Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার , ২৪ জানুয়ারী ২০২০, ১০ মাঘ ১৪২৬, ২৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

মেয়র আইভীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে মামলা, শামীম ওসমান ইন্ধনদাতা

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৬:২১ পিএম

শহরের বঙ্গবন্ধু সড়কে ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী ও তার সমর্থকদের ওপর হামলার ২২ মাস ১৮ দিন পর আদালতে মামলা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ আদালতের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ফাহমিদা খাতুনের আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।
মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ এনে বুধবার (৪ ডিসেম্বর) বিকেলে সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে মামলাটি করেন।
নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, আদালত অভিযোগটি আমলে নিয়ে সদর মডেল থানাকে আইনগত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।
মামলায় ঘটনার দিন অস্ত্র প্রদর্শনকারী নিয়াজুল, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শাহ নিজামসহ ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত প্রায় ৯০০ থেকে ১০০০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে। এজাহারে অন্যরা হলেন- মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাৎ হোসেন সাজনু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিরুল আলম হেলাল, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জানে আলম বিপ্লব, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান সুজন, যুবলীগকর্মী নাসির উদ্দিন ওরফে টুন্ডা নাসির, যুবলীগ নেতা চঞ্চল মাহমুদ। মামলায় শামীম ওসমানকে ইন্ধনদাতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।
এই ঘটনায় এর আগে গত বছরের ২৩ জানুয়ারী সিটি করপোরেশনের আইন কর্মকর্তা জি এম এ সাত্তার বাদী হয়ে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়া হলেও তা মামলা হিসেবে নেয়া হয়নি।
উল্লেখ্য, ফুটপাতে হকার বসানোকে কেন্দ্র করে গত মঙ্গলবার নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়ায় মেয়র আইভী ও তার সমর্থকদের ওপর হকার ও সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের সমর্থকরা হামলা চালায়। সংঘর্ষে মেয়র আইভী, সাংবাদিকসহ শতাধিক আহত হন। এই ঘটনায় শামীম ওসমানের সমর্থক নিয়াজুল ইসলামকে প্রকাশ্যে অস্ত্র নিয়ে গুলি চালাতে দেখা যায়। পরে তিনি গণপিটুনির শিকার হন।এদিকে মামলা দায়েরের খবর ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ সকাল থেকেই শহরের চাষাড়া খাজা সুপার মার্কেটের সামনে জলকামান ও সাজোঁয়া যান নিয়ে সর্তকাবস্থান নেয়।
নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানা পুলিশের অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) বলছেন ভিন্ন কথা, তিনি বলেন, শামীম ওসমান ও তার অনুসারিদের মামলার ঘটনায় এমন প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে এটা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন কথা। খালেদা জিয়ার মামলার রায় হওয়ার কথা রয়েছে আজ। সে জন্য আগাম প্রস্তুতিমূলক এ ব্যবস্থা।
একই কথা জানালেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার (ডিএসবি) ডিআইও-ওয়ান মোমিনুল ইসলাম। তিনি বলেন, আজ খালেদা জিয়ার একটি মামলার রায় হওয়ার কথা রয়েছে। এজন্য বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পুরো জেলাজুড়েই আমরা নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করেছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আইভি

২৪ ডিসেম্বর, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ