Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ আশ্বিন ১৪২৭, ০৮ সফর ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বিশ্বনাথের ১১ বছরের কিশোরিকে ১০ দিন আটক রেখে পাশবিক নির্যাতন : ধর্ষক আটক

বিশ্বনাথ (সিলেট) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৬:২৮ পিএম

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার নতুন বাজারস্থ এলাকায় বসবাসকারি ১১ বছরের এক কিশোরিকে জোর পূর্বক ধরে নিয়ে ১০ দিন আটক রেখে পাশবিক নির্যাতন চলোয় এক কুখ্যাত বখাটে। নাম সাইফুল ইসলাম। সে সুনামগঞ্জ জেলার বিশ্বম্বরপুর উপজেলার সোনাতলা গ্রামের মেরাজ আলীর ছেলে। বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে বিশ্বনাথ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বখাটে সাইফুলকে তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার ও ভিকটিম তাসলিমা বেগমকে উদ্ধার করে বিশ্বনাথ থানায় নিয়ে আসে।

ভিকটিমের বাবা চান মিয়ার বাড়ি নেত্রকোনা জেলায় হলেও স্ত্রী-সন্তানদের নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বনাথে বসবাস করে আসছিলেন। বখাটে সাইফুলও বিশ্বনাথে বসবাস করায় কু-দৃষ্টি দেয় তাসলিমার উপর। এক পর্যায়ে কিশোরিকে কৌশলে ফুঁসলিয়ে তার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে অপ্রাপ্তবয়স্ক এ কিশোরিকে ১০ দিন অমানুষিক নির্যাতন চালায়। মেয়েটি তার নির্যাতনের কথা মোবাইল ফোনে পিতাকে জানালে অসহায় পিতা চান মিয়া টাকার অভাবে মেয়েটিকে উদ্ধার করে পারেননি। কিন্তু মেয়ে নির্যাতনের কথাও সহ্য করতে পারছেন না। এক পর্যায়ে চান মিয়া বিষয়টি তার দোকানের মালিক মাসুক মিয়াকে জানান। মাসুক মিয়া পূরো বিষয়টি একজন সিনিয়র সাংবাদিককে অবহিত করেন এবং তাঁর পরামর্শে বিশ্বনাথ থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করলে পুলিশের এসআই রতনা নেতৃত্বে একদল পুলিশ সুনামগঞ্জ গিয়ে বখাটেকে গ্রেফতার ও ভিকটিমকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। পুলিশ বখাটে সাইফুলকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করেছে। গরিবের কিশোরি মেয়েটিকে উদ্ধার করায় সচেতন মহল অনেকেই পুলিশের এমন মহতি কাজে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ