Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার , ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ০৭ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

চৌদ্দ পুরুষকে নিয়ে পকেট কমিটি করা চলবে না

পটুয়াখালীতে ওবায়দুল কাদের

পটুয়াখালী জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, কর্মীরা ঠিক আছে। মঞ্চে যারা বসেন নেতারা তারা কমিটি গঠন করতে গিয়ে ঘরের মধ্যে ঘর করে, মশারির মধ্যে মশারি, আত্মীয়করণ করে চৌদ্দপুরুষকে নিয়ে আওয়ামী লীগের পকেট কমিটি করে, পকেট কমিটি চলবে না। পরিষ্কারভাবে জানিয়ে দিতে চাই কমিটি করতে যেয়ে দল ভারি করার জন্য খারাপ লোক টেনে আনবেন, এটা চলবে না। বসন্তের কোকিল আমরা চাই না, দু:সময়ের ত্যাগী কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে।

গতকাল বেলা ১২টায় পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। সম্মেলনে উদ্বোধক ছিলেন বাংলাদশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতা, পার্বত্য শান্তি চুক্তি বাস্তবায়ন কমিটির আহŸায়ক আলহাজ আবুল হাসনাত আবদুল্লাহ এমপি। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট মো. শাহজাহান মিয়া এমপির সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবুল আলম হানিফ এমপি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি আব্দুর রহমান, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আফজাল হোসেন, আন্তর্জাতিক সম্পাদক ড. সাম্মি আহমেদ, উপ দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়য়া, সদস্য গোলাম রাব্বানী চিনু। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাসিম। সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক চীফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি, মো. মহিব্বুর রহমান এমপি, কাজী কানিজ সুলতানা হেলেন এমপি, এসএম শাহজাদা এমপি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান মোহন মিয়াসহ জেলা ও উপজেলা আ.লীগের নেতৃবৃন্দ।

সেতুমন্ত্রী আরো বলেন, দেশকে, মুক্তিযুদ্ধকে, গণতন্ত্রকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হলে ত্যাগী কর্মীদেরকে বাঁচাতে হবে। বাংলাদেশের উন্নয়নকে বাঁচাতে হলে শেখ হাসিনাকে বারবার ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনতে হবে। উন্নয়ন ও অর্জনে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ছবি দেখিয়ে নেতা হওয়া যাবে না। ঢাকা মহানগরের নবগঠিত কমিটির কথা উল্লেখ করে বলেন, রাজপথে যারা বেশি পোস্টার প্রদর্শন করেছেন, যাদের বেশি বিলবোর্ড, যাদের বেশি ব্যানার, যাদের নামে বেশি সেøাগান তারা একজনও নেতা হয়নি, হতে পারেনি। সম্মেলন উপলক্ষে পটুয়াখালীর বিভিন্ন সড়কে নেতাদের প্লাকার্ড, পোস্টার, ব্যানার দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ টাকা অসুস্থ-অস্বচ্ছল আওয়ামী লীগ কর্মীদের জন্য খরচ করলে ভালো হতো।

সম্মেলনের প্রথম পর্ব শেষে সভাপতি পদে ৬ জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে ৮ জনকে একত্রে আলোচনা করে ঐক্যমতে আসার জন্য ২০ মিনিটি সময় দেন নেতৃবৃন্দ। কিন্তু ঐক্যমতে আসতে না পারায় আ.লীগ সভানেত্রীর সাথে বিদেশ সফরের পূর্বে পরামর্শক্রমে পটুয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের নতুন কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ৪ জনের নাম ঘোষণা করেন ওবায়দুল কাদের। নতুন কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ কাজী আলমগীর ও সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা ভিপি আব্দুল মান্নান। আর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হয়েছেন অ্যাডভোকেট গোলাম সরোয়ার ও মো. জিয়াউল হক জুয়েল। পূর্ণাঙ্গ কমিটি পরে ঘোষণা করা হবে।



 

Show all comments
  • ** মজলুম জনতা ** ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৭:২৮ এএম says : 1
    জনাব. আপনাকে ধন্যবাদ।আপনার এ সত্য কথা বলার জন্য।পটুয়াখালী জেলা নতূন কমিটি কে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ