Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

লেভান্দোভস্কির ইতিহাস

শেষের নাটকীয়তায় রিয়াল-পিএসজি ম্যাচ ড্র

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

গোলপোস্টের সামনে চীনের প্রাচীর হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন কেইলর নাভাস। সেই প্রাচীর ভেঙে জয়ের সম্ভাবনাও তৈরি করেছিল রিয়াল মাদ্রিদ। কিন্তু এক ভুলের সুযোগ কাজে লাগিয়ে দুই মিনিটের মাথায় গোল ব্যবধান কমায় প্যারিস সেন্ট জার্মেই। দ্বিতীয় গোল পেতেও তিন মিনিটের বেশি সময় নেয়নি টমাস টুখেলের দল। শেষের নাটকীয়তায় মূল্যবান একটি পয়েন্ট নিশ্চিত করে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হলো প্যারিসের দলটি।

সান্তিয়াগো বার্নব্যুতে পরশু চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ‘এ’ গ্রুপের হাইভোল্টোজ ম্যাচটি ২-২ ড্র হয়েছে। করিম বেনজেমার জোড়া গোলের পর ব্যবধান কমান কিলিয়ান এমবাপে। খানিক পরই সমতা টানেন পাবলো সারাবিয়া। ম্যাচের মূল নাটকীয়তা শুরু হলো খেলা শেষ হওয়ার মিনিট দশেক আগে। রিয়াল যখন তেড়েফুঁড়ে একের পর আক্রমণে পিএসজির রক্ষণ ছিন্নভিন্ন করে ২-০ গোলে এগিয়ে তখন। ৮১তম মিনিটে হড়বড় করে ফেলা কোর্তোয়াকে ফাঁকি দেন এমবাপ্পে এর মিনিট দু-এক পর দুর্দান্ত এক গোলে ফরাসি ক্লাবটিকে সমতায় ফেরান সারাবিয়া।

এরআগে দ্বিতীয়ার্ধে শুরুতেই নেইমারকে মাঠে নামান টুখেল। নেইমারের দু-একটি শট সম্ভাবনা তৈরি করলেও পরীক্ষায় ফেলতে পারেনি কোর্তোয়াকে। ৭৭ মিনিটে ভালভার্দেকে তুলে মাঝমাঠে মডরিচকে নামান জিদান। নেমেই ঝলক দেখান রিয়ালের এই ক্রোয়াট মিডফিল্ডার। মাঝমাঠ থেকে একাই বল টেনে আনেন। মডরিচের লম্বা করে বাড়ানো বল পান ইসকো। ইসকো বল বাড়িয়ে দেন মার্সেলোর দিকে। রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান এই ডিফেন্ডারের হাওয়ায় ভাসানো শট মাথা ছুঁয়ে জালে জড়ান বেনজেমা।

প্রথমার্ধে ম্যাচের ১৭ মিনিটেই জিদান শিষ্যদের হঠাৎ আক্রমণে তছনছ হয়ে যায় পিএসজির রক্ষণ। ভালভার্দে-কার্বাহাল ওয়ান টু ওয়ান পাসে ডান প্রান্ত দিয়ে বল নিয়ে অতিথিদের সীমানায় আক্রমণে ওঠে। হুট করেই ভালভার্দে বল বাড়ান ইসকোর দিকে। ইসোকোর বুলেটগতির শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। কিন্তু জায়গা মতো ছিলেন বেনজেমা। রিয়ালের এই ফরাসি তারকাই পিএসজির বুকে ছুরিটা চালিয়ে বসেন। এরপর খেলায় ফিরে বলের দখল নিয়ে খেলার চেষ্টা করে টুখেলের শিষ্যরা। কিন্তু কিছুতেই আর কিছু হয়নি।

এই ম্যাচে দুজনের কথা না বললে নির্ঘাত অন্যায় হবে। দুই দলের দুই গোলরক্ষক-কোর্তোয়া ও নাভাস। দুর্দান্ত সব সেভ করেছেন তারা দুজনই। এই দুই গোলরক্ষক না থাকলে দুই দলই আরও বার কয়েক হতাশায় পুড়তেন নিশ্চিত। এমন সব অবিশ্বাস্য সেভ করেছেন কোর্তোয়া-নাভাসরা সত্যি অসাধারণ। কতবার যে নিজেদের দলকে বাঁচিয়েছেন তারও ইয়ত্তা নেই।
পাঁচ ম্যাচে চার জয় ও এক ড্রয়ে পিএসজির পয়েন্ট ১৩। দুটি করে জয় ও ড্রয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ রানার্সআপ রিয়াল। গ্রুপের অন্য ম্যাচে গালাতাসারেই’র মাঠে ১-১ ড্র করায় ক্লাব ব্রুজের পরের রাউন্ডে ওঠার আশা শেষ হয়ে গেছে, ৩ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছে তারা। গালাতাসারেইয়ের পয়েন্ট ২।

লিগেও আরেক ম্যাচে আবারও এক ম্যাচে চার গোল করেছেন পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ট লেভান্দোভস্কি। আর এই চার গোল করেই রেকর্ড বইতে বসেছেন মেসির পাশে। তার এই রেকর্ডের দিনে রেড স্টার বেলগ্রেডকে ৬-০ ব্যবধানে হারিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। ১৪ মিনিট ৩১ সেকেন্ডের মধ্যে করে ফেললেন এক হালি গোল। চ্যাম্পিয়নস লিগে এত তাড়াতাড়ি চার গোল করার রেকর্ড খোদ মেসিরও নেই! লেভান্দোভস্কি চার গোলের আগে পরে লিওন গোরেতজকা ও কোরেন্তিন তোলিসোর একটি করে গোল মিলিয়ে রেড স্টার বেলগ্রেডকে আধ ডজন গোলের মালা পরিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। এই চার গোল মিলিয়ে তার চ্যাম্পিয়নস লিগে গোল দাঁড়াল ৪৬টিতে, আর এতেই বায়ার্ন মিউনিখের ইতিহাসে চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়ে গেছেন এই পোলিশ তারকা।

ঘরের মাঠে শাখতার দোনেৎস্কের বিপক্ষে ইতিহাদ স্টেডিয়ামে শাখতারের বিপক্ষে ১-১ ড্র করে ম্যানচেস্টার সিটি। এ নিয়ে গ্রুপ পর্বে টানা দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট ভাগাভাগি করল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়নরা। পাঁচ ম্যাচে তিন জয় ও দুই ড্রয়ে ১১ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ম্যানচেস্টার সিটি। শাখতার দোনেৎস্কের অর্জন ৬ পয়েন্ট। আতালান্তার বিপক্ষে ২-০ গোলে হারা জাগরেবের পয়েন্ট ৫। ৪ পয়েন্ট নিয়ে সবার নিচে আতালান্তা।

তবে একই রাতে অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদকে নিজেদের মাঠ আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় ১-০ গোলে হারিয়ে গ্রুপ সেরা হয়ে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলোয় উঠেছে জুভেন্টাস। পাউলো দিবালার দারুণ গোলে এগিয়ে যাওয়া পরে আর ব্যবধান বাড়াতে পারেনি ইতালির দলটি। দুটি করে জয়, হার ও এক ড্রয়ে ৭ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে থাকা অ্যাটলেটিকোরও সুযোগ আছে গ্রুপ পর্ব পেরুনোর।

এক নজরে ফল
লোকোমোটিভ মস্কো ০-২ লেভারক্যুজেন
গালাতাসারেই ১-১ ক্লাব ব্রুগ
জুভেন্টাস ১-০ অ্যাট. মাদ্রিদ
আতালান্তা ২-০- দিনামো জাগরেব
ম্যানসিটি ১-১ শাখতার দোনেৎস্ক
রেড স্টার ০-৬ বায়ার্ন মিউনিখ
টটেনহ্যাম ৪-২ অলিম্পিয়াকোস
রিয়াল মাদ্রিদ ২-২ পিএসজি

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইতিহাস

১৫ আগস্ট, ২০২০
৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০
২৮ জানুয়ারি, ২০২০
২৮ নভেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন