Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ইমপিচ করল মার্কিন হাউস

ক্ষমতার অপব্যবহার, কাজে বাধা!

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৯, ১২:০২ এএম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিশংসন প্রস্তাব বুধবার সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটে পাস হয়েছে প্রতিনিধি পরিষদে। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে অভিশংসন করতে যে পরিমাণ ভোট প্রয়োজন, হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভে প্রথম দুই অভিযোগের ভোট গণনায় ঐ পরিমাণ ভোট পড়েছে বলে জানানো হয়েছে। তার বিরুদ্ধে দু’টি অভিযোগের ক্ষেত্রেই অভিশংসনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক ভোট পড়েছে প্রতিনিধি পরিষদে। প্রথম অভিযোগের ক্ষেত্রে ২৩০ ভোট পড়েছে অভিশংসনের পক্ষে এবং ১৯৭ ভোট পড়েছে বিপক্ষে।
দ্বিতীয় অভিযোগের ক্ষেত্রেও প্রয়োজনীয় ২১৬ ভোটের বেশি সংখ্যক ভোট পড়েছে বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে ট্রাম্প হলেন অভিশংসিত হওয়া তৃতীয় মার্কিন প্রেসিডেন্ট। এর আগে অ্যান্ড্রো জনসন ও বিল ক্লিনটন এমন ভোটের মুখোমুখি হয়েছিলেন।

এখন প্রেসিডেন্ট পদ থেকে ট্রাম্পকে অপসারণ করা হবে কিনা সেক্ষেত্রে আগামী জানুয়ারিতে সেনেটের ভোটের পরই তা স্পষ্ট হবে। তবে সেনেটে যেহেতু রিপাবলিকান নিয়ন্ত্রিত তাই সেখানে এটি পাস হবার সম্ভাবনা প্রায় নেই বলে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের মত। ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ দুটি হলো, তিনি তার পদ ব্যবহার করে তার ডেমোক্র্যাট রাজনৈতিক প্রতিদ্ব›দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে ইউক্রেনের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে চেষ্টা করেছিলেন। দ্বিতীয়টি হলো, ইমপিচমেন্টের তদন্তে সহায়তা করতে অস্বীকার করে তিনি কংগ্রেসের কাজে বাধা সৃষ্টি করেছেন।

ডেমোক্রেটিক হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি একটি উদ্বোধনী ভাষণের মাধ্যমে বুধবারের শুনানি শুরু করেন। তিনি বলেন, শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে আমেরিকানরা গণতন্ত্রকে রক্ষার জন্য লড়াই করেছে এবং মৃত্যু বরণ করেছেন। কিন্তু দুঃখজনকভাবে আমাদের প্রজাতন্ত্রের দর্শন হোয়াইট হাউসের কর্মকাÐে হুমকির মুখে পড়েছে। বুধবার হাউসের স্পিকার তথা ডেমোক্র্যাটিক নেত্রী ন্যান্সি পেলোসিকে একটি ছ’পাতার চিঠি লিখেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। চিঠির ছত্রে ছত্রে হাউসের ডেমোক্র্যাট সদস্যদের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানিয়েছেন ট্রাম্প। সেখানে ইমপিচমেন্ট পদ্ধতিকেই তিনি ‘অভ্যুত্থানের চেষ্টা’ এবং ‘বিকৃত বিচার’ বলে উল্লেখ করেছেন। হোয়াইট হাউসেরই এক নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক কর্মী সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, প্রায় এক সপ্তাহ ধরে ওই চিঠিটি লেখার প্রস্তুতি নিয়েছেন ট্রাম্প। চিঠি লিখতে নিয়েছেন নিজের আইনজীবীদের পরামর্শও। তবে চিঠিতেই ট্রাম্প কার্যত স্বীকার করে নিয়েছেন, ইমপিচমেন্ট ভোটাভুটি প্রক্রিয়া এখন আটকানো যাবে না। তবে তিনি যে অন্যায় করেননি, বারবার তা দাবি করেছেন ট্রাম্প।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ছাড়া আর যে দুজন মার্কিন প্রেসিডেন্ট এর বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট এসেছিল তারা হচ্ছেন অ্যান্ড্রু জনসন এবং বিল ক্লিনটন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে তৃতীয় প্রেসিডেন্ট হিসেবে হাউজ অব রেপ্রেজেন্টেটিভে ইমপিচমেন্ট আনা হল ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে ইমপিচমেন্ট নিয়ে ভোটাভুটি শুরু হওয়ার আগে থেকেই এর পক্ষের সরব হয়ে আন্দোলন শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে শতাধিক মানুষের জমায়েত হয়।

এর আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসন নিয়ে প্রতিনিধি পরিষদে ভোট শুরু হয়। স্থানীয় সময় বুধবার প্রতিনিধি পরিষদের ৪৩৫ জন সদস্য একে একে অভিমত ব্যক্ত করা শুরু করেন। শুরু থেকে নিজেকে নির্দোষ দাবি করা ট্রাম্প মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদে অভিশংসন ভোটকে ডেমোক্র্যাটদের ‘ক্যুর উদ্যোগ’ হিসেবে আখ্যায়িত করে স্পিকার ন্যান্সি পেলোসিকে চিঠি পাঠিয়েছেন। মঙ্গলবার পাঠানো ওই চিঠিতে ট্রাম্প অভিযোগ করেন, ডেমোক্র্যাটরা ‘আমেরিকার গণতন্ত্রের বিরুদ্ধে’ যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া ও বিবিসি বাংলা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডোনাল্ড ট্রাম্প


আরও
আরও পড়ুন