Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৯ ফাল্গুন ১৪২৬, ২৭ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইতিহাস গড়ে সবার উপরে মেসি

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

প্যারিসে ইতিহাসই গড়লেন লিওনেল মেসি। প্রথম ফুটবলার হিসেবে জিতলেন ষষ্ঠবারের মতো ব্যালন ডি’অর। এত দিন সমান পাঁচবার করে পুরস্কারটি জিতেছিলেন মেসি ও ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। পরশু রাতে চিরপ্রতিদ্ব›দ্বীকে পেছনে ফেললেন বার্সেলোনা তারকা। রোনালদো ব্যালন ডি’অর অনুষ্ঠানে ছিলেন না। লিভারপুল ও ডাচ ডিফেন্ডার ভার্জিল ফন ডাইকের পর তৃতীয় হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে রোনালদোকে।

২০১৮-১৯ মৌসুমে আর্জেন্টিনা ও বার্সেলোনার হয়ে ৫৪ গোল করেন এ ফুটবল জাদুকর। বাঁপায়ের কারিশমায় বার্সাকে জিতিয়েছেন লালিগার শিরোপাও। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগজয়ী লিভারপুলের ফন ডাইক ভোটে দ্বিতীয় হন। ভোট তালিকায় শীর্ষ সাতে রয়েছেন লিভারপুলের চার ফুটবলার। ২০১৫ সালের পর প্রথম বর্ষসেরার এ পুরস্কার জিতলেন মেসি। গতবার ব্যালন ডি’অর জয়ী লুকা মদরিচের কাছ থেকে ট্রফিটা বুঝে নেন তিনি। গত ১১ বছর ধরে লা লিগার খেলোয়াড়েরাই জিতছেন ব্যালন ডি’অর। রিয়াল মাদ্রিদ মিডফিল্ডার মদরিচ গতবার জিতে মেসি-রোনালদোর এক দশকের আধিপত্যের অবসান ঘটান।

‘ফ্রান্স ফুটবল’ সাময়িকীর দেওয়া বর্ষসেরার এ ট্রফি জয়ের পর মেসি বলেন, ‘এটা আমার ষষ্ঠ ব্যালন ডি’অর। সম্প‚র্ণ অন্যরকম মুহ‚র্ত। আমার স্ত্রী বলে, কখনো স্বপ্ন দেখা থামিও না এবং কঠোর পরিশ্রম করো ও উপভোগ করো। আমি ভাগ্যবান। আরও অনেক দিন খেলে যেতে চাই। যদিও একদিন অবসর নিতেই হবে। এটা কঠিন হবে।’

ষষ্ঠবারের মতো ব্যালন ডি’অর জেতার পরও আরও অনেকদিন খেলে যাওয়ার কথা জানালেন মেসি। ৩২ বছর বয়সী মেসি কবে অবসর নিতে পারেন এ নিয়ে আলোচনাটা এখন উঠছে। তবে বার্সা সমর্থকদের আশ্বস্ত করলেন আর্জেন্টাইন তারকা, ‘ক্লাবের সবাই আমাকে জানে। এই ক্লাব নিয়ে আমার অনুভ‚তি (চুক্তিপত্র) সই কিংবা যেকোনো ভ‚মিকা ছাপিয়ে যায়। তাই কোনো সমস্যা নেই। অনেক আগেই বলেছি শরীরের সায় দেওয়ার ওপর সবকিছু নির্ভর করছে। তবে এখন শারীরিক ও মানসিকভাবে খুব ভালো লাগছে। আশা করি আরও অনেক দিন খেলতে পারব।’

রোনালদোর অনুপস্থিতি নিয়েও কথা বলেন মেসি। চিরপ্রতিদ্ব›দ্বীর না থাকাকে ইস্যু বানিয়ে আলোচনার খোরাক বানাতে চান না তিনি, ‘সে পারেনি বলেই আসেনি। এটা আলোচনার বিষয়বস্তু বানানো ঠিক হবে না।’

২০০৯ থেকে শুরু করে টানা চার বার বর্ষসেরা হয়েছিলেন মেসি। প্রথমবার পুরস্কারটা ছিল শুধু ব্যালন ডি’অর, পরের তিন বার নাম বদলে ফিফা ব্যালন ডি’অর। চার বছর পর ২০১৩ সালে মেসিকে সিংহাসন থেকে সরিয়ে সেখানে বসেছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। পরের বছরও ফুটবলের ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ এই পুরস্কারটা রিয়ালের পর্তুগিজ উইঙ্গারেরই ছিল। ২০১৫ সালে মেসি সেই সিংহাসন পুনরুদ্ধার করলে তার পরের দু’বার সেটি বগলদাবা করেন সিআরসেভেন। পর্তুগিজ সুপারস্টারের সঙ্গে আর্জেন্টাইন জাদুকরের এক দশকের আধিপত্যে প্রথম হানা দিয়ে গতবছর চমকে দিয়ে পুরস্কারটি ঘরে তুলেছিলেন লুকা মদ্রিচ। এবার সেরা ৩০ জনের তালিকাতেও স্থান হয়নি এই ক্রোয়েশিয়ানের।

এদিকে সেরা গোলকিপারের পুরস্কারটি গিয়েছে লিভারপুল এবং ব্রাজিলীয় গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারের ঝুলিতে। বার্সা গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টার স্টেগেন ও ম্যানচেস্টার সিটির এদারসনকে পেছনে ফেলে সেরার খেতাব বাগিয়ে নেন তিনি। ডিফেন্ডার ডাচম্যান মাতিয়াস ডি লিখট সেরা অন‚র্ধ্ব-২১ ক্যাটাগরিতে জিতেছেন কোপা ট্রফি। সেই সাথে সেরা নারী ফুটবলার হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবলার মেগান রাপিনো। ২০১৯ নারী বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের জন্য এর আগে তিনি জিতেছিলেন গোল্ডেন বল এবং গোল্ডেন শু। তাই এইবার ফিফা দ্যা বেস্ট নারী ফুটবলারের পুরস্কার জিতলেন এই ফুটবলার। অনুষ্ঠানে উপস্থিত না থাকলেও এক ভিডিও বার্তায় সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
জানিয়ে রাখা ভালো যে, ১৯৯১ সাল থেকে ফিফা বিশ্ব বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার দিয়ে আসছে ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা ফিফা। ২০১০ সাল থেকে সেটিই পরিবর্তিত হয় নামকরণ করা হয় ফিফা ব্যালন ডি’অর।

গত ১১ বারের বিজয়ীরা
ফিফা বর্ষসেরা
২০০৯ লিওনেল মেসি
একীভ‚ত ফিফা ব্যালন ডি’অর
২০১০ লিওনেল মেসি
২০১১ লিওনেল মেসি
২০১২ লিওনেল মেসি
২০১৩ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো
২০১৪ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো
২০১৫ লিওনেল মেসি
ফিফা দ্য বেস্ট ও ব্যালন ডি’অর
২০১৬ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো
২০১৭ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো
২০১৮ লুকা মদ্রিচ
২০১৯ লিওনেল মেসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেসি

১৫ জানুয়ারি, ২০২০
২ জানুয়ারি, ২০২০
২ অক্টোবর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন