Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

এই ফ্যাসিবাদী সরকারের শাসন আইয়ুব এরশাদকে হার মানিয়েছে : মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বর্তমান সরকার চরম ফ্যাসিবাদী সরকার। আইয়ুব খান ও এরশাদের স্বৈরাচারী শাসনকে এ সরকার হার মানিয়েছে। গতকাল রাজধানীর সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৫তম জন্মদিন উপলক্ষে স্বেচ্ছাসেবক দল এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।
মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করছি। দলমত-নির্বিশেষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করে গণ-আন্দোলন সৃষ্টি করব, যার মধ্য দিয়ে খালেদা জিয়া মুক্ত হবেন এবং গণতন্ত্র মুক্তি পাবে। আমাদের বিশ্বাস যে এটা হবেই। কখনোই ফ্যাসিবাদ চিরকালের জন্য টিকে থাকতে পারে না। তিনি বলেন, এটা ফ্যাসিবাদ, কিচ্ছু নেই। একজন, এক ব্যক্তি। কখনোই ফ্যাসিবাদ চিরকালের জন্য টিকে থাকতে পারে না।
দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বিএনপির মহাসচিব বলেন, সব ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে, বিভ্রান্তি ভুলে গিয়ে, নিজেদের মধ্যে কোনো রকম দ্বিধা সৃষ্টি না করে পাহাড়ের মতো একতাবদ্ধ হয়ে শক্তিশালী হতে হবে।
বিএনপির কারাবন্দী চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়া নিজের জন্য কারাগারে নয়। দেশের গণতন্ত্রের জন্য। একই ধরনের মামলায় মন্ত্রী-সাংসদেরা জামিন পেলেও খালেদা জিয়াকে জামিন দেওয়া হচ্ছে না। হতাশ হওয়ার কিছু নেই। নেলসন মেন্ডেলা ২৭ বছর জেলে ছিলেন। আমাদের পাশের দেশ, যাদের সাথে আমাদের সম্পর্ক অত্যন্ত খারাপ সেই মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি ২২ বছর গৃহবন্দি ছিলেন। শেষ পর্যন্ত গণতন্ত্রের মুক্তি হয়েছে, গণতন্ত্রের জয় হয়েছে।
মির্জা ফখরুল বলেন, মানুষ চায় বর্তমান সরকার যেন এখনই চলে যায়। দ্রব্যমূল্য বাড়ায় সাধারণ মানুষের জীবন দুঃসহ হয়ে যাচ্ছে। তিনি অভিযোগ করেন, সরকারদলীয় লোকজন সবকিছু খেয়ে ফেলছে। দেশ ধ্বংস করে দিচ্ছে। এই সরকারের একটাই মাত্র উদ্দেশ্য- যেকোনোভাবে ক্ষমতায় থেকে শুধুমাত্র লুটপাট করা। নিজেরা বিত্তশালী হওয়া এবং সেই বিত্তের টাকা বিদেশে পাচার করা।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, দূর থেকে তারেক রহমান মানুষের গণতন্ত্রের জন্য কাজ করছেন, তাই তিনি আশার আলো দেখতে পান। অনেকের মধ্যে যখন হতাশা, ভীতি কাজ করছে, তখন তারেক রহমান দূর থেকে তৃণমূলের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।
ফখরুল বলেন, জিয়াউর রহমান যেরকম কৃষকের কাছে, ওই খেটে খাওয়া মানুষের পাশে থেকে রাজনীতি শুরু করেছেন, ঠিক তারেক রহমান একইভাবে তার রাজনৈতিক জীবন শুরু করেছেন। আজকে যখন আমাদের অনেকের মধ্যে হতাশা কাজ করছে ভয়-ভীতি ত্রাস কাজ করছে, তখন দেশনায়ক তারেক রহমান সেই সুদ‚র থেকে লালমনিরহাটের এক নেতাকে ফোন দিয়ে বলছেন- কেমন আছেন? ভালো আছেন তো? সাহস হারাবেন না আমরা সবাই আছি। অনেকে মনে করে তারেক রহমান শুধু স্কাইপে নেতাদের সাথে কথা বলেন, আসলে না। তিনি তৃণমূলের প্রত্যেকটি নেতাকর্মীর খোঁজখবর নেন। এভাবে তিনি পুরো জাতিকে উজ্জীবিত করছেন। আমরা এতো হতাশার মধ্যেও তারেক রহমানের নেতৃত্বের মধ্যে আশার আলো দেখতে পাই এবং সেই নেতৃত্ব আমাদের ইনশাআল্লাহ মুক্তির পথ দেখাবে।
স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি শফিউল বারী বাবুর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভ‚ঁইয়া জুয়েলের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন, শওকত মাহমুদ, যুগ্ন মহাসচিব হাবিব উন নবী খান সোহেল প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ