Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

লিটেকনিক প্রিন্সিপালকে পানিতে নিক্ষেপ মামলার মূল আসামিসহ গ্রেফতার ৫

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২০ নভেম্বর, ২০১৯, ৫:৪৭ এএম

রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের প্রিন্সিপাল ফরিদ উদ্দিনকে লাঞ্ছিত এবং পুকুরের পানিতে ফেলে দেয়ার ঘটনায় এজাহারভুক্ত মূল হোতাসহ পাঁচ আসামিকে সোমবার দিবাগত রাতে রাজশাহী মহানগরীর উপকণ্ঠ বেলপুকুর থানার বিসমিল্লাহ পেট্রলপাম্প সংলগ্ন মোড় থেকে গ্রেফতার করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস মঙ্গলবার গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। গ্রেফতারকৃতরা হলো- পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের সদ্যবহিষ্কৃত যুগ্মসম্পাদক মামলার এক নম্বর আসামি কামাল হোসেন সৌরভ, দুই নস্বর আসামি মুরাদ, তিন নম্বর আসামি শান্ত, ছয় নম্বর আসামি সালমান ওরফে টনি এবং সাত নম্বর আসামি রায়হানুল হাসান হাসিব। তারা সবাই পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থী এবং ছাত্রলীগের সক্রিয় নেতাকর্মী। এ নিয়ে প্রিন্সিপাল ফরিদ উদ্দিনের করা মামলায় ১৭ জনকে গ্রেফতার করা হলো। এ ছাড়া জড়িত বাকিদেরও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

উল্লেখ্য, মিডটার্মে ফেল এবং ক্লাসে অনুপস্থিত থাকা পলিটেকনিক শাখা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত যুগ্ম সম্পাদক কামাল হোসেন সৌরভকে ফাইনাল পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সুযোগ দিতে গত ২ নভেম্বর সকালে প্রিন্সিপাল ফরিদ উদ্দিনের কার্যালয়ে গিয়ে চাপ দেন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
এ নিয়ে প্রিন্সিপালের সঙ্গে তাদের কথাকাটাকাটি হয়। এর জের ধরে ওই দিন দুপুরে প্রিন্সিপালকে লাঞ্ছিত করার পর টেনেহিঁচড়ে ক্যাম্পাসের ভেতরের একটি পুকুরের পানিতে ফেলে দেয়া হয়। এ নিয়ে রাতে আটজনের নাম উল্লেখ ও ৫০ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে রাতে মহানগরীর চন্দ্রিমা থানায় মামলা করেন। ঘটনা তদন্তে কারিগরি শিক্ষা অধিদফতর থেকে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির প্রধান হিসেবে ছিলেন কারিগরি শিক্ষা অধিদফতরের পরিচালক এসএম ফেরদৌস আলম। তদন্ত কমিটির সদস্যরাও ঘটনার সত্যতা পেয়ে প্রতিবেদন দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন