Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৬ মাঘ ১৪২৭, ০৬ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বাংলাভাষীদের সীমান্তে আসার হিড়িক মহেশপুরে আরো ৪ জন আটক

এনআরসি আতঙ্ক

দক্ষিণ-পশ্চিম সীমান্ত থেকে বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০০ এএম

নাগরিকত্ব আইন এবং এনআরসি নিয়ে দেশজোড়া বিতর্কের মাঝে বাংলাভাষীদের বাংলাদেশ সীমান্তে আসার হিড়িক লেগেছে। পোয়াবারো হচ্ছে সীমান্তের পাচারকারীদের। আতঙ্কিত বাংলাভাষীদের সীমান্ত পার করাতে নেওয়া হচ্ছে মাথাপিছু পাঁচ হাজার টাকা। এই খবর দিয়েছে ভারতীয় পত্রিকা দৈনিক বর্তমান।

পত্রিকাটি লিখেছে, বনগাঁ ও বসিরহাট মহকুমার সীমান্তবর্তী এলাকায় সেকারণে ‘ধুড়’দের ব্যবসা (দালাল) এখন রমরমিয়ে চলছে। এক রাতে ১০ জনকে পার করলেই তাদের পকেটে ঢুকছে নগদ ৫০ হাজার টাকা। অথচ কয়েক দিন আগেও মাথাপিছু পারাপারের এই দর ছিল সর্বোচ্চ দুই থেকে আড়াই হাজার টাকা। তবে যে পথে বাংলাদেশে পাঠানো হচ্ছে, সেই পথে অল্পবিস্তর অনুপ্রবেশের ঘটনাও ঘটছে। এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার তরফেও বিএসএফকে সতর্ক করা হয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশ ও সীমান্তরক্ষীদের মদতেই চলছে এই কারবার।
পত্রিকাটি আরো উল্লেখ করে, বিএসএফের তরফে জানানো হয়েছে, সীমান্তে কড়া নজরদারি রাখা হয়েছে। সেকারণে প্রায় প্রতিদিনই অবৈধভাবে দেশে ঢোকা বা বের হতে চাওয়া বাংলাভাষী আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা জানা যায়, উত্তর ২৪ পরগনার জেলার বনগাঁ ও বসিরহাট মহকুমার বাংলাদেশ সীমান্তে এখনও সম্পূর্ণভাবে কাঁটাতারের বেড়া তৈরি হয়নি। এই সুযোগে সীমান্তবর্তী নদী ও ফাঁকা জমির উপর দিয়ে রমরমিয়ে পাচারের কাজ চলে। এনআরসি আতঙ্ক ও নাগরিকত্ব আইন পাশ হওয়ার পর অনুপ্রবেশকারীদের বাংলাদেশে ফেরার হিড়িক পড়ে গিয়েছে। আর তাতেই ধুড় সিন্ডিকেটে মানুষ পাচারের দর একলাফে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। এই ধুরদের যোগাযোগ দুই প্রান্তেই থাকে। মোবাইলের মাধ্যমে তাদের মধ্যে যোগাযোগ হয়। সাংকেতিক কথার মাধ্যমে দুই দিকে বিএসএফ ও বিজিবি কোন সময় থাকছে না, তা দেখে নিয়েই পারাপার করে। এই কাজে সীমান্তের স্থানীয় মানুষকে ইনফরমার হিসেবে ব্যবহার করে।
৪ ভারতীয় অনুপ্রবেশকারী আটক
আমাদের ঝিনাইদহ জেলা সংবাদদাতা জানান, গতকাল সোমবার ভোর চারটায় মহেশপুর উপজেলার জলুলী বিওপির টহল দল সীমান্ত পিলার ৫১/১ হতে একশ গজ বাংলাদেশের অভ্যন্তরে মগদশপুর মাঠের মধ্য হতে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশের সময় ৪ জন আটক করেছে। এদের মধ্যে ১জন পুরুষ ও ৩ জন নারী । বিজিবির মহেশপুর ৫৮ ব্যাটেলিয়ানের সহকারী পরিচালক মো. নজরুল ইসলাম খান স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয় এদের মধ্যে একজন নারী ভারতীয় নাগরিক। আটককৃত সবাইকে মহেশপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। বিজিবির হিসাব মতে গত ২ মাসে অবৈধ অনুপ্রবেশকালে আটক হয়েছে ৩১৫ জন। তবে সীমান্ত এলাকার বিভিন্ন সুত্রে জানা যায় এই সংখ্যা আরও অনেক বেশি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন