Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

বুলবুলে মঠবাড়িয়ায় বিশ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

উপক‚লীয় পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় বুলবুলের আঘাতে প্রায় বিশ হাজার পরিবার ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। এতে প্রায় ১৭ হাজার বসত ঘর ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে, ১৮ টি গবাদি পশু মারা গেছে, দেড় শত মৎস্য চাষের পুকুর ও ঘের ডুবে গেছে এবং ঝড় ও জলোচ্ছাসে আনুমানিক ৫০ কোটি টাকার ফসলহানী হয়েছে। ঝড়ে বিভিন্ন স্থানে গাছ পড়ে বিদ্যুতের খুঁটি হেলে পড়ায় সারা উপজেলা বিদ্যুৎ বিতরণে বিপর্যয় দেখা দিয়েছে। ঝড়ের তান্ডবে গ্রামীণ সড়ক ও মহাসড়কের দুই পাশের কয়েক হাজার গাছ উপড়ে পড়ে।

অরক্ষিত বেড়িবাঁধের কারণে তীব্র জোয়ারের পানির চাপে বলেশ^র নদ তীরবর্তী কচুবাড়িয়া, খেতাছিরা ও ভাইজোড়া জেলে পাড়ার ৩ শতাধিক জেলে পরিবারের বাড়িঘরের সব কিছু ভাসিয়ে নিয়ে গেছে। সর্বস্ব হারানো জেলে পরিবারগুলো মানবেতর জীবন যাপন করছে।
আছমা বেগম জানান, বুলবুল তাদের সব কিছু ভাসিয়ে নেয়ায় ৪/৫ দিন তারা অভূক্ত ছিল। জেলেদের অভিযোগ বুলবুলের আঘাতে তারা সর্বশান্ত হলেও প্রশাসনের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত তেমন কোন ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়নি।

আ. রাজ্জাক, বাবুল আকন, শংকর হাওলাদার, সুধাংশ হাওলাদার ও সোমেদ ফরাজী জানান, বুলবুলের আঘাতে তাদের নোঙর করা মাছ ধরার ট্রলার ও নৌকা জালসহ ডুবে গেছে। কিস্তির বোঝা মাথায় নিয়ে তারা এখন দুচোখে অন্ধকার দেখছে।
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঝড়ে উপজেলায় পাঁচ হাজার কৃষক অপূরণীয় ক্ষতির শিকার হয়েছেন। ঝড় ও জলোচ্ছাসে আমন ধান ৭ হাজার হেক্টর, পান ৩০ হেক্টর, সরিষা ২ হেক্টর, ফল ও শাকসবজি ক্ষেতসহ ২০০ হেক্টর জমির ফসল সম্পূর্ণ ক্ষতি হয়েছে। এতে কৃষি দপ্তরের হিসাব অনুযায়ী সর্বমোট ৫০ কোটি টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে। তবে কৃষকের কাছে এর ক্ষতির পরিমান দ্বিগুনেরও বেশি। উপজেলার মৎস্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, ভারী বর্ষণ ও জোয়ারের তোড়ে উপজেলার ১৫০ মৎস্য খামার পুকুরের ঘের তলিয়ে ৩৫ লাখ টাকার মাছের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিক ধারণা করা হয়েছে।

উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রিপন বিশ^াস জানান, ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের ক্ষয়ক্ষতির পরমিান নিরুপন কারে উধর্¦তন কর্তৃপক্ষর কাছে পাঠানো হয়েছে। বরাদ্ধ পেলেই ক্ষতিগ্রস্থদের মাঝে বিতরণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ