Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

বিএনপি নেতাকর্মী-পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাইকোর্টের সামনে বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে বিএনপি। জাতীয়তাবাদী মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম দলের ব্যানারে আয়োজিত এ কর্মসূচির একপর্যায়ে বাঁধা দেয় পুলিশ। এসময় পুলিশের সঙ্গে বিএনপি নেতাকর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করেন বিএনপি কর্মীরা। পুলিশ টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। পুলিশের ধাওয়ায় এক পর্যায়ে ছত্রভঙ্গ হয়ে যান বিএনপি নেতাকর্মীরা। এরআগে গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১২টার দিকে বিএনপি নেতাকর্মীরা প্রেসক্লাবের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন। সুপ্রিম কোর্টের মূল ফটকের সামনে এসে অবস্থান নেন তারা। এসময় অনেকে রাস্তায় শুয়ে পড়েন।

তারা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। সময় বাড়ার সাথে সাথে নেতাকর্মীদের ভীড় বাড়তে থাকে। বেলা দুইটার দিকে পুলিশ বিক্ষোভে বাধা দেয়। এসময় পুলিশের সঙ্গে নেতাকর্মীদের বাকবিতন্ডা হয়। পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ধাওয়া দেয়। বিক্ষোভককারীরা ইট পাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর করেন তারা। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ, শওকত মাহমুদ, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মোহাম্মদ আবু জাফর, ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, সাদেক আহমেদ খান প্রমূখ।

অবস্থান কর্মস‚চি চলাকালীন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে হাজার হাজার নেতাকর্মী ঘর ছেড়ে রাজপথে নেমেছে। আমরা কোনও অসাংবিধানিক কাজ করছি না। রাজপথই আমাদের ঠিকানা। যতক্ষণ পারি ততক্ষণ অবস্থান করবো। তিনি বলেন, আজকে রাস্তায় নামাটা অসাংবিধানিক নয় এবং আইন বিরোধীও নয়। জনগণ রাষ্ট্রক্ষমতার মালিক হওয়া সত্তে¡ও সকল কিছু থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। দেশে বর্তমানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামছাড়া ঊর্ধ্বগতি। পেঁয়াজ, চাল, তেল জনগণের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে চলে যাচ্ছে। এসকল বিষয় নিয়ে আমাদের বিরোধীদলের আন্দোলন করার অধিকার আছে। জনগণের অধিকার ফিরিয়ে দেয়ার জন্য আন্দোলন করার অধিকার আমাদের আছে।

সরকারকে উদ্দেশ্যে নোমান বলেন, অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিন। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য ক্রমক্ষমতায় নামিয়ে আনুন। এবং দেশ চালাতে ব্যর্থতার দায় নিয়ে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে পুননির্বাচন দিন।
এসময় তিনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর উদ্দেশ্যে বলেন, আমরা আন্দোলন, মিছিল ও অবস্থান কর্মসূচি করছি। এটা সংবিধান বহির্ভ‚ত নয়। তাই আপনাদেরকে আহ্বান জানাবো- আমাদের নেতাকর্মীদেরকে বাধা না দিয়ে আমাদের কর্মসূচি পালন করতে দিন। আপনাদের কাছ থেকে কোনও ধরনের উস্কানি প্রত্যাশিত নয়।

এর আগে সকল নেতাকর্মী ও জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ‘ন্যায়-নীতির দিক থেকে যতক্ষণ না পর্যন্ত বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে ততক্ষণ পর্যন্ত চলুন রাজপথে সর্বাত্মক আন্দোলন গড়ে তুলি। চলুন একযোগে রাজপথে নামি। তিনি বলেন, আজ দেশের যে অবস্থা তাতে মুক্তিযুদ্ধের গৌরব ভূলুণ্ঠিত হয়ে গেছে। মুক্তিযোদ্ধাদের সেই গৌরব ফিরিয়ে আনতে হলে এবং বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চাইলে রাজপথে নামতে হবে। জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে রণাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাদের উদ্যোগে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, অবৈধ সরকারের পদত্যাগ ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে মুক্তিযোদ্ধা-জনতা সংহতি সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, বিচারপতিরা অনেক আগেই সাহস হারিয়ে ফেলেছে। দেশকে শোধরানোর দায়িত্ব শুধু বিচারপতিদের হাতে দিলে হবে না। কারণ উনারা উনাদের বিবেক অনেক আগেই হারিয়ে ফেলেছে। ৫ জন বিচারপতিও একসাথে বসে বলতে পারলেন না- ‘মানবিক কারণে খালেদা জিয়ার জামিন অনেক আগেই দেওয়ার উচিত ছিল’।

তিনি আরও বলেন, ‘বিচারপতিদের এই সাহস জোগানোর জন্য আমাদের একটাই কাজ করতে হবে। আমাদের সবাইকে রাজপথে হাজির হতে হবে। রাজপথে হাজির হয়ে হাইকোর্টের চতুর্দিকে দাঁড়িয়ে বলতে হবে- মানবিক কারণেই হোক আর যে কারণেই হোক বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তাহলেই বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে।

মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপির স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন একাংশের সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও কাদের গনি চৌধুরী প্রমূখ।##



 

Show all comments
  • MD Monna ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪০ এএম says : 0
    আমরা পুলিশ দের বলতে চাই ওরা জেনো ভাল কাজে বাধা না দেয়
    Total Reply(0) Reply
  • Mahi Husain ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪১ এএম says : 0
    এই সরকারের সাথে সাথে এই পুলিশ বাহিনীর নাম যেন ....পুলিশ নামটাই আজ কলংকিত হয়ে গেছে, পুলিশ নামটা শুনলে
    Total Reply(0) Reply
  • নাসিম ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৪ এএম says : 0
    জনগণের ট্যাক্সের পয়সায় রিজিক যাদের তাদের মানুষের গায়ে হাত তুলতে হলে হিসেব করা দরকার।
    Total Reply(0) Reply
  • তরুন সাকা চৌধুরী ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৪ এএম says : 0
    পুলিশকে সহনশীল হতে হবে, তারা কোনো দলীয় বাহিনী না।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম চঞ্চল ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৫ এএম says : 1
    বিএনপি এখন একটা অসহায় দল, ওদের ওপর টেয়ারশেল মারা মানায় না। ওদেরতো এমনতেই কিছু করার ক্ষমতা নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • সত্য বলবো ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:৪৬ এএম says : 0
    পুলিশ মনে হয় সরকারের চেয়ে বেশি আওয়ামী লীগার হয়ে গেছে। না হলে আগবাড়ায়ে কাম করে কেন???
    Total Reply(0) Reply
  • Rasel ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৩:৩৯ এএম says : 0
    কঠিন আন্দোলন চাই।
    Total Reply(0) Reply
  • * মজলুম জনতা * ২৭ নভেম্বর, ২০১৯, ৮:০৮ এএম says : 0
    মনে রাখতে হবে,এ দেশ গনতান্ত্রিক,সবার গনতান্ত্রিক অধিকার আছে।রাজনিতি ও কথা বলার অধিকার দিতে হবে। আন্দলন করেই অধিকার আদায় করতে হয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ