Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রে সউদী সেনাদের প্রশিক্ষণ বন্ধ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৩:৩৪ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রে সৌদি আরবের সকল সেনা সদস্যদের সামরিক প্রশিক্ষণ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে পেন্টাগন। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এই নির্দেশ বলবৎ থাকবে বলে ঘোষণা করা হয়েছে।

জানা যায়, গত শুক্রবার ফ্লোরিডার এক নৌঘাঁটিতে সউদী বিমান বাহিনীর একজন লেফটেন্যান্ট গুলি করে তিন মার্কিন নাবিককে হত্যার পর মঙ্গলবার এ ঘোষণা দেয় পেন্টাগন। শুক্রবারের ওই ঘটনায় পুলিশের গুলিতে বন্দুকধারীসহ চারজন নিহত এবং আরো আটজন আহত হন।

হামলাকারী মোহাম্মদ আল-মামরানি (২১) সৌদি আরবের রয়েল এয়ার ফোর্সের লেফটেন্যান্ট ছিলেন এবং তিনি প্রশিক্ষণ নিতেই ফ্লোরিডায় এসেছিলেন।
ব্রিটিশ সংবাদ সংস্থা রয়টার্স বলছে, পেন্টাগনের এ ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রে প্রশিক্ষণে থাকা সৌদি সামরিক সদস্যদের কার্যক্রমের ওপর বিরাট প্রভাব ফেলবে। এর ফলে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সৌদি আরবের সামরিক বাহিনীর ৩০০ জনেরও বেশি প্রশিক্ষণার্থী পাইলট ‘সেইফটি স্ট্যান্ড-ডাউন’ অবস্থায় থাকবে।

এই সিদ্ধান্ত সৌদির পদাতিক বাহিনীর সদস্য ও প্রশিক্ষণে থাকা অন্যান্যদের ক্ষেত্রেও কার্যকর হবে বলে রয়টার্সকে নিশ্চিত করেছে পেন্টাগন। তবে পাঠ্যক্রমের মতো ক্লাসরুম প্রশিক্ষণ অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে।

এই সিদ্ধান্তের বিষয়ে মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক ঊর্ধতন কর্মকর্তা জানান, নিরাপত্তা প্রক্রিয়া বিস্তৃতভাবে পর্যালোচনা করার অভিপ্রায়ে এ পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে যা অবশেষে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা পাঁচ হাজারের মতো আন্তর্জাতিক সামরিক শিক্ষার্থীর সবার ক্ষেত্রেই প্রয়োগ করা হবে।

তবে আপাতত এটি সৌদি আরব থেকে আসা প্রায় ৮৫০ জন প্রশিক্ষণার্থীর ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হবে বলে জানান তিনি। সৌদি আরবের প্রশিক্ষণার্থী পাইলটদের জন্য সোমবার থেকেই ‘সেইফটি স্ট্যান্ড ডাউন’ ও প্রায়োগিক প্রশিক্ষণ বন্ধ রাখা হয়েছে বলে মার্কিন নৌবাহিনীর মুখপাত্র আন্দিয়ানা জেনুয়ালদি জানিয়েছেন।
পেন্সাকোলাসহ ফ্লোরিডার পৃথক তিনটি নৌঘাঁটি ও বিভিন্ন স্থানে সৌদির প্রশিক্ষণার্থী সামরিক পাইলটদের জন্য ভিত্তিগত প্রশিক্ষণ বন্ধের কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য ঘাঁটিতেও সৌদিদের জন্য ভিত্তিগত প্রশিক্ষণ বন্ধ রাখার কার্যক্রম শুরু হয়েছে বলে মার্কিন বিমান বাহিনী জানিয়েছে।
ফ্লোরিডার পেন্সালোকার নৌঘাঁটিতে গোলাগুলির ওই ঘটনার পর মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এস্পার পর্যালোচনার নির্দেশ দিয়েছিলেন। ওই পর্যালোচনার ভিত্তিতেই সউদী সামরিক সদস্যদের প্রায়োগিক প্রশিক্ষণ বন্ধ রাখার পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে বিবিসি জানিয়েছে।

এফবিআই জানিয়েছে, তারা হামলাকারী সউদী বিমান বাহিনীর সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট মোহাম্মদ সায়ীদ আলশামরানির (২১) উদ্দেশ্যে নির্ধারণের চেষ্টা করে যাচ্ছে।
এটি একটি সন্ত্রাসবাদী হামলা, এমন সিদ্ধান্তে পৌঁছতে কাজ করে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন তদন্তকারীরা। তবে মোহাম্মদ আল-মামরানি একাই হামলাটি চালিয়েছে এবং এ ঘটনায় তার সঙ্গে অন্য কেউ জড়িত ছিল না বলে মনে করছেন তারা।

পেন্সাকোলার এ ঘটনায় যুক্তরাষ্ট্র-সউদী আরবের দীর্ঘদিনের সম্পর্ক নিয়ে ফের প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ইয়েমেনে সউদী আরবের সামরিক হামলা ও ইস্তাম্বুলের সউদী দূতাবাসে ওয়াশিংটন পোস্টের কলামনিস্ট জামাল খাশুগজির হত্যাকান্ড নিয়ে ইতোমধ্যেই দেশ দুটির মিত্রতায় কিছুটা টানাপোড়েন সৃষ্টি হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র

১৬ জানুয়ারি, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ