Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ আগস্ট ২০২০, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৩ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

এলসির সঠিক ব্যবহারে বায়িং হাউজের আরও দক্ষতা বাড়ানো দরকার

বিআইবিএমে ট্রান্সফাররেবল এলসি বিষয়ক গবেষণা কর্মশালা

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ নভেম্বর, ২০১৯, ৭:৩৪ পিএম

বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্টের (বিআইবিএম) ‘অ্যাড্রেসিং চ্যালেঞ্জেস অব ট্রান্সফাররেবল এলসি ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক গবেষণা কর্মশালার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে মধ্যস্থতায় বায়িং হাউজের অপরিসীম। তবে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বায়িং হাউজগুলো থেকে বেশ কিছু সুবিধা পাওয়া গেলেও ব্যাংকার এবং ব্যবসায়ীরা অনেক ক্ষেত্রে সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। কিছু ক্ষেত্রে বায়িং হাউজের অদক্ষতার কারণে বাণিজ্যে জটিলতা দেখা দেয়। বিশেষ করে ট্রান্সফাররেবল এলসির ক্ষেত্রে এ ধরণের জটিলতা বেশি লক্ষ্য করা যায়। এ কারণে রফতানির স্বার্থে ট্রান্সফাররেবল এলসির সঠিক ব্যবহারে বায়িং হাউজের আরও দক্ষতা বাড়ানোর প্রয়োজন।

বুধবার (২০ নভেম্বর) রাজধানীর মিরপুরে বিআইবিএম অডিটোরিয়ামে ‘অ্যাড্রেসিং চ্যালেঞ্জেস অব ট্রান্সফাররেবল এলসি ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক গবেষণা কর্মশালায় উপস্থাপিত গবেষণা প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিআইবিএম-এর অধ্যাপক এবং পরিচালক (প্রশিক্ষণ) ড. শাহ মো. আহসান হাবীব। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এবং বিআইবিএম নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান এস এম. মনিরুজ্জামান। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. আখতারুজ্জামান।

কর্মশালায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিআইবিএমের ড. মোজাফফর আহমদ চেয়ার প্রফেসর এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক প্রফেসর ড. বরকত-এ-খোদা; বিআইবিএম-এর সুপারনিউমারারি প্রফেসর এবং পূবালী ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক হেলাল আহমদ চৌধুরী; বিআইবিএম-এর সাবেক সুপারনিউমারারি প্রফেসর ইয়াছিন আলি; ঢাকা ব্যাংক লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আবু জাফর; বিজিএমইএ’র পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম; বাংলাদেশ গার্মেন্টস বায়িং হাউজ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি কাজী ইফতেখার হোসেন।

কর্মশালায় মূল গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিআইবিএম-এর সহযোগী অধ্যাপক মো. আলমগীর।

এস এম. মনিরুজ্জামান বলেন, তৈরি পোশাক খাতের আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে বায়িং হাউজগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। তবে এ খাতের শৃঙ্খলা আনয়নে এরই মধ্যে সরকার বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। যা বায়িং হাউজে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে সহায়ক ভূমিকা পালন করেছে।

ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বায়িং হাউজগুলোকে রেটিংয়ের আওতায় আনতে হবে। এতে ইতিবাচক ফল পাওয়া যেতে পারে।

ড. বরকত-এ-খোদা বলেন, আর্ন্তজাতিক বাণিজ্যে আরও সক্ষমতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

হেলাল আহমদ চৌধুরী বলেন, তৈরি পোশাক খাতের আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের সুবিধার স্বার্থে বায়িং হাউজগুলোকে রেটিংয়ের আওতায় আনা যেতে পারে। একই সঙ্গে এনবিআর, বিজিএমইএ, বিকেএমইএসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে একটি উচ্চ কমিটি প্রণয়ন জরুরী। এ কমিটি তৈরি পোশাক খাতের সমস্যা নিরূপণ করে সমাধানের উদ্যোগ নেবে। ব্যাংকগুলোকেও কমপ্লায়েন্সের ওপর জোর দিতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কর্মশালা

১৮ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ