Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার , ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ০১ পৌষ ১৪২৬, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

দুদকের মামলায় ইনকিলাব সম্পাদকের জামিন

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:২৭ পিএম

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) মামলায় দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এএমএম বাহাউদ্দীনকে আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের ডিভিশন বেঞ্চ এ জামিন দেন। আদালতে এএমএম বাহাউদ্দীনের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ। দুদকের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট খুরশিদ আলম খান এবং অ্যাডভোকেট একেএম ফজলুল হক। গত ৪ নভেম্বর ১ কোটি ৭০ লাখ টাকার জ্ঞাত আয় বহির্ভুত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক। এজাহারে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন-২০০৪ এর ২৬(২), ২৭(১) ধারা প্রয়োগ করা হয়।
জামিন আবেদনে অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ দুদক সম্পর্কে সম্প্রতি দৈনিক ইনকিলাবে প্রকাশিত কয়েকটি প্রতিবেদন তুলে ধরেন। তিনি বলেন, প্রতিষ্ঠান হিসেবে দুদকের বিভিন্ন কর্মকান্ডের গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতিবেদন প্রকাশ হয় দৈনিক ইনকিলাবে। বড় বড় দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে চুনোপুটিদের পাকড়াও করছে দুদক। এর ফলে দেশের অর্থনীতি, শিল্প বিনিয়োগে বিরূপ প্রভাব পড়ছে। প্রকৃত দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ এ প্রতিষ্ঠান। এ ধরণের বিষয়গুলো তুলে ধরে পরপর বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে ইনকিলাব। সর্বশেষ ১ নভেম্বর একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এর দু’দিন পরই ৪ নভেম্বর দুদক মামলা করে প্রভাবশালী জাতীয় দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক-প্রকাশক জনাব এএমএম বাহাউদ্দীনের বিরুদ্ধে। এ সময় দুদক আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, ২০১৬ সালে তার বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু হয়। যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ করে আইন ও বিধি অনুসারে এ মামলা করা হয়। প্রকাশিত প্রতিবেদনের সঙ্গে এ মামলার কোনো সম্পর্ক নেই। এ সময় অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ আদালতের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, জনাব এএমএম বাহউদ্দীনের বিষয়ে অনুসন্ধান শুরুর প্রথম নোটিসটি লক্ষ্য করুন। ২০১৬ সালে তার বিষয়ে দুদক প্রথম চিঠি দেয়। অনুসন্ধানে কোনো অবৈধ সম্পদ খুঁজে না পাওয়ায় বেশ কয়েকবার অনুসন্ধান কর্মকর্তা পরিবর্তন হয়। এভাবে পাঁচ বছর অতিবাহিত হতে চললেও দুদক এতোদিন মামলা করেনি। যখনই দুদকের বিষয়ে গঠনমূলক সমালোচনা সম্বলিত প্রতিবেদন প্রকাশ করা হলো তখনই এ মামলা করা হলো। একটি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদকের বিরুদ্ধে শুধুমাত্র সংবাদ প্রকাশ করার কারণে এ মামলা হতে পারেনা। আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে তিনি এখন হাইকোর্টে জামিন প্রার্থনা করছেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত চার সপ্তাহের জামিন মঞ্জুর করেন। এ সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেফতার কিংবা হয়রানি করা যাবে না বলেও জানান অ্যাডভোকেট মনজিল মোরসেদ।



 

Show all comments
  • md kamruzzaman ১৮ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:০৯ পিএম says : 0
    দুদক একটি আজ্ঞাবহ প্রতিষ্ঠান। নিজেদের সাধু সন্ন্যাসী মনে করে। দুদকে ও অনেক দুর্নীতিবাজ রয়েছে। বাংলাদেশের জনপ্রিয় দৈনিক ইনকিলাবের মাধ্যমে দেশবাসী তা জানতে পেরেছে। ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে এই মামলা বানোয়াট ও সংবাদ পত্রের কণ্ঠ রেধের সামিল এবং নিজেদের ব্যার্থতা আড়ালের অপচেষ্টা মাত্র। অবিলম্বে এই মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের আহবান জানাই। আমি ও যখন সাংবাদিকতা করেছি তখন দুদকের বিস্তারিত বিতর্কিত কর্মকান্ড জাতির সামনে তুলে ধরেছি। ইনকিলাবের সাংবাদিকদের বলবো সাহসের সঙ্গে দুদকের আসল চেহারা জাতির সামনে তুলে ধরুন।
    Total Reply(0) Reply
  • তানিয়া ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০২ পিএম says : 0
    হাইকোর্টকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • বাবুল ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০২ পিএম says : 0
    দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এএমএম বাহাউদ্দীন সাহেব সব সময়ই সত্যের পক্ষে অবিচল। তাই তিনি কখনও অন্যায়ের কাছে মাথা নত করবেন না।
    Total Reply(0) Reply
  • তফসির আলম ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৪ পিএম says : 0
    এভাবে চিরদিন সত্যের জয় হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মনিরুল ইসলাম ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৪ পিএম says : 0
    এএমএম বাহাউদ্দীন ভাই আপনি এগিয়ে যান । কোন অপশক্তিই আপনার সত্যের পথে চলাকে দমাতে পারবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Hussain Ahmed ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৬ পিএম says : 0
    এ সমস্ত দুদক গঠন করে দেশ এবং জাতির কোন উপকারে আসে নাই , বারণ এই দুদুকের পিছনে রাষ্ট্রীয় কোষাগারের টাকা অপচয় হচ্ছে, এসমস্ত কর্মকর্তারা সরকারি দলের লোক এরা কখনো নিরপেক্ষভাবে রাষ্ট্রের হয়ে কাজ করে না।
    Total Reply(0) Reply
  • মুহিব্বুল হাসান সায়ীদ ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৬ পিএম says : 0
    দুদকের অনেকেই দুর্নীতিতে প্রত্যেক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত , তার দুর্নীতি দমন করার জন্য আর একটি দুর্নীতি দমন কমিশন গঠন করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Faruk Khan ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৭ পিএম says : 0
    আমার ব্যাক্তি গত ভাবে মনে হয় এ সংস্থার মধ্যে সচ্ছতার আনেক আভাব আছে। সাধারন মানুষের আস্থা আর্জনে তারা ব্যর্থ হয়েছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Amirul Khan ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৭ পিএম says : 0
    আমি মনে করি দুদক নিজেই দুর্নীতিগ্রস্ত। দুদকের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে সাঁড়াশি অভিযান চালানো উচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • শফিক রহমান ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৭ পিএম says : 0
    একটি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদকের বিরুদ্ধে শুধুমাত্র সংবাদ প্রকাশ করার কারণে এ মামলা হতে পারেনা।
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৮ পিএম says : 0
    সাংবাদিক ভাইদের উপরে হাই প্রেশার আসছে, ওরে ভয়নেই বাংলাদেশের ১৬ কোটি মানুষ সাংবাদিকদের পক্ষেই আছে.
    Total Reply(0) Reply
  • সোয়েব আহমেদ ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:০৮ পিএম says : 0
    ইনকিলাব সম্পাদক এ এম এম বাহাউদ্দিন এর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা।যেন সত্য প্রকাশে খড়গ হস্ত।দুদকের দুর্নিতী সম্পর্কিত খবর প্রকাশে ঈর্ষান্বিত হয়েইকি এইমামলা।
    Total Reply(0) Reply
  • রিপন ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১০ পিএম says : 0
    ইনকিলাব হচ্ছে স্বাধীন মত প্রকাশের মূর্ত প্রতীক। দুর্নীতির বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যাবার অগ্রযাত্রার প্রতিধ্বনি। মজলুম মানুষের মুখপত্র দৈনিক ইনকিলাবের সম্পাদকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে মামলা দিয়ে ইনকিলাবের মুখ বন্ধ রাখা যাবে না।
    Total Reply(0) Reply
  • জহির ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১১ পিএম says : 0
    মনে রাখবেন ইনকিলাব সম্পাদক দুর্নীতিবাজ নন; তিনি পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিত্ব। হাজারো প্রতিক‚লতার মধ্যেও দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্বের ব্যাপারে এক চুলও ছাড় দেন না। তিনি দেশের আলেম সমাজের নেতৃত্ব দেন।
    Total Reply(0) Reply
  • পাবেল ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১১ পিএম says : 0
    দুদকের মামলা ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে প্রতিহিংসামূলক আচরণের নামান্তর।
    Total Reply(0) Reply
  • মিনার মুর্শেদ ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১১ পিএম says : 0
    ইনকিলাব দুর্নীতিবাজদের মুখোশ খুলে দিচ্ছে। দুদকের ঘরের দুর্নীতিবাজ রাঘব বোয়ালদের প্রতিবেদন প্রকাশ করা গণমাধ্যম হিসেবে ইনকিলাবের অপরাধ নয়। গণমাধ্যম হিসেবে এটা তাদের দায়িত্ব।
    Total Reply(0) Reply
  • ইমরান ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১৩ পিএম says : 0
    অন্যায়, অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে সবসময় সোচ্চার দৈনিক ইনকিলাব নানা প্রতিকূলতার মাঝেও সত্য প্রকাশে নির্ভীক ভূমিকা রেখে আসছে। আর যার নেতৃত্বে ও সম্পাদনায় পত্রিকাটি এ ভূমিকা রাখছে তিনি হলেন গণমাধ্যমের এক আপোসহীন নাম পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিত্ব এ এম এম বাহাউদ্দীন। তাঁর বিরুদ্ধে দুদকের দায়ের করা মামলা সাংবাদিকসহ নাগরিক সমাজের সকলকে বিস্মিত করেছে।
    Total Reply(0) Reply
  • বাবুল ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১৪ পিএম says : 0
    আশা করি এই মামলায় ইনকিলাব সম্পাদক নির্দোষ প্রমাণিত হবেন।
    Total Reply(0) Reply
  • আঃ রাজ্জাক ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১৫ পিএম says : 0
    সত্যের পক্ষে কাজ করলে এমন বাধা আসবেই
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ২:১৭ পিএম says : 0
    ইনকিলাব সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা করে দুদক! কথাটা শুনেই হাসি পায়। দেশে এত খারাপ লোক থাকতে এই ভালো মানুষের বিরুদ্ধে তারা লেগে আছে
    Total Reply(0) Reply
  • নাসির উদ্দিন ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:২৩ পিএম says : 0
    সত্যের পথে অবিচল থাকায় ইনকিলাব সম্পাদককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ