Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ডোবায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে হামলায় আহত ১০, আটক ২

স্টাফ রিপোর্টার, সাভার | প্রকাশের সময় : ২২ নভেম্বর, ২০১৯, ৪:৪৯ পিএম

ঢাকার সাভারের আশুলিয়া একটি ডোবায় মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। তাদের স্থানীয় বগাবাড়ি এলাকার একটি ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় অভিযুক্ত হামলাকারী পিতা-পুত্রকে আটক করেছে পুলিশ।
শুক্রবার আশুলিয়ার উনাইল এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।
আটকরা হচ্ছে- আশুলিয়ার উনাইল এলাকার আক্কেল আলীর ছেলে আব্দুল কুদ্দুস ও তার ছেলে সোহেল।
আহত আব্বাস উদ্দিন জানান, তাদের নিজেদের মালিকানাধীন জমির ওই ডোবা থেকে প্রায়ই জোরপূর্বক মাছ ধরে নিয়ে যেত স্থানীয় হানিফ, আব্দুল কুদ্দুস, নূর উদ্দিন, আলাউদ্দিনসহ বেশ কয়েকজন।
শুক্রবার সকালে তিনিসহ তার আত্মীয় শরীক নিজাম উদ্দিন, চাঁন মিয়া, আসলাম ও আব্দুল হাকিমসহ ১০-১২জন ডোবায় গেলে প্রতিপক্ষ হানিফের নেতৃত্বে ৩০-৪০ জন দেশীয় ধারালো অস্ত্র, শাবল, লোহার পাইপ ও লাঠিসোটা নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়।
তিনি আরো জানান, হামলাকারী নূর উদ্দিন তার দুই হাতের আগুল কেটে ফেলে ও অন্যরা রড দিয়ে তাকে মাটিতে ফেলে বেধরক পেটাতে থাকে। হামলাকারীরা আসলামকেও কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। তার সাথে থাকা অন্যদেরও বেধড়ক মারধর করে প্রতিপক্ষ হানিফ ও তার লোকজন। পরে পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।
ধামসোনা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের সদস্য আব্দুল কুদ্দুস জানান, আব্বাস উদ্দিন ও তার শরীকরা নিজেদের মালিকানাধীন ডোবাতেই মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। কিন্তুহানিফ ও তার লোকজন তাদের মারাত্মক ভাবে কুপিয়ে জখম করে।
আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো: কামরুজ্জামান বলেন, আশুলিয়ার উনাইল গ্রামে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এঘটনায় অভিযুক্ত আব্দুল কুদ্দুস ও তার ছেলে সোহেল নামে দুই জনকে আটক করা হয়েছে।
এছাড়া থানায় একটি মামলা দায়েরেরও প্রস্তুতি চলছে। ঘটনার তদন্তপূর্বক বাকী দোষীদেরও আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন