Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ আশ্বিন ১৪২৭, ০৬ সফর ১৪৪২ হিজরী

প্রশ্ন : যারা মোবাইলে টাকা লোড দেয়, তারা সাধারণত ১টাকা কম দেয়। ইসলামে এই ১টাকার হুকুম কি?

খাইরুল ইসলাম
ই-মেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৮:২৫ পিএম

উত্তর : এটি পরস্পরের সম্মতির সাথে যুক্ত। অপারগ অবস্থায় যদি প্রাপক এতে সম্মতি দেয়, তাহলে এই এক টাকা রিচার্জ ব্যবসায়ীর জন্য হালাল। আর যদি এক টাকার কয়েন কিংবা চকলেট দিয়ে হলেও ব্যবসায়ী স্বচ্ছ থাকতে চান, তাহলে এটি তার জন্য উত্তম। এখন বাধ্য হয়ে অধিকাংশ মানুষ এক টাকা ছেড়ে দেয় আর অপারেটররাও ব্যবসায়ীদের এক টাকা করে পাইয়ে দেওয়ার জন্য এমন কৌশলি রেট করেন। মানুষের অসন্তুষ্টিতে কৌশলে এভাবে টাকা রেখে দেওয়া মূলত জায়েজ নয়। কারণ, এখানে ১০/২০ বা ১০০ জনের কাছ থেকে এক টাকা করে রাখা হচ্ছে। দাতার সম্মতি না থাকলে এ টাকাগুলো হালাল হবে না। এরপরও বাধ্য হয়ে দেওয়া নেওয়া চলতে থাকলে একটি প্রচ্ছন্ন সম্মতি এসে যায়। সে বিচারে ব্যবসায়ী ও গ্রাহক সমঝোতা হয়ে গেলে হালাল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন

আমি শরিয়তের হুকুম আহকাম মোতাবেক চলার চেষ্টা করি। পারিবারিক বাধা সত্বেও দাড়ি টুপি ব্যবহার করছি। ১ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে করি। বিয়েতে আমি পরিপূর্ন শরিয়ত মানার চেষ্ঠা করেছি এতে পরিবারের সবাই নারাজ হয়। বড় বোন জামাইয়ের নারাজির কারণে মা-বাবাও খুশি নন। পর্দার খেলাফ এবং আমার কর্মক্ষেত্র দূরে হওয়ায় আমার স্ত্রীকে আমার কাছে নিয়ে আসি। এইজন্য আমার মা আমার প্রতি অসন্তুষ্ট। তিনি আমার স্ত্রীকে ফোনে গালিগালাজ করে। বড় ভাই নেশাগ্রস্থ ও অন্যান্য অপরাধের সাথে যুক্ত থাকার পরেও তারা তাকেই বেশী আশ্রয় প্রশ্রয় দেয়। মাস শেষে টাকা নেওয়ার জন্য ফোন করা ছাড়া আমার সাথে তারা কোনো যোগাযোগ রাখে না। এই অভিমানে আমিও যোগাযোগ কম করি এবং ৬ মাস যাবৎ বাড়ি যাওয়া বন্ধ করে দেই। এতে তাদের কোন ভ্রুক্ষেপ নেই। যদিও তাদের জন্য আমার কষ্ট হচ্ছে। এমতাবস্থায় আমার করণীয় কি?

উত্তর : তাদের জন্য আপনার কষ্ট হওয়াটা আপনার ভালো মানুষির চিহ্ন। এটি সন্তান হিসাবে, ভাই হিসাবে, পরিবারের সদস্য হিসাবে আপনার প্রশংসনীয় অনুভূতি। এটুকুর জন্য ইনশাআল্লাহ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ