Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

এবার মিয়ানমার ছাড়ছে মন জাতিগোষ্ঠীর মানুষ

রাখাইনে ফেরিতে হামলার দায় স্বীকার আরাকান আর্মির

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে এবার মিয়ানমার ছাড়ছেন মন জাতিগোষ্ঠীর মানুষ। তারা থাইল্যান্ডে শরণার্থী ক্যাম্পে আশ্রয় নিচ্ছেন বলে দ্য বর্ডার কনসোর্টিয়াম নামের এনজিও জানিয়েছে। থাইল্যান্ডের সরকারও মনদের দু’টি ক্যাম্পে আশ্রয় নেওয়ার কথা স্বীকার করেছে। সম্প্রতি কিছুদিন ধরে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে নিউ মন স্টেট পার্টির যোদ্ধাদের সঙ্গে সংঘর্ষ চলছে। গত রবিবারও দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। গত সপ্তাহ থেকে মন জাতিগোষ্ঠীর পরিবার পালাতে শুরু করে বলে এনজিওটি জানিয়েছে। সংস্থাটি জানিয়েছে, থাইল্যান্ডের তাও তান ক্যাম্পে ৭০০ ও সোংকালিয়া ক্যাম্পে ১৭০ জন আশ্রয় নিয়েছেন। আরো অনেকে রাবার বাগান এলাকায় লুকিয়ে আছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। মিয়ানমারের রাখাইনে একটি ফেরিতে হামলার দায় স্বীকার করেছে সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান আর্মি। সোমবার এই সংগঠনের মুখপাত্র বলেছেন, সেনাবাহিনীকে কালাদান নদী ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না। মিয়ানমার টাইমস’র এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানা গেছে। সেনাবাহিনী পরিচালিত মিয়াবতী সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, মেরিন প্রিন্সেস নামের ফেরিতে করে সেনাবাহিনীর পাঁচটি ভারী যন্ত্রপাতি নদী পথে নেওয়া হচ্ছিল। পথে টিনমা গ্রামে পৌঁছার পর ফেরিটির ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়ে। এ সময় আরাকান আর্মি ফেরিটি লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে এবং ক্রুদের বন্দি করে। গুলিতে ফেরি ও যন্ত্রপাতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হামলাকারীরা ক্রুদের ছেড়ে দিয়েছে তবে চারটি মোবাইল ফোন ও ২০০ ডলার নিয়ে গেছে। সেনাবাহিনী বলেছে, নিরাপত্তাবাহিনীর অনুমতি ছাড়াই ফেরিটি যাতায়াত করছিল। ফলে তারা নিরাপত্তা দিতে পারেনি। মিয়ানমার সেনাবাহিনী দাবি করেছে, মার্চ থেকেই আরাকান আর্মি চোরাগুপ্তা হামলা চালাচ্ছে সরকারি প্রকল্প ও শ্রমিকদের লুট করতে। সেনাবাহিনীর প্রকল্প ও কর্মরতদের সুরক্ষা দিতে অতিরিক্ত সেনা সদস্য মোতায়েন করা হবে। তবে আরাকান আর্মির মুখপাত্র এই অভিযোগ অস্বীকার করে দাবি করেছেন, আমরা কিছুই নেই। ২০০৯ সালে প্রতিষ্ঠিত আরাকান আর্মির সদস্যদের বেশিরভাগই রাখাইন জাতিগোষ্ঠীর। মিয়ানমারের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে তারা রাখাইনের আরও বেশি স্বায়ত্তশাসন দাবি করে আসছে। মিয়ানমার টাইমস।

 

 



 

Show all comments
  • Folo Bon ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৫ এএম says : 0
    মিয়ারমাকে একটি উপযুক্ত শিক্ষা দেওয়া হোক, মিয়ারমার চিন যোগ তেল বেশি হয়েগেছে..?
    Total Reply(0) Reply
  • Shah Hannan ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    মিয়ানমার কি জিতীসংঘের ঊর্ধ্বে !
    Total Reply(0) Reply
  • MD Saiful Islam ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    মিয়ানমার সারা বিশ্বকে বৃদ্ধা আঙুল দেখাচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Sabina Yeasmin ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৬ এএম says : 0
    বাংলাদেশে আসবে, আমরা কই যাবো?
    Total Reply(0) Reply
  • Md Shafiul Islam ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৭ এএম says : 0
    ভাই ওরাও কি বাংলাদেশে আসবে?
    Total Reply(0) Reply
  • Top Fan ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৮ এএম says : 0
    আসিফ হাসান মগের মুল্লুক কথাটা এম্নিতেই আসেনি,অসভ্য,বর্বর,
    Total Reply(0) Reply
  • MD Saiful Islam ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৮ এএম says : 0
    মিয়ানমার সারা বিশ্বকে বৃদ্ধা আঙুল দেখাচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Mabrur Abir ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৮ এএম says : 0
    What's the problem with this barbaric nation? ? আজ রোহিঙ্গা,কাল শান, পরশু কাচিন - এরা কি জাতিগত ভাবেই বর্বর নাকি ?
    Total Reply(0) Reply
  • নবাব সিরাজউদ্দোলা ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৩৮ এএম says : 0
    যাচ্ছে কোথায়?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রাখাইন

১৮ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ