Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ফুলকপির ভালো ফলনে চাঙ্গা গ্রামীণ অর্থনীতি

ইমাম হোসেন, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) থেকে | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম


মীরসরাইয়ে ফুলকপির বাম্পার ফলন হয়েছে। উপজেলার প্রত্যেকটি বাজারে অন্যান্য সবজির চেয়ে ফুলকপির মজুদ চোখে পড়ার মতো। দূর-দূরান্ত থেকে কৃষকেরা বাজারে ফুলকপি নিয়ে আসছেন। পাশাপাশি ভালো দাম পাওয়ায় কৃষকের মুখে ফুটে উঠেছে হাসি। মীরসরাই পৌর সদরের আমবাড়িয়া গ্রামের মাসুক মিয়া জানান, তিন একর জমিতে ফুলকপি চাষ করতে তার ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। এ পর্যন্ত ১৭ হাজার টাকা বিক্রি করেছেন। এভাবে তিনি আরও মাসখানিক ফুলকপি বিক্রি করবেন। সপ্তাহে তিন দিন জমি থেকে ফুলকপি তুলে উপজেলার পৌর সদরের হাটে নিয়ে বিক্রি করেন তিনি।
সরেজমিনে মীরসরাই সদর এলাকায় দেখা যায়, প্রতিদিন ভোর থেকে চাষিরা দলে দলে জমি থেকে ফুলকপি তুলে ফুলকপি ভর্তি ভার কাঁধে নিয়ে আসতে থাকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন বাজারগুলোতে। পাইকারি ব্যবসায়ীরা এখান থেকে কমমূল্যে কিনে ট্রাকযোগে বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যায়। বাজারে আসা খৈয়াছড়া ইউনিয়নের সবজি চাষি কামাল উদ্দিন জানান, এক বিঘা জমিতে ফুলকপি চাষ করেছি। দুইশ ফুলকপি হয়েছে। প্রতিটি পনের-বিশ টাকা ধরে বিক্রি করেছি। ফুলকপি উৎপাদন করতে যে টাকা খরচ হয়েছে আশা করছি এবার লোকসান হবে না।
উপজেলা কৃষি উপ সহকারী কাজী নুরুল আলম জানান, এ বছর ৬০ হেক্টর জমিতে ফুলকপির চাষ হওয়ার কথা রয়েছে। বর্তমানে ২৫ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। তবে উপজেলার দুর্গাপুর, খৈয়াছড়া, আমবাড়িয়া এলাকায় ফুলকপি চাষ বেশি হয়ে থাকে। তিনি আরও বলেন, আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এবার সবজির বাম্পার ফলন হয়েছে। বাজারমূল্য সহনশীল পর্যায়ে থাকায় কৃষকরাও স্বস্তিতে আছে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন