Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার , ২৮ জানুয়ারী ২০২০, ১৪ মাঘ ১৪২৬, ০২ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

ইরাকে নির্বাচনি আইন সংশোধন বিল পাস

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:৫৮ পিএম

ইরাকের পার্লামেন্ট নির্বাচনি আইন সংশোধন করে একটি বিল অনুমোদন করেছে। একই সঙ্গে ইরাকের নির্বাচন কমিশন ভেঙে দিয়ে কমিশনারদের অবসরে পাঠিয়েছেন দেশটির পার্লামেন্ট সদস্যরা।
ইরানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম পার্সটুডে এক প্রতিবেদনে জানায়, নির্বাচনি আইন সংশোধন করে একটি বিল অনুমোদন করেছে ইরাকের পার্লামেন্ট। এতে চলমান অচলাবস্থার নিরসন হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।
ইরাকের পার্লামেন্ট স্পিকার মোহাম্মাদ আল-হালবুসি নতুন নির্বাচন কমিশনের সদস্যদের নিয়োগ দেওয়ার ব্যাপারে বলেন, বিচারপতিদের মধ্য থেকে লটারির ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশনারদের নিয়োগ দেওয়া হবে।
বেকার সমস্যা ও প্রশাসনে দুর্নীতির প্রতিবাদে ইরাকে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলছে। বিশেষ করে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় শহরগুলোতে বিক্ষোভকারীদের সঙ্গে নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষে বহু মানুষ হতাহত হয়। পার্লামেন্টের এ পদক্ষেপের ফলে ইরাকে চলমান বিক্ষোভ প্রশমিত হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।
প্রথমদিকে কিছু সামাজিক সমস্যা নিয়ে ইরাকে সরকার বিরোধী আন্দোলন হলেও ধীরে ধীরে তা রাজনৈতিক প্রতিবাদে রূপ নেয়। এক পর্যায়ে একদল বিক্ষোভকারী নির্বাচনি আইন ও সংবিধান সংস্কারের আহ্বান জানায়। এমনকি কিছু মানুষ সরকারের পতনের দাবিতেও ¯েøাগান দিতে থাকে।
এ অবস্থায় ইরাকের প্রভাবশালী শিয়া আলেম আয়াতুল্লাহ আলী সিস্তানি গত ২২ নভেম্বর সেদেশের নির্বাচনি আইন সংশোধন করার জন্য ইরাকি রাজনীতিবিদ ও আইনপ্রণেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, রাজধানী বাগদাদসহ দক্ষিণাঞ্চলের কিছু শহরে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে যে সহিংস বিক্ষোভ চলছে একমাত্র নির্বাচনি আইন সংশোধনের মাধ্যমে তার অবসান ঘটানো যেতে পারে।
আয়াতুল্লাহ সিস্তানি বলেন, নির্বাচনি আইন ও নির্বাচন কমিশন সংক্রান্ত আইন সংশোধন করলে চলমান অচলাবস্থার অবসান হবে। তিনি বিক্ষোভকারীদেরকে শান্তিপূর্ণভাবে তাদের প্রতিবাদ তুলে ধরতে এবং সব ধরনের নাশকতামূলক তৎপরতা পরিহার করতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।
৮৯ বছর বয়সি ইরাকের প্রভাবশালী আলেম আয়াতুল্লাহ সিস্তানিকে কখনো জনসম্মুখে দেখা যায়নি কিন্তু তারপরও দেশটির শিয়া মুসলমানদের মধ্যে তার ব্যাপক প্রভাব রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরাক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ