Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ মাঘ ১৪২৭, ০৭ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

‘ট্রিম্যান’ রোগীর চিকিৎসায় ৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড

প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ট্রিম্যান রোগে আক্রান্ত আবুল হোসেন বাজনাদারের চিকিৎসায় ৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড করেছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রফেসর ডা. মো. আবুল কালামকে এ কমিটির প্রধান করা হয়েছে। এদিকে ঢামেকের বার্ন ইউনিটের চিকিৎসাধীন আবুল হোসেন তার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে পেতে আকুল আবেদন জানিয়েছেন।
গতকাল রোববার হাসপাতালের বেডে শুয়ে আবুল হোসেন বলেন, এক একটি হাত মনে হয় ১০ কেজি ওজন। প্রচ- ভারী লাগে। কোনোভাবেই বিছানা থেকে উঠতে পারি না। সৃষ্টিকর্তার কাছে কিছু চাই না। শুধু সুস্থ হতে চাই। যেনো কাজ কর্ম করে খেতে পারি। ১০ বছর ধরে এই রোগ বহন করছি। কখনও নিরাশ হইনি। ভেঙে পড়িনি। আমি আশাবাদী, আমি একদিন সুস্থ হবোই!
গত শনিবার সকালে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসা নিতে আসেন আবুল হোসেন। এ রোগটিকে বিরল রোগ হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন ঢামেক হাসপাতালের চিকিৎসকরা। এরপরই সংবাদ মাধ্যমে উঠে আসেন বিরল রোগে আক্রান্ত এ যুবক। এরপর থেকেই তাকে দেখতে আসেন সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ। তারা তাকে সান্ত¦না দিয়েছেন।
এদিকে, রোববার দুপুরে ট্রিম্যান রোগে আকান্ত আবুল হোসেনের চিকিৎসার জন্য মেডিকেল বোর্ড করেছে ঢামেক কর্তৃপক্ষ। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের প্রফেসর ডা. আবুল কালামকে প্রধান করে ছয় সদস্যের এ মেডিকেল বোর্ড করা হয়। ছয় সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের অন্য সদস্যরা হলেন- প্রফেসর ডা. সামন্ত লাল সেন, প্রফেসর ডা. মো. সাজ্জাদ খন্দকার, প্রফেসর ডা. রায়হানা আওয়াল, মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. প্রফেসর খান মো. আবুল কালাম আজাদ ও চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডা. এমদাদুল হক। পৃথিবীতে বাংলাদেশসহ এখন পর্যন্ত হাতেগোনা কয়েকজনকে এ রোগে আক্রান্ত হতে দেখা গেছে। তাদের মধ্যে ইন্দোনেশিয়ায়, রোমানিয়া ও সর্বশেষ বাংলাদেশে দেখা গেলো।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ‘ট্রিম্যান’ রোগীর চিকিৎসায় ৬ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ