Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার , ২০ জানুয়ারী ২০২০, ০৬ মাঘ ১৪২৬, ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

দানা বাঁধছে অসন্তোষ

পাটকল শ্রমিকদের আমরণ অনশন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ঘাম ঝরিয়ে দিনের পর দিন কাজ করে বেতন না পেয়ে না খেয়ে মরতে হচ্ছে। দীর্ঘদিন ধরে মজুরি না পাওয়ায় বাড়িতে বাজার নিয়ে যেতে পারছি না। মুদিদোকানে অনেক টাকা বাকি রয়েছে। দোকানি আর বাকিতে চাল-ডাল দিতে চায় না। বাসায় গিয়ে অনাহারে থাকা সন্তানদের মুখে তাকাতে পারিনা বলে কান্নায় ভেঙে পড়েন খুলনার পাটকল শ্রমিক আব্বাস উদ্দিন। আব্বাস উদ্দিন মত অনশনে থাকা হাজার পাটকল শ্রমিকই একই দুর্দশায় পড়েছেন। তাদের আহাজারিতে ক্রমেই বাতাস ভারী হয়ে উঠছে।
খুলনা, রাজশাহী ও নরসিংদীতে চলমান অনশন কর্মসূচির চতুর্থ দিন গতকাল পর্যন্ত এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। অসুস্থ হয়েছে তিন শতাধিক। অনশনস্থলে শতাধিক শ্রমিককে স্যালাইন দিয়ে রাখা হয়েছে। ক্রমান্বয়ে বাড়ছে অসুস্থ শ্রমিকের সংখ্যা। এতে দানা বাঁধছে শ্রমিক অসন্তোষ।
এদিকে, গতকাল সকাল খুলনায় সাড়ে ১০টায় অনশনে থাকা অবস্থায় অসুস্থ হয়ে মারা যাওয়া প্লাটিনাম জুবলি জুটমিলের শ্রমিক আব্দুস সাত্তারের নামাজে জানাযা অনশনস্থলে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা ও শোকার্ত শ্রমিকরা অংশ নেয়। এসময় শ্রমিকের লাশ ছুঁয়ে দাবি আদায়ের শপথ করেছে পাটকল শ্রমিকরা। দানা বাঁধছে শ্রমিক অসন্তোষ।
খুলনা থেকে আবু হেনা মুক্তি জানান, গত মঙ্গলবার দুপুরে শুরু হওয়া আমরণ অনশন কর্মসূচির চতুর্থ দিন শুক্রবারে অসুস্থ ৪০ জনকে পার্শ্ববর্তী বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এর মধ্যে গত দু’দিনে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক জামাল হোসেন (৪০), স্টার জুট মিলের নারী শ্রমিক আলেয়া (৪৩), একই মিলের শ্রমিক আলাউদ্দিন (৫৫), জামাল হাওলাদার (৫০), আলমগীর হোসেন (৪৫), মোঃ শাহজাহান বাবুল (৬০), আ. রাজ্জাক (৬৫), আঃ কুদ্দুস (৬০), ইসমাইল হোসেন (৫৫), মোঃ ফারুক (৫৫), আব্দুস সালাম (৬৫), করিম শেখ (৫৫), প্লাটিনাম জুট মিলের শ্রমিক মোয়াজ্জেম হোসেন (৫০), মুক্তা বেগম (৪৫), মিনহাজ উদ্দিন (৫৫), মোঃ সোহরাব হোসেন(৫৫), আবুল কালাম (৪৫), আ. মালেক (৫৫), মোঃ বাচ্চু (৫৬), জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৯)। অনশন প্যান্ডেলের ভেতরে স্যালাইন চলছে প্রায় দেড় শতাধিক শ্রমিকের শরীরে।
এদিকে অনশন প্রত্যাহারের কোনো অনুরোধই রাখছে না শ্রমিকরা। স্থানীয় সাংসদ ও শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান শ্রমিকদের নেতাদের কর্মসূচি স্থগিত করতে বললেও তারা রাজি হননি। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনশন অব্যাহত রাখার ঘোষণা দিয়েছে পাটকল শ্রমিকরা। অপরদিকে প্রতিদিনই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠন পাটকল শ্রমিকদের কর্মসূচিতে সংহতি জানাচ্ছে।
অনশনরত শ্রমিকরা বলেছেন, এবার আর কোনো প্রতিশ্রুতি নয়, মজুরি কমিশন না নিয়ে আমরা এখান থেকে উঠবো না। বেঁচে থাকার এবং রুটিরুজির দাবি মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত ঘরে ফিরবো না।
শ্রমিক নেতারা জানান, এর আগেও মজুরি কমিশন বাস্তবায়নের দাবিতে কয়েকবার আন্দোলন করেছেন শ্রমিকরা। প্রতিবারই শ্রম প্রতিমন্ত্রী আশ্বাস দিয়ে শ্রমিকদের ঘরে ফিরে যেতে বলেন। তার ওই আশ্বাসে ভর করে শ্রমিকরা ঘরেও ফিরে গেছেন। কিন্তু দেখা গেছে কোনো বারই মজুরি কমিশন আর বাস্তবায়ন হয়নি। এ কারণে শ্রমিকরা চাইছেন দাবি আদায় না করা পর্যন্ত তারা অনশনেই থাকবেন।
রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদর যুগ্ম-আহায়ক খলিলুর রহমান বলেন, শীতকাল হওয়ায় অনশনে অসুস্থ শ্রমিকের সংখ্যা বাড়ছে। অনশনে থাকা শ্রমিকরা ক্ষুধার যন্ত্রণা আর সহ্য করতে পারছেন না। কিন্তু এবার দাবি আদায় না করে তারা ঘরে ফিরবে না।
ক্রিসেন্ট জুট মিল সিবিএ’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক সোহরাব হোসেন বলেন, গত কয়েকদিন ধরে শ্রমিকরা না খেয়ে অনশনে রয়েছেন, কিন্তু বাংলাদেশ জুট মিলস্ কর্পোরেশনের (বিজেএমসি) কোনো কর্মকর্তা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে বিজেএমসি’র দুই কর্মকর্তা অনশনস্থলে এসে চেয়ারম্যানের পক্ষ হয়ে অনশন তুলে নেয়ার অনুরোধ করেছিলেন। তাদের ওই কথা শুনেই ক্ষিপ্ত হয়ে যান শ্রমিকরা। এ সময় শ্রমিকদের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যান তারা। শ্রমিকরা এখন ক্ষুধার আগুনে ফুঁসছে। কোনো প্রতিশ্রæতিই এখন তারা শুনতে নারাজ। তারা প্রতিশ্রæতির বাস্তবায়ন চান।
প্লাটিনাম জুটমিলের মৃত শ্রমিক আব্দুস সাত্তারের জানাজা সকাল ১০টায় মিলের সামনে অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে খুলনা বিভাগীয় শ্রম কর্মকর্তা মিজানুর রহমান নগদ ৫০ হাজার টাকা তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন। জানাজা শেষে তার গ্রামের বাড়ি পটুয়াখালীতে লাশ পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্লাটিনাম জুট মিলের সিবিএ সভাপতি শাহানা শারমিন।
এদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবতার মা তিনি শ্রমিকদের ন্যায্য দাবির বিষয়ে আন্তরিক বলে মন্তব্য করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় খুলনা যুগ্ম-শ্রম অধিদপ্তরের আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।
রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল শ্রমিকদের আন্দোলন এবং অনশনে এক শ্রমিকের মৃত্যুর বিষয় নিয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান সাংবাদিকদের বলেন, শ্রমিকদের মজুরি কমিশনের বিষয়ে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের আহŸানে আন্তঃমন্ত্রণালয়ে আগামী ১৫ ডিসেম্বর বৈঠক ডেকেছে। সেখানে সমস্যা সমাধানের জন্য আলোচনা হবে। সেখানে মজুরি কমিশনের বিষয় সমাধান হবে। না হলে তিনি সবসময় শ্রমিকদের পাশে আছেন এবং থাকবেন বলে জানিয়েছেন। মৃত শ্রমিকের পরিবারকে শ্রম দফতর থেকে ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার ঘোষণা দেন প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান।
রাজশাহী থেকে রেজাউল করিম রাজু জানান, রাজশাহী জুটমিলের শ্রমিকরা তাদের আন্দোলন অব্যাহত রেখেছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যেতে তারা অনড়। ইতিমধ্যে নয়জন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে দুইজন বাড়ি ফেরেন। তবে এখনও সাতজন শ্রমিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
রাজশাহী জুটমিল সিবিএ-নন সিবিএ সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি জিল্লুর রহমান জানান, রাজশাহী জুটমিলে প্রায় এক হাজার কর্মচারী-শ্রমিক রয়েছে। কর্মচারিদের তিন মাসের ও শ্রমিকদের ১১ সপ্তাহের বেতন বকেয়া রয়েছে। বেতন-ভাতা না পেয়ে তারা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। ঢাকায় শ্রমিক নেতারা আলোচনায় বসলেও কোনো সমাধান হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে তারা আন্দোলনে নেমেছেন। এবার দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।
নরসিংদী থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, নরসিংদীতে মজুরি কমিশন, বকেয়া বেতন, চাকরি স্থায়ীকরণসহ ১১ দফা দাবি আদায়ে টানা ৪র্থ দিনের মতো শ্রমিকদের আমরণ অনশন কর্মস‚চি চলছে। শীত ও কুয়াশা উপেক্ষা করে খোলা আকাশের নিচে রাত কাটাচ্ছেন শ্রমিকরা। এছাড়া শ্রমিকদের আমরণ অনশনে খুলনা প্লাটিনাম জুবলী জুটমিলের শ্রমিক আব্দুর সাত্তার মারা যাওয়ায় তার স্মরণে কালো ব্যাচ ধারণ, গায়েবি জানাজা ও দোয়াসহ বেশ কয়েকটি কর্মস‚চি হাতে নিয়েছে। এদিকে অনশনের ফলে বেশ কয়েকজন শ্রমিক অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। শ্রমিকদের ন্যায্য ও যৌক্তিক দাবি আদায়ে তাদের খোঁজখবর নিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ ও রাজনৈতিক সংগঠন। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে বাংলাদেশ ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন (চরমোনাই অনুসারী) নরসিংদী জেলার শাখার নেত্রীবৃন্দ ইউএমসি পাটকল শ্রমিকদের দাবির সঙ্গে একাত্বতা প্রকাশ করেন। এ সময় তারা শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়ার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ জানান।



 

Show all comments
  • Md Helal ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪০ এএম says : 0
    এইদেশে হাজারো শ্রমিক না খেয়ে মরে গেলেও এই অবৈধ সরকারের কোন মাথা ব্যাথা থাকবেনা অবৈধ সরকারের কাছে সাধারণ জনগণের কিবা মূল্য আছে
    Total Reply(0) Reply
  • MD Shanto Islam ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪০ এএম says : 0
    এই দায় কার সরকারের কাছে আমি জনগণ হিসেবে জবাব চাই
    Total Reply(0) Reply
  • Biplob Molla ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪০ এএম says : 0
    আল্লাহ তুমি অসহায় শ্রমিকদের হেপাজত করুন।
    Total Reply(0) Reply
  • Helal Hossain ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    ইস রে! তাদের দাবি মেনে নিন। তারপর না হয সব পাটকল বন্ধ করে দিন। তাদের হক নষ্ট করবেন না।
    Total Reply(0) Reply
  • Mahafuja Shanta ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    আমি মে দিবস সম্পর্কে বইতে পড়েছি এতগুলো বছর পর সেই দুর্ধর্ষ মূহুর্ত গুলা যেন আজ সচক্ষে দেখতে পারছি... সরকারের এখনো কোন পদক্ষেপ না গ্রহণ করার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • Rezwan Ahmed ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    এই সরকারের কাছে জনগণের জীবনের কোন মূল্য নেই।।একশ জন মরলেও কিছু আসে যায় না।।গদি ঠিক থাকলেই হল
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Mamun Rahman ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    বালিশ কয়লা কোটি কোটি টাকার দুর্নীতি হচ্ছে আর এই গরীব মানুষদের কে সরকার যদি কিছু টাকা বাড়িয়ে দেয় কি প্রবলেম হবে
    Total Reply(0) Reply
  • oti_shadharon ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৮:৪৪ এএম says : 0
    রাসূল (সাঃ) বলেছেন, শ্রমিকের ঘাম শুকানোর আগে তার মজুরি পরিশোধ করতে; ভেবে দেখুন, পাটকল শ্রমিকদের বেতন-ভাতা যারা পরিশোধ করছেন না, তাদের জন্য কি পরিণতি অপেক্ষা করছে?
    Total Reply(0) Reply
  • jack ali ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৭:৪৮ পিএম says : 0
    Until and Unless we rule by the Law of Allah [SWT] we will be oppressed by the Governmen---Our Tax payers money --all the government people enjoy nice food/nice cloth/living in a nice house with all the facilities i.e: air conditions... also they have luxurious jeep/car with air conditions... these people are damn selfish,,,,,,,,,
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাট

২ জানুয়ারি, ২০২০
২৯ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ