Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ২৬ জানুয়ারী ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

শীতের পদধ্বনি বিভিন্ন অঞ্চলে

তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০১ এএম

অগ্রহায়ণ মাস শেষের দিকে, হেমন্ত ঋতু বিদায়মান। পঞ্জিকার হিসাবে শীতকাল না আসতেই উত্তরাঞ্চলসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় কমবেশি শীতের পদধ্বনি শুরু হয়েছে। সেই সাথে মাঝরাত থেকে সকাল অবধি পড়ছে কুয়াশা।

আবহাওয়ার পালাবদলের কারণে সর্দি-কাশি, ভাইরাস জ্বর, পেটের পীড়াসহ বিভিন্ন রোগব্যাধির প্রকোপ দেখা দিয়েছে। গতকাল শনিবার সর্ব-উত্তর জনপদের পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় রাতের পারদ ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে গেছে। যা চলতি মৌসুমর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল কুতুবদিয়ায় ৩০.৮ ডিগ্রি সে.। ঢাকার তাপমাত্রা সর্বোচ্চ ২৯.৮ ও সর্বনিম্ন ১৬.৮ ডিগ্রি সে.। তেঁতুলিয়া ছাড়াও গতকাল রংপুর, ময়মনসিংহ, ঢাকা, সিলেট ও রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন স্থানে রাতের তাপমাত্রার পারদ ১১ থেকে ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে আসে।

এদিকে আজ (রোববার) সন্ধ্যা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে জানা গেছে, আকাশ আংশিক মেঘলাসহ সারাদেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। শেষরাত থেকে সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও হালকা থেকে মাঝারি ধরনের কুয়াশা পড়তে পারে। সারাদেশে রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত এবং দিনের তাপমাত্রা কিছুটা হ্রাস পেতে পারে। পরবর্তী ৪৮ ঘণ্টায় আবহাওয়ার কিছুটা পরিবর্তন এবং এরপরের ৫ দিনে রাতের তাপমাত্রা হ্রাস পেতে পারে। চলতি ডিসেম্বর মাসে দেশের উত্তরাঞ্চল ও ঢাকাসহ মধ্যাঞ্চলে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে।

পঞ্চগড় জেলা সংবাদদাতা জানান : দেশের সর্ব উত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে জেঁকে বসতে শুরু করেছে শীত। গত ক’দিন ধরে প্রতিদিনই নামছে তাপমাত্রার পারদ। আসি আসি অবস্থায় থাকা শীতে তাপমাত্রার পারদ গতকাল তেঁতুলিয়ায় নেমেছিল ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। শীতের আগমনীতেই তাপমাত্রার এমন নিম্নমুখী চেহারা দেখা দিচ্ছে আশঙ্কা। আগামীকাল থেকে শীতের তীব্রতা আরও বেড়ে যাবে এমন আভাস দিচ্ছে আবহাওয়া অফিস।

হিমালয়ের সবচেয়ে কাছে অবস্থান হওয়ায় পঞ্চগড়ে শীতের তীব্রতা প্রতি বছরই বেশি থাকে। এবারও মধ্য আশ্বিন থেকে শীতের আগমনি বার্তা লক্ষ করা গেলেও দিনে প্রচন্ড রোদের কারণে শীতের তীব্রতা দেখা যায়নি। তবে অগ্রহায়নের শেষ সপ্তাহে এসে বেড়েছে শীতের তীব্রতা। দিনের তাপমাত্রা খুব বেশি একটা না কমলেও দুপুরের পর থেকে হিমেল হাওয়ার কারণে রাতের তাপমাত্রা কমছে। পর পর দু’দিন তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে নেমে আসলেও গতকাল শনিবার তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। গতকাল দুপুরের পর থেকে মেঘলা আকাশের কারণে রোদ তেমন একটা গায়ে লাগেনি। সে সাথে উত্তরের হিমেল হাওয়ার কারণে বিকেল থেকেই শীত অনুভ‚ত হতে থাকে। সন্ধ্যা হওয়ার আগেই পুরো শীতের কাপড় গায়ে চড়িয়ে মানুষজনকে বাড়ি থেকে বের হতে দেখা গেছে।

গতকাল শনিবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করেছে তেঁতুলিয়া আবহাওয়া অফিস। যা এবারের শীতে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। আগামীকাল থেকে তাপমাত্রা আরও কমে যাওয়ার আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আর তাপমাত্রা কমে যাওয়ায় শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছে ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষগুলো। সরকারিভাবে কিছু শীতবস্ত্র বরাদ্দ পাওয়া গেলেও এখন পর্যন্ত তা শীতার্তদের মাঝে বিতরণ শুরু হয়নি।

তেঁতুলিয়া আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রহিদুল ইসলাম জানান, গত ২২ থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত তেঁতুলিয়ায় সর্বনিম্ন গড় তাপমাত্রা ১৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস হলেও ১ ডিসেম্বর থেকে এখানকার তাপমাত্রা কমতে শুরু করে। গত ৫-৬ ডিসেম্বর তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। শনিবার আরও ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমে তেঁতুলিয়ায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। যা চলতি শীত মৌসুমে সারাদেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা বলে তিনি জানান।

এদিকে শীতের তীব্রতা বৃদ্ধির কারণে দুর্ভোগে পড়েছে ছিন্নমূল ও খেটে খাওয়া মানুষগুলো। শীতবস্ত্রের অভাবে অনেকে রাতে খড়কুটো জ্বেলে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে। সরকারিভাবে প্রাপ্ত শীতবস্ত্র ইতোমধ্যে জেলা থেকে উপজেলা পর্যায়ে পাঠানো হয়েছে। উপজেলা থেকে এসব শীতবস্ত্র এখনও বিতরণ শুরু হয়নি।

পঞ্চগড়ের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক রায়হানুল হক জানান, মন্ত্রণালয় থেকে ২১ হাজারের বেশি শীতবস্ত্র হিসেবে কম্বল পঞ্চগড়ে এসেছে। যা উপজেলা সদরে পাঠানো হয়েছে। শিগগিরই এগুলো শীতার্তদের মাঝে বিতরণ করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন