Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

শিশুর মৃত্যু- সেই ম্যাক্স হাসপাতালের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:২২ পিএম

চট্টগ্রামের বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালে নার্স-চিকিৎসকদের অবহেলায়, গাফিলতি ও ভুল চিকিৎসায় এক বছর এক মাস বয়েসী শিশু জিহান সারোয়ার প্রিয়র মৃত্যুর অভিযোগ করেছেন তার মা।
রোববার চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন বরাবরে দেয়া লিখিত অভিযোগে বেসরকারি ম্যাক্স হাসপাতালের অব্যস্থাপনার কথা তুলে ধরে এর প্রতিকার দাবি করেন ওই শিশুর মা নগরীর লালখান বাজারের বাসিন্দা মোহছেনা আক্তার ঝর্ণা। শিশুটির বাবার নাম শামীম সারোয়ার। এক ভাই, এক বোনের মধ্যে প্রিয় ছিল ছোট।
ঝর্ণা সিভিল সার্জনের কাছে দেওয়া অভিযোগে বলেন, গত ১৭ নভেম্বর তার এক বছর ২৪ দিন বয়েসী শিশু সন্তান জিহান সারোয়ার প্রিয় অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে নগরীর মেহেদীবাগের ম্যাক্স হাসপাতালের এনআইসিইউতে ভর্তি করাই। ভর্তির পর অনকলে চিকিৎসক সনৎ কুমার বড়ুয়াকে দেখালে তিনি ব্যবস্থাপত্র লিখে দেন।
তিনি বলেন, গত ২১ নভেম্বর দুপুরে আমার সন্তানকে মেশিনের মাধ্যমে ধীরে ওষুধ দেয়ার কথা থাকলেও অনভিজ্ঞ নার্স ওই ওষুধের শেষের অংশ হাত দিয়ে পুশ করেন। আর তখনই আমার সন্তান পৃথিবী থেকে চিরবিদায় নেয়।
এছাড়া বিভিন্ন পরীক্ষার রিপোর্ট হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাদের দেখতে দেয়নি দাবি করে তিনি বলেন, আমার সন্তানের চিকিৎসার বিস্তারিত তারা আমাদের দেয়নি।
ঝর্ণা বলেন, ছেলের মৃত্যুর কারণ জানতে চাই। তারা খুজে বের করুক। আধ ঘন্টা আগেও ছেলে সুস্থ ছিল। কোথায় ভুল ছিল সেটাই তারা বের করুক। আমি তো শূণ্য হয়েছি আর কেউ যেন শূণ্য না হয়।
এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি দৈনিক ইনকিলাবকে বলেন, অভিযোগটি গুরুতর, তদন্তে আমার নেতৃত্বে একটি তদন্ত কমিটি করব। ঘটনাটি পত্রিকায় আসার পরই তিনি একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিলেন জানিয়ে সিভিল সার্জন বলেন, ওই কমিটিতে যাকে প্রধান করা হয়েছিলো তিনি কমিটিতে থাকতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন।
উল্লেখ এর আগেও ওই হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় শিশু রাইফার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠে। ওই ঘটনায় গঠিত একাধিক তদন্ত কমিটি হাসপাতালের অনিয়মের প্রমাণ পায়।



 

Show all comments
  • ahammad ১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৪:৫০ পিএম says : 0
    বর্তমান সারাদেশে বেঙের চাতার মত প্যথলজি সেন্টার ও প্রাইভেট হাসপাতালের চড়ছড়ি। কমিশন বানিজ্যের কারনে অপ্রয়োজনীয় অনেক প্যাথলজি টেষ্ট রুগিদেরকে করাতে বাধ্যকরা হয়। নরমাল ডেলিভারীকে সিজারিয়ান করা হয়। এই নরপিষাস ডাঃ ও প্যাথলজি মালিককে কঠোর আইনের আওতায় আনার দাবী জানাচ্ছি। সাধারন রোগিরা আসহায়,আপ্রোজনীয় প্যাথলজি টেষ্ট ও অপ্রয়োজনীয় আজেবাজে কোম্পানীর ঔষধ ডাঃ লিখেদেন এইটা কেমন মানবতা ???
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অপচিকিৎসা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ