Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

চোখ রাঙাচ্ছে আফগানিস্তানও!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের উন্নতির গ্রাফ যেমন উর্ধ্বমুখী। ঠিক তেমনি টেস্ট ক্রিকেটে অবনতির গ্রাফ আরো বেশি নি¤œগামী। কোন টেস্ট ম্যাচ জেতেনি দল এই বছর। পাঁচ টেস্টের সবকটিতেই হেরেছে। এর মধ্যে আবার চার টেস্টে হার ইনিংস ব্যবধানে! ক্রিকেট খেলার পারফরমেন্সের ওপর নির্ভর করে তৈরি হয় র‌্যাংঙ্কিং। ২০০০ সালে টেস্টে অভিষেকের পর এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ দল কখনোই উঠতে পারেনি নয়ের উপরে। এখন সেখান থেকেও ছিটকে পড়ার আশঙ্কা উঁকি দিচ্ছে। র‌্যাংঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের ঘাড়ে নিশ্বাস ফেলছে টেস্ট ক্রিকেটের নবাগত দল আফগানিস্তান।

শুধু মাঠের ক্রিকেটে তো বটেই, এখন র‌্যাঙ্কিংয়েও বাংলাদেশকে পেছনে ফেলার সুযোগ আফগানিস্তানের সামনে! ভারতের লক্ষ্মৌতে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে গতকাল থেকে সিরিজের একমাত্র টেস্ট খেলতে নেমেছে আফগানিস্তান। এই ম্যাচে আফগানিস্তান যদি জিতে যায় তাহলে তাদের রেটিং দাঁড়াবে ৭১ পয়েন্টে। তখন আফগানিস্তান র‌্যাঙ্কিংয়ে উঠে আসবে ৯ নম্বরে। বাংলাদেশ পিছলে চলে যাবে ১০ নম্বর পজিশনে। যদি আফগানিস্তান এই ম্যাচ ড্র’ও করে তাহলেও র‌্যাঙ্কিং পজিশনে তাদের নাম থাকবে বাংলাদেশের ওপরে। লক্ষ্মৌ টেস্ট ড্র হলেও আফগানিস্তানের রেটিং পয়েন্ট ৬১ তে পৌছাবে। বর্তমানে টেস্ট খেলা ১২ দেশের মধ্যে আফগানিস্তানের রেটিং পয়েন্ট ৫৫, র‌্যাঙ্কিং ১০।। তিন টেস্টে খেলা আফগানিস্তানের জয় দুটিতে। যার সর্বশেষ জয় আবার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের মাটিতেই!

ভারতের বিরুদ্ধে সর্বশেষ দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের বাংলাদেশের বড় হার তাদের র‌্যাঙ্কিংয়ে কোন উন্নতি আনেনি। ৬০ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে ৯ নম্বরে আটকে আছে বাংলাদেশ। লক্ষ্মৌর টেস্টে তাই মাঠে না থেকেও আছে মুমিনুলরা। টাইগার সমর্থকেরা মনপ্রান দিয়ে চাইবে ওয়েসট ইন্ডিজের জয়।
টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেকের পর থেকে ২০০৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বাংলাদেশ টেস্ট র‌্যাংঙ্কিংয়ে সর্বনিম্ন ১০ নম্বরেই অবস্থান করে। ২০০৬ সালের জানুয়ারিতে আইসিসি’র টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের উন্নতি হয়। ১০ থেকে তারা ৯ নম্বরে উঠে আসে। আগের বছর জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচ জয়ের সুবাদে র‌্যাংঙ্কিংয়ে বাংলাদেশের এই উন্নতি ঘটে। কিন্তু সেই উন্নতি মুলত সেখানেই আটকে থাকে।

জিম্বাবুয়ে একসময় তিন বছরের জন্য টেস্ট ক্রিকেট থেকে স্বেচ্ছায় নির্বাসিত থাকে। তখন ৯ দেশের টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল নবম। ২০১১ সালে জিম্বাবুয়ে টেস্ট ক্রিকেটে ফিরে আসে। আর হারারেতে প্রত্যাবর্তনের সেই ম্যাচেই তারা বাংলাদেশকে হারিয়ে দেয় ১৩০ রানে। সেই হারে বাংলাদেশ আরেকবার টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে সর্বনিম্ন অবস্থান ১০ নম্বরে ফিরে যায়।

জিম্বাবুয়ের কাছে সেই হারের পর বাংলাদেশ টেস্ট ক্রিকেটে উন্নতি করার জোরালো তাগিদ অনুভব করে যেন। সেই সময় থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত পরের ৪৩ টেস্টের মধ্যে বাংলাদেশ ১০টিতে জিতে এবং সমান সংখ্যক টেস্ট ড্র করে। প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কা, ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচে জয় পায় বাংলাদেশ। সেই জয়ে আবার র‌্যাঙ্কিংয়ে ৯ নম্বরে উন্নতি হয় দলের।

কিন্তু সেই অবস্থান আর উঠা হয়নি। এখন সেই অবস্থান থেকেও পিছলে পড়ার জোরালো আশঙ্কা! গতকাল উইন্ডিজের বিপক্ষে প্রথমে ব্যাট হাতে আফগানরা ১৮৭ রানে গুটিয়ে যায়। কিন্তু দিন শেষে শস্তিতে নেই ক্যারিবীয়রাও। দিনের শেষে তারা হারিয়েছে ২টি উইকেট। স্পিন স্বর্গে আজ আফগান স্পিনারদের মোকাবেলা করা সহজ কাজ হবে না ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য। বাংলাদেশের র‌্যাংঙ্কিংয়ের অধপতন থেকে বাঁচতে এখন আফগানিস্তানের হারের বিকল্প নেই। টেস্টে ক্রিকেটের একদম শুরুতে বাংলাদেশ কিছুটা হলেও লড়াই করতে পারতো জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে। আর আফগানরা! প্রতিটি দলকেই দেখিয়ে দিচ্ছে তাদের শক্তি ও বুদ্ধিমত্তা। এমন অবস্থা বিদ্যমান থাকলে সেদিন হয়তো দূরে নেই যেদিন আফগানদের সঙ্গে লড়াই করতেও হিমশিম খেতে হবে বাংলাদেশকে।

টেস্টে দলগুলোর অবস্থান
ক্রম দল ম্যাচ পয়েন্ট রেটিং
১ ভারত ৪২ ৫০৪৬ ১২০
২ নিউজিল্যান্ড ২৬ ২৮২৯ ১০৯
৩ ইংল্যান্ড ৪২ ৪৩৬৬ ১০৪
৪ দক্ষিণ আফ্রিকা ৩১ ৩১৭৭ ১০২
৫ অস্ট্রেলিয়া ৩৩ ৩২৭০ ৯৯
৬ শ্রীলঙ্কা ৪০ ৩৭৯৫ ৯৫
৭ পাকিস্তান ২৭ ২২৬৩ ৮৪
৮ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৩২ ২৫৭০ ৮০
৯ বাংলাদেশ ২৬ ১৫৬৬ ৬০
১০ আফগানিস্তান ৩ ১৬৫ ৫৫
১১ জিম্বাবুয়ে ৯ ১৪০ ১৬
১২ আয়ারল্যান্ড ৩ ০ ০

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আফগানিস্তান


আরও
আরও পড়ুন