Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে দীর্ঘদিন শাসন করা যাবে না- মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৫:০৩ পিএম

সরকারের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে দীর্ঘ সময় দেশ শাসন করা যাবেনা। সরকারের এই বোধোদয়ের এখনও সময় আছে। অনৈতিক কর্মকান্ড ও ভয়াবহ দুঃশাসনের কারণে ভয়াবহ ইমেজ সংকটে নিপতিত বর্তমান সরকারের ফ্যাসিবাদী আচরণ তাদেরকে ক্রমেই আরো জনবিচ্ছিন্ন করে তুলছে। সরকার এ সত্যটি যত দ্রুত অনুধাবন করতে সক্ষম হবেন তাদের জন্য সেটিই হবে মঙ্গল।

বুধবার (৪ ডিসেম্বর) চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী সিরাজুল্লাহকে গ্রেফতার অন্য ১৭ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবী মামলা দায়েরের ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি একথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সরকার দেশের আইন কানুন ও বিচারিক ব্যবস্থাকে করায়ত্তে¡ নিয়ে বিএনপি এবং বিরোধী দলগুলোর নেতাকর্মীদেরকে কারাদন্ডে দণ্ডিত করছে, রাজনৈতিক বন্দীকে সময়মত মুক্তি না দিয়ে নানা টালবাহানায় তাদের আটকে রাখছে এবং এরপরেও কেউ জামিন নিয়ে মুক্তিলাভ করলেও কারাফটক থেকে নিত্য-নতুন সাজানো মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে পুনরায় আটক করে তাদের জেলে পুরছে। আমরা এ ধরনের বেআইনী কর্মকান্ড থেকে বারবার সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানালেও নিজেদের অস্তিত্বের প্রশ্নে সরকার তাতে কর্ণপাত না করে আরো বেপরোয়া ও হিংস্র হয়ে উঠেছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা যখন সাংবিধানিক অধিকার হিসাবে স্বীকৃত রাজনৈতিক কর্মসূচিগুলো শান্তিপূর্ণভাবে পালনের উদ্যোগ নিচ্ছি এবং আমাদের দলকে তৃণমূল পর্যায় থেকে পূণর্গঠনের মত সাংগঠনিক কর্মসূচি নিয়ে এগুচ্ছি তখন সরকার বিএনপি’র বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে নিত্য-নতুন মিথ্যা মামলায় আটক করছে, মিথ্যা ও গায়েবী মামলা দায়ের করছে, পুরনো মিথ্যা মামলায় চার্জ গঠন করে চার্জশীট প্রদান করছে এবং কারাদন্ডে দন্ডিত করছে। এর মূল লক্ষ্যই হলো বিএনপি-কে দুর্বল করে কোনভাবেই সাংগঠনিক কাজ করতে না দেয়া।

তিনি বলেন, প্রতিহিংসাপরায়ণ বর্তমান সরকারের ইশারায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গাজী সিরাজুল্লাহকে গ্রেফতার অন্য ১৭ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও গায়েবী মামলা দায়ের করা হয়েছে। মির্জা ফখরুল এই ঘটনায় নিন্দা জানান এবং অবিলম্বে সিরাজুল্লাহসহ ১৭ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মিরাজুল্লার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মির্জা ফখরুল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ