইদের হাতেই উঠবে শ্রীলঙ্কার শাসনব্যবস্থার রাশ। তাতেই দুশ্চিন্তা আরো বেড়েছে ভারতের।

উল্লেখ্য, শ্রীলঙ্কায় চলতি বছরের অনেকটা সময়জুড়ে ছিল রাজনৈতিক অস্থিরতা। প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা ও প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের মধ্যে দ্ব›দ্বই ছিল এই সঙ্কটের মূল কারণ। এর মধ্যেই ঘটে যায় দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বড় ধরনের জঙ্গি হামলা। গত এপ্রিলে ইস্টার সানডের দিনে একযোগে কয়েকটি গির্জা ও হোটেলে চালানো হামলায় নিহত হন ২৫০-এর বেশি মানুষ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন