Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার , ২৬ জানুয়ারী ২০২০, ১২ মাঘ ১৪২৬, ২৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

‘শ্রমিকদের আগে মন্ত্রী-আমলার বেতন হলে কেন্দ্রীয় ব্যাংক ঘেরাও’

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০৮ এএম

পাটকল শ্রমিকদের বেতন পরিশোধের আগে মন্ত্রী আমলাদের বেতন দেয়া হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ঘেরাও কর্মসূচি দেবে সিপিবি। গতকাল পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে পল্টনস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সভায় এই ঘোষণা দেয়া হয়।

সংহতি সভায় দলের সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, পাটকল শ্রমিকরা ১৫ সাপ্তাহ বেতন পাচ্ছেন না। যখন ব্যাংক লুট হয়, দেশ থেকে ৪ হাজার কোটি টাকা পাচার হয় তখন সরকারের মন্ত্রীরা বলেন এই টাকা কিছুই না। অথচ শ্রমিকদের অতি সামান্য বেতনের টাকা দেয়া হচ্ছে না। শ্রমিকদের বেতন দেয়ার আগে মন্ত্রী এমপি ও সরকারি কর্মকর্তাদের বেতন দেয়া হলে বাংলাদেশ ব্যাংক ঘেড়াও করা হবে।

সিপিবি সভাপতি বলেন, সরকার ‘নিও লিবারেল ইকোনমি’ নামের গণবিদ্বেষী নীতিতে দেশ চালাচ্ছে। সব কারখানা ও মিল ব্যাক্তিমালিকানায় দেয়ার পায়তারা করছে। পাবলিক প্রাইভেট পাটর্নারশীপ নামে পাটকলের স্থাবর-অবস্থাবর সম্পতি লুটেরাদের হাতে তুলে দিচ্ছে। শ্রমিকরা যে ১১ দফা দাবি দিয়েছে তা যথার্থ। এ দাবিগুলো সরকারকে মেনে নিতে হবে। না হলে বৃহৎ আন্দোলনের কর্মসূচি দেয়া হবে।
সংহতি সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন দলের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম, কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল্লাহ কাফী রতন, রুহিন হোসেন প্রিন্স, মাহবুব আলম, জলি তালুকদার, প্রমূখ।

এদিকে পাটকল শ্রমিকদের ১১ দফা মেনে নেয়ার দাবি জানিয়েছে রাশেদ খান মেননের ওয়ার্কার্স পার্টি। গতকাল ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন ও সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা এক বিবৃতিতে পাটকল শ্রমিকদের অবিলম্বে মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন, বকেয়া প্রভিডেন্ট ফান্ড ও গ্র্যাচুইটি প্রদানসহ ১১ দফা মেনে নেয়ার জোর দাবি জানান।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ