Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ২৯ জানুয়ারী ২০২০, ১৫ মাঘ ১৪২৬, ০৩ জামাদিউস সানি ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

দৈনন্দিন জীবনে ইসলাম

আল্লামা মুফতী উবায়দুর রহমান খান নদভী | প্রকাশের সময় : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯, ৭:৩০ পিএম

প্রশ্ন : বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দেখা জায়েজ কি না? মুসলমানদের পক্ষে অমুসলিম দেশ কিংবা মুসলিম বিদ্বেষী দেশকে সমর্থন করা কেমন? অনেকে তাদের সমর্থিত দল বা পছন্দের খেলোয়াড়ের সাফল্য কামনা করে দান করেন বা রোজা রাখেন, এসব কি জায়েজ আছে?
কামরুল ইসলাম
পশ্চিম রামপুরা, ঢাকা।
উত্তর : ইসলামে নির্দোষ খেলাধুলা জায়েজ। শরীর গঠন, দুনিয়া বা আখেরাতের কোনো লাভ আছে এমন খেলা নাজায়েজ নয়। তবে খেলার সাথে জুয়া, মাদকদ্রব্য, অশ্লিলতা, যিনা-ব্যাভিচার, অপচয় ইত্যাদি মিশ্রিত হলে তখন আর সেটি জায়েজ থাকে না। বিশ্বকাপ ফুটবলের ক্ষেত্রে এ বিবেচনাগুলো সামনে রেখে বুঝে নিতে হবে। খেলা হিসাবে অমুসলিম বা মুসলিম বিদ্বেষী দেশকেও সহজ অর্থে সমর্থন করা যায়। তবে ধমীয় ও রাজনৈতিক সিরিয়াস চিন্তা-ভাবনা একে সমর্থন করে না। অমুসলিম দেশ বা দল অথবা পছন্দের খেলোয়াড়ের সফলতার জন্য ইসলামী বিধান ব্যবহার না করাই শ্রেয়। এতে শরীয়তের সাথে হালকামি পূর্ণ আচরণ করা হয়। খেলাকে খেলা হিসাবেই নেওয়া উচিত। এ সীমারেখা পর্যন্ত জায়েজ হওয়ার সুযোগ থাকতে পারে। কিন্তু মুসলমানের ঈমানী চেতনা ও বৈশ্বিক রাজনীতির আলোকে বিচার করলে ফুটবল ও ক্রিকেট বিশ্বকাপ ইত্যাদি নিয়ে নতুন করে ভাবতে হবে।
প্রশ্ন : আমি একজন তালাকপ্রাপ্তা, আমার পূর্বের স্বামী হতে পাওয়া অনেক সোনা-গহনা আছে। যাকাত দিতে হবে কি না?
হাসিনা বেগম
বরিশাল
উত্তর : আপনি যেই হোন, আর যেখান থেকেই প্রাপ্ত হন, যদি আপনার মালিকানায় নেসাব পরিমাণ সোনা-গহনা থাকে তাহলে যাকাত বর্ষ পূর্ণ হলে আপনার যাকাত দিতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ