Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

মোহামেডানে ফিরেছে খেলাধুলার পরিবেশ

সদস্য, সমর্থক ও সাবেকদের পদচারণায় মুখর ক্লাব প্রাঙ্গণ

জাহেদ খোকন | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম | আপডেট : ১০:০৩ এএম, ১৯ নভেম্বর, ২০১৯

ক্যাসিনো ইস্যুতে বেশ কিছুদিন সংকটে থাকলেও সদস্য, সাবেক খেলোয়াড় ও সমর্থকদের পদচারণায় এখন মুখরিত ঐতিহ্যবাহী ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব প্যাভিলিয়ন। মতিঝিলস্থ ক্লাব ভবনে ফিরেছে খেলাধুলার পরিবেশ। দু’মাস আগেও যেখানে ছিলনা খেলাধুলা নিয়ে তেমন কোন আলোচনা, বর্তমানে সকাল-সন্ধ্যা সেখানেই ফুটবল-ক্রিকেট বা হকি দল নিয়ে আলোচনায় মগ্ন দেখা যাচ্ছে ক্লাব সংশ্লিষ্ট ও সমর্থকদের। সবচেয়ে বেশী আলোচনা হচ্ছে ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) নিয়ে। বিপিএলের এবারের আসরে মোহামেডান কেমন দল গড়ছে, কি তাদের লক্ষ্য অথবা নতুন মৌসুমে মোহামেডানের বিদেশী ফুটবলার সংগ্রহ কেমন? এমন সব বিষয় নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মোহামেডানের সদস্য, সাবেক ফুটবলার ও অগণিত সমর্থকরা। 

ক্লাবের রূপ, কর্মপরিধি বদলালেও মাঠের লড়াইয়ে দীর্ঘদিন মোহামেডান বিবর্ণ। এ নিয়ে সমর্থকদের মাঝে ক্ষোভের সীমা ছিলনা। সদস্য ও মোহামেডানের সাবেক ফুটবলার যারা বিভিন্ন কারণে ক্লাবে অনিয়মিত ছিলেন তাদের মাঝেও ছিল ক্ষোভ-হতাশা। তবে পরিবেশ-পরিস্থিতি বলে তাদের সেই ক্ষোভ ও হতাশা ধীরে ধীরে কাটছে। নতুন আশার সঞ্চার হচ্ছে। পরিস্থিতি বদলানোর লক্ষণ দেখা যাচ্ছে। ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির ধাক্কায় ক্লাবে পরিবর্তনের বাতাস বইছে। সদস্য, সাবেক খেলোয়াড়, সমর্থক ও ক্রীড়া সংশ্লিষ্টরা একাট্টা হয়েছেন মোহামেডানের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে। মতিঝিলের ক্লাব ভবনে এখন নিয়মিতই দেখা মিলছে স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের অধিনায়ক জাকারিয়া পিন্টু, প্রতাপ শংকর হাজরা, বাদল রায় (স্থায়ী সদস্য ও বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহ-সভাপতি), ইমতিয়াজ সুলতান জনি, রিয়াজ, শফিকুল ইসলাম মানিক, ছাঈদ হাসান কানন, সৈয়দ রুম্মন বিন ওয়ালী সাব্বির, ইমতিয়াজ আহমেদ নকিবের মতো সাবেক তারকা ফুটবলারদের। সাবেক খেলোয়াড়দের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে ক্লাবের দুঃসময়ে এগিয়ে এসেছেন মোহামেডানের সাবেক অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক ও স্থায়ী সদস্য মোস্তাকুর রহমান, সাবেক পরিচালক সারওয়ার হোসেন, সাবেক পরিচালক ও হকি সম্পাদক সাজেদ এ এ আদেল, স্থায়ী সদস্য ফজলুর রহমান বাবুল ও আবু হাসান চৌধুরী প্রিন্সরা।
অভিযোগ রয়েছে দীর্ঘদিন মোহামেডানের কর্মকান্ড পরিচালিত হয়েছে ক্লাবের ডাইরেক্টর ইনচার্জ লোকমান হোসেন ভূঁইয়ার ইচ্ছেমতই। তিনি নাকি কৌশলে পুরনো সংগঠক ও সাবেক খেলোয়াড়দের দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন। আর এতেই সাদাকালোদের ঐতিহ্য ক্রমেই হারাতে বসেছিল। তবে ক্যাসিনো সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে লোকমান গ্রেফতার হওয়ার পরই মোহামেডান ক্লাবমুখী হয়েছেন পুরনো সংগঠক ও সাবেক খেলোয়াড়রা। তাদের সঙ্গে উচ্ছ্বসিত হয়েই ক্লাবের সংকট কাটাতে এগিয়ে এসেছে মোহামেডান সমর্থক দল। সবার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আসন্ন বিপিএলের জন্য একটি তারুণ্যনির্ভর দলই গঠন করেছে মোহামেডান। যে দলে পরিচিত তিন-চারজন ছাড়াও রয়েছেন একঝাঁক তরুণ ফুটবলার। আছেন ভালোমানের বিদেশী খেলোয়াড়ও। দ্বিতীয়বারের মতো কোচের দায়িত্ব পালন করতে ইতোমধ্যে মোহামেডানে যোগ দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান শন লেন। তিনি দলের অনুশীলনও শুরু করেছেন। সবদিক বিবেচনায় শুধু টিকে থাকতেই নয়, আসন্ন বিপিএলে শিরোপার জন্যও লড়তে চায় ঐতিহ্যবাহীরা। আর তারা এই শক্তি খুঁজে পাচ্ছে ত্যাগী সদস্য, সাবেক ফুটবলার ও মোহামেডানের অগণিত সমর্থকদের উৎসাহে। তাই তো নতুন ফুটবল মৌসুমকে সামনে এবার জমকালো আয়োজনে দলবদল কার্যক্রমে অংশ নেবে মোহামেডান। রাত পোহালেই দেখা যাবে মতিঝিলের রাস্তায় ঘোড়ার গাড়ি ও শোভাযাত্রা। ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে এবং পায়ে হেঁটে যে শোভাযাত্রায় অংশ নেবেন মোহামেডানের সাবেক ও বর্তমান খেলোয়াড়, কর্মকর্তা এবং সমর্থকরা। এদের সঙ্গে থাকবে একঝাঁক শিশু। যাদের লক্ষ্য থাকবে মতিঝিলস্থ বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) ভবন। আগামীকাল ঢাক-ঢোল বাজিয়ে বাজনার তালে তালে ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে শোভাযাত্রাসহ দলবদল কার্যক্রমে অংশ নিতে বাফুফে ভবনে আসবেন নতুন মৌসুমে মোহামেডানে যোগ দেয়া ফুটবলাররা। সবার গায়ে থাকবে মোহামেডানের ৭০’ দশকের ঐতিহ্যবাহী জার্সি সাদাকলো কলারযুক্ত শার্ট। ক্লাব সুত্রে জানা যায়, জার্সি বদলাতে বদলাতে মোহামেডানের ঐতিহ্য নষ্ট করে ফেলেছিল বিভিন্ন সময়ের কর্তারা। এবার সেই ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতেই ৭০’ দশকের জার্সি গায়ে চড়িয়ে দলবদলে অংশ নেয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। আর এটা হচ্ছে মোহামেডান সমর্থক দলের উদ্যোগেই।
ক্লাবের সার্বিক পরিস্থিতি ও পরিবেশ সম্পর্কে জানতে গতকাল মোহামেডান ক্লাবে গেলে সাবেক অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকুর রহমান বলেন,‘মোহামেডানে এখন খেলাধুলার পরিবেশ ফিরে এসেছে। সবাই স্বতঃস্ফূর্তভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন ক্লাবের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে। সাবেক খেলোয়াড়, সদস্য ও সমর্থকরা উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়েই নিয়মিত ক্লাবে আসছেন। সবার লক্ষ্য আসন্ন বিপিএলে একটি ভালোমানের দল গড়া। তবে আমরা যখন দলগঠন করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি তখন তেমন তারকা খেলোয়াড় ছিলনা। তারপরও চেষ্টা করেছি একটি তারুণ্যনির্ভর দল গড়তে। ভালোমানের পাঁচ বিদেশী সংগ্রহও এবার থাকছে আমাদের। গত মৌসুমের মালির ফরোয়ার্ড সোলেমান দিয়াবাতের ও জাপানি মিডফিল্ডার উরু নাগাতার সঙ্গে এবার নাইজেরিয়ার দু’জন ও মালির আরেক ফুটবলার দেখা যাবে মোহামেডানে। খেলোয়াড়দের প্রস্তুত করতে ইতোমধ্যে দলের যোগ দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান কোচ শন লেন। তাই বলা যায় আমরা চ্যাম্পিয়ন ফাইট দেয়ার জন্যই দল গঠন করেছি।’ তিনি যোগ করেন,‘দলবদল কার্যক্রমেও এবার আমরা ভিন্নতা আনছি। মঙ্গলবার (আগামীকাল) বিকেলে দলবদলে অংশ নেবে মোহামেডান। ৭০’ দশকে জাকারিয়া পিন্টু-প্রতাপ শংকর হাজরারা যে জার্সি গায়ে মাঠ মাতাতেন সেই ঐতিহ্যবাহী কলারযুক্ত সাদাকালো শার্ট পরে এদিন ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে দলবদলে আসবে মোহামেডানের খেলোয়াড়রা। তাদের সঙ্গে শোভাযাত্রায় ক্লাব কর্মকতা, সাবেক ফুটবলার ও সমর্থকরা ছাড়াও রংবেরংয়ের গেঞ্জি গায়ে থাকবে একঝাঁক শিশু। মোহামেডান সমর্থক দলের উৎসাহে ফুটবল জাগরণের জন্যই আমরা এমন পদক্ষেপ নিচ্ছি। সবদিক বিবেচনায় আমি আশাবাদি এবারের দল নিয়ে।’
মোহামেডানের সাবেক ফুটবলার ও স্থায়ী সদস্য বাদল রায় বলেন,‘ক্লাবের পরিবেশ এখন ক্রীড়াবান্ধব। সাবেক খেলোয়াড় ও পুরনো সংগঠক ও সমর্থকদের চেষ্টায় ঘুরে দাঁড়ানোর লক্ষ্যে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা। সংকটের সময় সবাই একাট্টা হয়েছি মোহামেডানের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে। লিগকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে দলও গুছিয়ে ফেলেছি। তারুণ্যনির্ভর ভালোমানে দল গড়তে পেরেছি সবার চেষ্টায়। মঙ্গলবার (আগামীকাল) জাঁকজঁমক দলবদল করবে মোহামেডান। আমি আশাবাদি বিপিএলে এবার ভালো করার ব্যাপারে।’ মোহামেডানের সাবেক তারকা গোলরক্ষক ছাইদ হাসান কানন বলেন,‘ক্লাবের পরিবেশ দেখে এখন মনে হয় প্রতিদিনই যেন ‘চাঁন রাত’। সংকটের সময় সব সাবেক খেলোয়াড়, সংগঠক ও সমর্থকরা যেভাবে ঝাঁপিয়ে পড়েছে এক কথায় তা অসাধারণ।’ তিনি আরো বলেন,‘আমি মনে করি বিপিএলের গত আসরের চেয়ে এবার অনেক ভালো দল গড়তে পেরেছি আমরা। তাই বলতে পারি এবার চ্যাম্পিয়ন ফাইট দেবে মোহামেডান।’
পরিবর্তনের ঢেউয়ে কি মোহামেডান তার হারানো গৌরব ফিরিয়ে আনতে পারবে? এখন সেটা দেখার অপেক্ষায় আছেন কোটি মোহামেডান সমর্থক।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ক্লাব


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ