Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার , ১৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৪ মাঘ ১৪২৬, ২১ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী

পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভারত সফর হঠাৎ বাতিল

ভারতের মিডিয়া বলছে ‘বিতর্কিত’ নাগরিক বিলে ঢাকার অস্বস্তি

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

হঠাৎ সফরের দিনই ভারতে তিনদিনের সরকারি সফর বাতিল করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। গতকাল বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) ভারতের রাজধানী নয়া দিল্লির উদ্দেশে তার রওয়ানা হওয়ার কথা ছিল মন্ত্রীর। কূটনীতিক সূত্র জানাচ্ছে, ভারত সফরের বিষয়ে নতুন করে দিনক্ষণ ঠিক হতে পারে। তবে পূর্ব নির্ধারিত এই সফর বাতিল নিয়ে আন্তর্জাতিক মিডিয়া বলছে সফরের আগের দিন রাতে ভারতের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাসকে কেন্দ্র করে এক ধরণের অস্বস্তি সৃষ্টি হওয়ায় এই সফর বাতিল হয়েছে। তবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন গতকাল সাংবাদিকদের জানান, শহীদ বুদ্ধিজীবী এবং বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার তাড়া থাকায় নয়াদিল্লি সফর বাতিল করেছেন। এদিকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ভারত সফর স্থগিত করেছেন। ভারতের মেঘালয় রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কনরাড সাংমার আমন্ত্রণে ১৩ ডিসেম্বর শুক্রবার সেখানে যাওয়ার কথা ছিল।
জানা যায়, দ্য ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশনের (আইওরা) সম্মেলনে যোগ দিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর তিনদিনের সফরসূচি নির্ধারণ হয়। এ সম্মেলনের ফাঁকে নয়া দিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্করের সঙ্গেও বৈঠক হওয়ার কথা ছিল আব্দুল মোমেনের। দুই মন্ত্রীর বৈঠকে এনআরসি (ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের জাতীয় নাগরিকপঞ্জি), সামরিক সরঞ্জাম ক্রয়, সমুদ্রসীমায় রাডার স্থাপন সংক্রান্ত এজেন্ডা ছিল।
কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, পূর্ব নির্ধারিত এই সফরটির সময় সূচি ঠিক করার আগে ঢাকার পক্ষ থেকে নয়াদিল্লিকে জানান হয়েছিল যে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস এবং জাতীয় দিবসে বাংলাদেশে থাকতে চান। তাই তার বৈঠকের সময় সূচি যেন এমনভাবে ঠিক করা হয় যে তিনি নয়াদিল্লিতে বৈঠক শেষ করে এই অনুষ্ঠানগুলোতে সহজে যোগ দিতে পারেন। তবে ভারতের প্রভাবশালী গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, পূর্ব নির্ধারিত সফর বাতিল নিয়ে ঢাকার পক্ষ থেকে খোলামেলা কিছু বলা হয়নি। তবে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল ইস্যূতে বেশ কয়েকদিন ধরেই ঢাকা অস্বস্তি প্রকাশ করছিল। কূটনৈতিক সূত্রের বরাত দিয়ে টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, ভারতের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হওয়ায় বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার পূর্ব নির্ধারিত তিনদিনের ভারত সফর বাতিল করেছেন। বিলটি পাস হওয়ায় ভারতের আসামসহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের একাধিক রাজ্যে বিক্ষোভ এবং অস্থিতিশীল পরিবেশ বিরাজ করছে। সফর বাতিল হওয়া এটাও অন্যতম একটি কারণ। কোলকাতা থেকে প্রকাশিত আনন্দবাজার পত্রিকা বলেছে, নাগরিকত্ব বিলে অস্বস্তির কারণে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দিল্লি সফর বাতিল হয়েছে।
ঢাকা ও নয়াদিল্লি কূটনৈতিক সূত্রগুলো বলছে, আগামী মাসে এই সফরটি আবার অনুষ্ঠিত হবে। তবে এখনও দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। তীব্র বিরোধিতা সত্ত্বেও ভারতের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় গত ১১ ডিসেম্বর ‘বিতর্কিত’ নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়েছে। এর ফলে বিলটি এখন ভারতের আইনে পরিণত হলো।
এর আগে, ভারতের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল নিয়ে ভারতের মন্ত্রী অমিত শাহ তার বক্তব্যে বলেন, ‘প্রতিবেশী বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন না থামার কারণে তারা নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলটি এনেছেন।’ অমিত শাহের এমন মন্তব্যের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছিলেন, ‘আমি মনে করি যে এ ব্যাপারে যে কথা উঠেছে সেগুলো সত্য না। আমাদের দেশে সংখ্যালঘু নির্যাতন, ধর্মীয় নির্যাতন হয় না। আমাদের দেশে ধর্ম যার যার কিন্তু উৎসব সবার। আমাদের দেশে অন্য ধর্মের কেউ নির্যাতিত হয় না। আমি আগেও বলেছি যে ভারত আমাদের বন্ধুপ্রতীম দেশ। দুই দেশের মধ্যে এখন অত্যন্ত সৌহার্দপূর্ণ সম্পর্ক চলছে চলছে যা সোনালী অধ্যায় নামে পরিচিত।
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সফরটি স্থগিত করা হয়েছে। পরবর্তীকালে সুবিধাজনক সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেঘালয় সফর করবেন।
এদিকে ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইন ও নাগরিক পুঞ্জি নিয়ে তোলপাড় চলছে। কোনো কোনো রাজেন্য ১৪৪ ধারা ভেঙ্গে মিছিল করছে বিক্ষুব্ধ মানুষ। এমনকি কয়েকজন পুলিশ সদস্য নতুন আইনের প্রতিবাদে পদত্যাগ পর্যন্ত করেছেন। ##

 



 

Show all comments
  • Abul Mia ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ২:৪৫ এএম says : 0
    হানিমুন শেষ
    Total Reply(0) Reply
  • ash ১৩ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৫:১৬ এএম says : 0
    KI HOILO KUDUM GO BAITTH JAIBA NA ???
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঢাকা

১৮ জানুয়ারি, ২০২০
৩০ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন