Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

কুষ্টিয়ায় মৃত্যুর ১০ দিন পর কলেজ ছাত্র ইমনের মরদেহ উত্তোলন

কুষ্টিয়া থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ নভেম্বর, ২০১৯, ৩:৩৬ পিএম | আপডেট : ৪:১৭ পিএম, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯

কুষ্টিয়ার মিরপুরে ‘সমর্পণ মাদকাসক্তি, মানসিক চিকিৎসা সহায়তা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে’ নিহত ইমনের মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়া দাফনের ১০দিন পর আদালতের নির্দেশে কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে।
আজ শনিবার (৩০ নভেম্বর) বেলা ১১টায় মিরপুর গোবিন্দগুনিয়া গোরস্থান থেকে তার মরদেহ উত্তোলন করে পুলিশ।

আদালতের নির্দেশে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাসের উপস্থিতিতে কবর থেকে তার মরদেহ উত্তোলন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাস জানান, আদালতের নির্দেশে গোবিন্দগুনিয়া কবরস্থানে দাফন করা ইমনের কবর থেকে তার মরদেহটি ময়নাতদন্তের জন্য উত্তোলন করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে।

গত ১৯ নভেম্বর কুষ্টিয়ার মিরপুরে ‘সমর্পণ মাদকাসক্তি, মানসিক চিকিৎসা সহায়তা ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে’ মারা যায় কাদেরপুর গ্রামের এজাজুল আজিম রিপনের ছেলে কলেজ ছাত্র ইমন (২০)। ওই প্রতিষ্ঠানের সিসিটিভির ফুটেজে ইমনকে নির্যাতনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়লে বিষয়টি নিয়ে টনক নড়ে প্রশাসনের।

ভিডিও ফুটেজ দেখার পরে ২৭ নভেম্বর পাঁচজনকে আসামি করে মিরপুর থানায় একটি মামলা করে নিহত ইমনের চাচা শাজাহান আলী স্বপন। তিনি মামলায় আব্দুল মতিন, মিন্টু বিশ্বাস, হাবিবুর রহমান হাবিব, অশীত কুমার বিশ্বাস ও জিকু বিশ্বাসকে আসামী করেন।

মামলার দিন প্রতিষ্ঠানের মালিক আব্দুল মতিনসহ মিন্টু বিশ্বাস ও হাবিবুর রহমান হাবিবকে আটক করে পুলিশ এবং প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে উপজেলা প্রশাসন। সেই সাথে উক্ত প্রতিষ্ঠানে চিকিৎসাধীন ৯ জন রোগীর মধ্যে ৬ জন রোগীকে পরিবারের নিকট হস্তান্তর এবং বাকী তিনজনকে কুষ্টিয়াস্থ ‘ফেরা মাদক নিরাময় কেন্দ্রে’ প্রেরণ করে জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ